kalerkantho


হৃদয়স্পর্শী চিঠিতে ঝড় তুললেন ভারতের 'কালো' ক্রিকেটার!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ আগস্ট, ২০১৭ ১৬:৫৮



হৃদয়স্পর্শী চিঠিতে ঝড় তুললেন ভারতের 'কালো' ক্রিকেটার!

অভিনব মুকুন্দ। ছবি: ক্রিকইনফো

বলুন তো, স্যার ভিভ রিচার্ডস, ব্রায়ান চার্লস লারা কিংবা সনাথ জয়াসুরিয়াদের আপনি কীভাবে বিচার করবেন? গায়ের রং দেখে নয় নিশ্চয়ই। এটুকু বুঝতে পারেন সবাই; কিন্তু উপমহাদেশের বর্ণবিদ্বেষী অপসংস্কৃতি যেন নির্মূল হওয়ার নয়। গায়ের রং দেখে কেবল মেয়েদেরকেই বিচার করা হয় না; অনেক ছেলেরাও এই অমানবিক এবং ন্যক্কারজনক বিদ্বেষের শিকার হন। সেই ছেলেটি যদি আন্তর্জাতিক অঙ্গনের ক্রিকেটারও হন তাতেও ক্ষান্ত দেয় না বর্ণবিদ্বেষীরা। গায়ের রং কি সব?

অনেক ফর্সা সুন্দর ছেলে যা করে দেখাতে পারেনি তাই করে দেখিয়েছেন ভারতের ওপেনার অভিনব মুকুন্দ। দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন তিনি। কিন্তু এই মুকুন্দকেও শিকার হতে হয়েছ বর্ণবিদ্বেষের। গায়ের রং কালো বলে ছোটবেলা থেকে তাকে কম নীপিড়নের মধ্য দিয়ে যেতে হয়নি। এবার বর্ণবাদের বিরুদ্ধে ব্যাট ধরলেন তামিলনাড়ুর এই ক্রিকেটার। সোশ্যাল সাইট টুইটারে লিখলেন এক হৃদয়ছোঁয়া চিঠি।

অভিনব লিখেছেন, ১০ বছর বয়স থেকেই ক্রিকেট খেলছি এবং ১৫ বছর বয়স থেকে দেশ ও দেশের বাইরে বিভিন্ন জায়গায় সফর করেছি।

আমার গায়ের রং নিয়ে কেন মানুষের মাথাব্যথা, সেটা আজও আমার কাছে রহস্য।  দিনের পর দিন আমাকে খেলতে হয়।  প্রখর রোদের মাঝে মাঠে থাকতে হয়। আমি এটা করি কারণ আমি ক্রিকেট ভালোবাসি। ঘণ্টার পর ঘণ্টা রোদে পুড়েছি বলেই এই পর্যন্ত এসেছি।

তিনি আরও লিখেছেন, দেশের অন্যতম উষ্ণ অঞ্চল তামিলনাড়ুতে আমার জন্ম। জীবনের অধিকাংশ সময় কেটেছে মাঠে মাঠে। আমাকে নানা নামে ডাকা হয়েছে। হাসির পাত্র হয়েছি। কিন্তু আমি এগুলো নিয়ে ভাবি না। আমার লক্ষ্যটা যে অনেক বড় ছিল। অল্প বয়সে ওভাবে অপমানের শিকার হওয়া আমাকে মানসিকভাবে আরও দৃঢ় হতে সাহায্য করেছে। এসব অপমানকে কোনোসময় গুরুত্ব দেইনি। তবে আজ আমি বলতে বাধ্য হলাম। শুধু আমার জন্য নয়। আমাদের দেশে এমন অনেকে আছে যারা গায়ের রং কালো হওয়ার কারণে এই অদ্ভুত অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যায়। ফর্সা হওয়া মানেই সুন্দর আর স্মার্ট হওয়া নয় বন্ধু। সত্যের পথে থাকুন সুন্দরের পথে থাকুন। নিজের গায়ের রং নিয়ে আনন্দে থাকুন।

২৭ বছর বয়সী অভিনবর টুইটটি ইতিমধ্যে সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হয়ে গেছে। এই তরুণ ক্রিকেটারের ভাবনার প্রশংসা করছেন অসংখ্য সোশ্যাল সাইট ব্যবহারকারীরা। তবে তার এই বক্তব্যকে ঘিরে অহেতুক যাতে বিতর্ক সৃষ্টি না হয় তার সতর্কতা হিসেবে ফিরতি এক টুইটে অভিনব বলেছেন, তার এই টুইটের কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নেই। সমাজের পশ্চাতপদ চিন্তাধারা বদলের তাগিদ থেকেই তার এই টুইট।


মন্তব্য