kalerkantho


৭ গোলের ম্যাচে আর্সেনালের জয়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:১৮



৭ গোলের ম্যাচে আর্সেনালের জয়

ছবি: এএফপি

দুবার পিছিয়ে থেকেও বদলি খেলোয়াড় অ্যারন রামসে ও অলিভার জিরুর গোলে লিস্টার সিটিকে ৪-৩ গোলে পরাজিত করে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শুভ সূচনা করেছে আর্সেনাল। এমিরেটস স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরুর ৮৫ সেকেন্ডের মধ্যে রেকর্ড চুক্তিতে ক্লাবে যোগ দেয়া আলেক্সান্দার লাকাজেত্তে আর্সেনালকে এগিয়ে দেন। কিন্তু শিনজি ওকাজাকি ও জেমি ভার্দির পরপর দুই গোলে ৩০ মিনিটের মধ্যে ২০১৬ চ্যাম্পিয়ন লিস্টার সিটি ম্যাচে লিড নেয়।  

প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে ড্যানিয়েল ওয়েলবেক আর্সেনালের পক্ষে সমতা ফেরান। বিরতির পরপরই ভার্দি নিজের দ্বিতীয় গোল করে আবারো লিস্টারকে এগিয়ে দেন। কিন্তু ম্যাচের নাটকীয়তা তখনো বাকি ছিল। হঠাৎ করেই কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারের সিদ্ধান্তে পুরো ম্যাচের চেহারাই পাল্টে যায়। ৬৭ মিনিটে বদলি হিসেবে নামা দুই খেলোয়াড় রামসে ও জিরুর কল্যাণে আর্সেনালের জয় নিশ্চিত হয়। এফএ কাপ ফাইনালের নায়ক রামসে ৮৩ মিনিটে ম্যাচে সমতা ফেরান। ২ মিনিট পরে জিরুর হেড দলের জয় নিশ্চিত করে।

ম্যাচ শেষে ওয়েঙ্গার বলেন, 'আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে গেছি।

আজ দলের স্পিরিট ছিল দুর্দান্ত । সব মিলিয়ে একটা কথাই বলতে চাই লিস্টারের আক্রমণভাগ আজ পুরো ম্যাচেই দারুণ খেলেছে যে কারণে আমাদের তিন গোল হজম করতে হয়েছে। তার বিপরীতে আমরা চার গোল দিয়ে জয় নিশ্চিত করেছি। '

রামসে-জিরুর কল্যাণে গত ৫টি আসরে চতুর্থবারের মত মৌসুমের প্রথম ম্যাচে পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে আর্সেনাল। গত আট বছরে এই নিয়ে দ্বিতীয়বারের মত জয় দিয়ে মৌসুম শুরু করলেন ওয়েঙ্গার। গত মৌসুমে আর্সেনালের ম্যানেজার প্রকাশ্যে সমর্থকদের তোপের মুখে পড়েছিলেন। গত ২০ বছরে প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবার পরেই ওয়েঙ্গারের উপর ক্ষোভ ঝাড়ে গানার্স সমর্থকরা।  

কিন্তু চেলসিকে হারিয়ে রেকর্ড সপ্তমবারের মত এফএ কাপের শিরোপা জয়ের সাথে সাথে নতুন করে দুই বছরের চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন ওয়েঙ্গার। লিস্টারের বিপক্ষে দারুণ এই জয়ে ওয়েঙ্গারের প্রতি সমর্থকদের ফিরে পাওয়া আত্মবিশ্বাস আরো একটু পোক্ত হলো।

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের দল লিঁও থেকে রেকর্ড ৪৬.৫ মিলিয়ন পাউন্ডে আর্সেনালে যোগ দেয়া লাকাজেত্তে কোচকে হতাশ করেননি। দুই মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন এই ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার। মোহাম্মেদ এলেনের ক্রস থেকে লাকাজেত্তের হেড দিয়ে লিস্টার গোলরক্ষক কাসপার শিমেচেলকে পরাস্ত করেন। ৩ মিনিটের মধ্যে মার্ক আলব্রাইটনের ক্রস থেকে ওকাজাকি লিস্টারের পক্ষে সমতা ফেরান।

অ্যালেক্স ওক্সালেড-চেম্বারলেইন ও সিড কোলাসিনাকের দুটি প্রচেষ্টা শিমেচেল রক্ষা না করলে আর্সেনাল তখনই এগিয়ে যেতে পারতো। এর মাঝেই রক্ষণভাগের ভুলে ম্যাচে প্রথমবার এগিয়ে যাবার সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগায় লিস্টার। আলব্রাইটনের বাম দিকের একটি আক্রমণ থেকে ভার্দি দলকে এগিয়ে দিতে ভুল করেননি। লাকাজেত্তের শট আটকানোর পরে কোলাসিনাচের স্কয়ার পাস থেকে প্রথমার্ধের স্টপেজ টাইমে ওয়েলবেক আর্সেনালের পক্ষে সমতা ফেরান।  

বিরতির পরে চালকের আসনে থেকে ম্যাচ শুরু করে আর্সেনাল। কিন্তু এবারো এগিয়ে যাবার সুযোগ হাতছাড়া করেনি এক মৌসুম আগে প্রথমবারের মত লিগ শিরোপা দখল করা লিস্টার সিটি। ৫৬ মিনিটে একটি সেট পিস আক্রমণ থেকে রিয়াদ মাহরেজের শট থেকে ভার্দি দলকে আবারো এগিয়ে দেন। এলেনে ও রব হোল্ডিংয়ে স্থানে ৬৭ মিনিটে একসাথে মাঠে নামেন রামসে ও জিরু। এই দুই পরিবর্তনে মাঠেও প্রায় পুরো দলের পজিশন পাল্টে দেন ওয়েঙ্গার। উইঙ্গার অক্সালেড-চেম্বারলেইনকে রাইট-ব্যাকে, রাইট-ব্যাক বেলেরিনকে লেফট-ব্যাকে ও দুই লেফট-ব্যাক কোলাসিনাচ ও নাচো মনরিয়ালকে সেন্ট্রাল ডিফেন্সে নিয়ে আসেন ওয়েঙ্গার। এর ফলেই আর্সেনালের জয়ের ভিত রচিত হয়। জাকার পাস থেকে রামসে ও জাকার কর্ণার থেকে জিরু দলের জয় নিশ্চিত করেন।


মন্তব্য