kalerkantho


মিস ওয়ার্ল্ড পর্ব শেষে

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মিস ওয়ার্ল্ড পর্ব শেষে

জেসিয়া ইসলাম

জেসিয়া ইসলাম

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ হয়েছেন। মূল আসর চীনে অনুষ্ঠিত ‘মিস ওয়ার্ল্ড’-এও ছিলেন সেরা চল্লিশে। দেশে ফেরার পর থেকেই নাটক ও চলচ্চিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব পাচ্ছেন একের পর এক। ইফতেখার শুভর ধারাবাহিক নাটক ‘ব্যাচেলর ডট কম’-এ অভিনয়ের চূড়ান্ত কথা দিয়েছেন। ফেব্রুয়ারিতে শুটিং। চরিত্রটা কী? ‘স্ক্রিপ্ট এখনো হাতে পাইনি। তবে গল্পটা শুনেছি, ঢাকার এক ধনী পরিবারের মেয়ে বাসা ছেড়ে হোস্টেলে গিয়ে ওঠে। কারণ মা মারা যাওয়ার পর বাবা আরেকটি বিয়ে করে। বাবার সঙ্গে মেয়ের সম্পর্কের অবনতি হতে থাকে। চারপাশে এমন ঘটনা অহরহ ঘটে। গল্পটা শুনেই ভালো লেগেছে। তাই রাজি হয়েছি’—বললেন জেসিয়া।

টুকটাক মডেলিং করছেন। তবে প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির। এ কারণে খুব বেশি কাজ হাতে নিচ্ছেন না। “গেল বছরের লম্বা একটা সময় পড়াশোনা থেকে দূরে ছিলাম, ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ ও ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতার  প্রস্তুতির জন্য। এখন আবার পড়াশোনায় মনোযোগ দিয়েছি। এ লেভেল শেষ। কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেব। আমার ইচ্ছা কম্পিউটার সায়েন্সে পড়ার”—বললেন জেসিয়া।

চলচ্চিত্র নিয়ে বিশেষ আগ্রহ তাঁর। প্রস্তাব পাচ্ছেন প্রচুর, কিন্তু একটাও মনে ধরেনি। আগে বলেছিলেন শাকিব খানের সঙ্গে অভিনয় করতে চান। সেই প্রসঙ্গে বললেন, ‘বর্তমান সময়ের নাম্বার ওয়ান নায়ক শাকিব খান। শুরুটা তাঁর বিপরীতে হলে পথচলাটা মসৃণ হবে আশা করি। তাঁর অভিনয়ও আমার ভালো লাগে।’

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল

এটিএন বাংলার একটি ডান্স শোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন। সাজ্জাদ হোসেন দোদুলের ভালোবাসা দিবসের টেলিফিল্মে অভিনয় করবেন। এ সপ্তাহেই শুটিং। কিছুদিন আগে অভিনয় করলেন সজলের বিপরীতে, জুনায়েদ বিন জিয়ার নাটক ‘এমনও তো প্রেম হয়’তে। এ ছাড়া দুটি গানের ভিডিওরও মডেল হয়েছেন, এর মধ্যে একটি ঐশীর গান ‘রুপালি আঁচল’। হাঁটবেন র্যাম্পেও। ২৬ জানুয়ারি সিলেটে প্রয়াত সালমান শাহ স্মরণে একটি অনুষ্ঠান হবে, সেখানে সালমানের মা নীলা চৌধুরীকে সম্মাননা দেওয়া হবে। অনুষ্ঠানের শো-স্টপার হবেন এভ্রিল।

তবে অভিনয়-মডেলিংয়ের চেয়ে সমাজসেবামূলক কাজেই তিনি বেশি ব্যস্ত। বাল্যবিবাহ রোধে গড়েছেন ‘এভ্রিল ফাউন্ডেশন’। সারা দেশে কাজ শুরু করেছে ফাউন্ডেশনটি। অটিস্টিক শিশুদের নিয়েও কিছু একটা করতে চান। 

আর অভিনয়? ‘অভিনয়ে নিয়মিত হব। ছোটবেলা থেকে গান, নাচ কিংবা অভিনয়—কিছুই শিখিনি। এখন যত করছি, ততই আগ্রহ বাড়ছে। অভিনয়টা আসলে নিজের ভেতর থেকে আসতে হয়। কাজ করতে করতেই শিখছি। আগেও বলেছি, অভিনয় করে যে টাকা উপার্জন করব, তার থেকে ৭৫ শতাংশ এভ্রিল ফাউন্ডেশনে দিয়ে দেব। ওই উপার্জনের জন্যও তো নিয়মিত কাজ করে যেতে হবে’—বললেন এভ্রিল।

হাফডজন ছবির নায়িকা হওয়ার প্রস্তাব রয়েছে এভ্রিলের হাতে। এর মধ্য থেকে কোনটি বেছে নেবেন, এখনো ডিসিশন নেননি। তবে পিএইচডি করার ডিসিশন চূড়ান্ত এবং সেটা বাইকের ওপর। ‘বাইক আমার প্যাশন। সারা জীবন বাইকের প্রতি আমার দুর্বলতা থাকবে। আমি চাই আমার চারপাশের সব মেয়ে বাইক চালাক।’

বর্তমানে আইনবিদ্যায় পড়ছেন। এর পেছনেও কারণ আছে। কী সেটা? ‘যেহেতু সমাজসেবা করতে চাই, কোথাও গেলে প্রশ্নের মুখোমুখি হতেই হয়, আপনি কে? তখন যদি আইনটা জানা থাকে, মোকাবেলা করতে পারব। এমন অনেক আইন আছে, যা মেয়েরা জানলে অত্যাচারের হাত থেকে রক্ষা পাবে’—বললেন এভ্রিল।


মন্তব্য