kalerkantho


বিশ্বসাহিত্য

আহারন অ্যাপেলফেল্ডের জীবনাবসান

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আহারন অ্যাপেলফেল্ডের জীবনাবসান

ইসরায়েলি ঔপন্যাসিক আহারন অ্যাপেলফেল্ড গত বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) মারা যান। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালে হলোকাস্টের শিকার এই লেখককে সমসাময়িক হিব্রু ভাষাভাষী প্রথম সারির লেখকদের অন্যতম হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। ১৯৩২ সালে চেরনোভিৎস শহরে জন্ম নেন আহারন। বর্তমানে ইউক্রেনের অন্তর্গত শহরটি সে সময় রোমানিয়ার অন্তর্ভুক্ত ছিল। ১৯৪২ সালে নািসদের হাতে মা নিহত ও বাবা গ্রেপ্তার হওয়ার পর একটি নািস ক্যাম্প থেকে পালিয়েছিলেন আহারন। আহারনের প্রথম উপন্যাস ‘আশান (স্মোক)’ প্রকাশিত হয় ১৯৬২ সালে। এ পর্যন্ত উপন্যাস ও কবিতার বই মিলিয়ে ৪৫টির বেশি বই প্রকাশিত হয়েছে তাঁর। পেয়েছেন দেশ-বিদেশে বেশ কিছু বড় পুরস্কার। ১৯৮৩ সালে মর্যাদাপূর্ণ ইসারেল পুরস্কার, ২০০৪ সালে আত্মজীবনী ‘স্টোরি অব অ্যা লাইফ’-এর জন্য ফ্রান্সের ‘প্রি-মেডিসিস অ্যাওয়ার্ড’ এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য। তাঁর বেশির ভাগ রচনাই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে, আগে বা পরের ইহুদিদের জীবনভিত্তিক। তবু তিনি নিজেকে হলোকাস্ট লেখক হিসেবে স্বীকার করতে অস্বীকৃতি জানান। ইংরেজিতে তাঁর সর্বশেষ বই ‘দ্য ম্যান হু নেভার স্টপড স্লিপিং’ প্রকাশিত হয় এক বছর আগে। ‘ব্যাডেনহেইম ১৯৩৯’, ‘দি ইমমর্টাল বার্টফাস’, ‘ব্লুমস অব ডার্কনেস : অ্যাট দ্য টাইম’, ‘অ্যাডাম অ্যান্ড টমাস’, ‘অল হুম আই হ্যাভ লাভড’, ‘দি এজ অব ওয়ান্ডারস’, ‘সাডেনলি লাভ’ প্রভৃতি তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ।


মন্তব্য