kalerkantho


ভীতু মেয়েটি

শুধু পার্শ্বচরিত্র নয়, মূল চরিত্রেও মুনিশয়ানা দেখাচ্ছেন জেসিকা রথ। আগামীকাল ‘ফরএভার মাই গার্ল’ মুক্তির আগে তাঁকে নিয়ে লিখেছেন হাসনাইন মাহমুদ

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ভীতু মেয়েটি

এক ছবিতেই ১২ বার মৃত্যু! এমনিতেই তিনি ভীতুর ডিম, ভূতের ছবি দেখতে দেখতেই ভয়ে শেষ। তাই ছবিতে ১২ বার ‘মৃত্যু’র পর ভয়ে অবস্থা কাহিল হওয়াটা আশ্চর্য ছিল না। ভৌতিক এই ছবিতে পর্দায় ১২ বার তাঁকে মরতে দেখা গেলেও মনে মনে ভয় পেয়ে কতবার যে মরেছেন, তার হিসাব কে রেখেছে!

জেসিকা রথের কথা। ২০১৭ সালে মুক্তি পাওয়া তাঁর ছবি ‘হ্যাপি ডেথ ডে’ ছবিতে ট্রি গেলবম্যান চরিত্রে অনবদ্য অভিনয়ের জন্য তিনি ব্যাপকভাবে প্রশংসিত। ২০১৩ সালে ‘দ্য লাস্ট কিপারস’ দিয়ে শুরু করলেও কিছুতেই যেন পাদপ্রদীপের আলোয় আসতে পারছিলেন না। ভাগ্যের চাকা ঘুরতে শুরু করে ১৪ বিভাগে অস্কারে মনোনীত ‘লা লা ল্যান্ড’-এ অভিনয় করে। এখানে অ্যালেক্সিস চরিত্রটি ছোট হলেও নজর কাড়েন। যদিও নিন্দুকেরা এটিকে ‘অন্যদের গুণে খ্যাতি’ হিসেবে সমালোচনা করেছিলেন। অভিনেত্রী যাদের জবাব দিয়েছেন ‘হ্যাপি ডেথ ডে’ দিয়ে। মাত্র সাড়ে চার মিলিয়ন ডলার বাজেটের ছবিটি বিশ্বজুড়ে আয় করে ১১৭ মিলিয়ন ডলার! তবে মুশকিল হলো, যে ছবিতে তাঁর অভিনয় নিয়ে এত আলোচনা, তিনি নিজেই সে ছবিটি দেখতে বেশ ভয় পান! এ নিয়ে বন্ধুদের টিপ্পনী সইতে হয় নিয়মিতই। ‘হরর মুভি দেখতে ভালো লাগলেও রাতের দুঃস্বপ্নের কথা মনে হলেই প্রচণ্ড ভয় হয়। শুটিংয়ের সময় সেটে একটা বাচ্চার মুখোশ দেখেও প্রচণ্ড ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম,’ বলেন জেসিকা।

কাল মুক্তি পাচ্ছে জেসিকার নতুন ছবি ‘ফরএভার মাই গার্ল’। রোমান্টিক ধাঁচের এই চলচ্চিত্রে তাঁর বিপরীতে আছেন অ্যালেক্স রো। ছবিটির গল্প লিয়াম পেইজ নামের এক শিল্পীকে নিয়ে, যিনি অনেক দিন পর নিজ শহরে ফিরে আসেন। ফেলে যাওয়া বাগ্দত্তার সঙ্গে দেখা হওয়া, নিজ শিকড়কে খুঁজে পাওয়ার সংগ্রাম নিয়ে এগোয় কাহিনি।

গেল বছরটা দারুণ কাটানোর পর এই ছবি দিয়ে ২০১৮ সালটাও ভালোভাবে শুরুর আশা অভিনেত্রীর, “হিরোইন বা ভিলেন হতেই হবে এমন কোনো ইচ্ছা নেই। মনের মতো চরিত্র চাই আমি, সেটা যত ছোটই হোক না কেন। তবে শুরুর দিকে একটা পরিচিতি দরকার হয়। ‘লা লা ল্যান্ড’ যা করে দিয়েছে। এখন আমি আরো স্বাধীনভাবে চরিত্র বাছতে পারব।”


মন্তব্য