kalerkantho


সেই সাব্বিরই বাঁচালেন বাংলাদেশকে!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৯:৫২



সেই সাব্বিরই বাঁচালেন বাংলাদেশকে!

ফাইল ছবি

যদিও এটি প্রস্তুতি ম্যাচ, তাই সিরিয়াস আলোচনার দাবি রাখে না। কিন্তু আসল লড়াইয়ে নামার আগে কিছু ইঙ্গিত পাওয়া যায় এসব ম্যাচ থেকে।

বেনোনিতে চলমান তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচের শেষ দিনে আজ শনিবার ৯ উইকেটে ২৩৫ রান তুলে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত ড্র হলেও প্রথম দিনের উজ্জীবিত বাংলাদেশ শেষ দুই দিনে কেমন যেন হারিয়ে গেল। প্রোটিয়া আমন্ত্রিত একাদশের বিপক্ষে বোলিংটাও ভালো হয়নি। নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংটাও মনমতো হলো না। যদিও স্রেফ ‘এক্সপেরিমেন্ট’ শব্দটি ব্যবহার করে এই ব্যর্থতাকে উড়িয়ে দেওয়া যেতে পারে।  

প্রথম ইনিংসে সফরকারীদের ৭ উইকেটে ৩০৮ রানের জবাবে ৮ উইকেটে ৩১৩ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশ। বোলিংয়ের শুরুটা ভালো হলেও শেষ পর্যন্ত সব আলো কেড়ে নিয়েছে প্রোটিয়ারা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমেও শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। ব্যাটিং লাইনআপেও বেশ রদবদল করা হয়েছে।

নিয়মিত ওপেনার তামিম ইকবাল আর সৌম্য সরকারের পরিবর্তে আজ টাইগারদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান লিটন দাস এবং ইমরুল কায়েস।

দলীয় ৯ রানেই লিটন দাসের (২) উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ৩ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামানো হয় মুমিনুল হককে। ইমরুল কায়েসের সঙ্গে তিনি ৭১ রানের জুটি গড়েন। ৫১ রান তুলে আউট হন ইমরুল। মুমিনুলের সঙ্গী হন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। কিন্তু মাত্র ৩ রান করেই প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন মুশফিক। বেশ কিছুক্ষণ লড়াই করে ৩৩ রানে ফিরেন মুমিনুল। ৬ নম্বরে নেমে সাব্বির রহমান ৮৭ বলে ৮ চারে ৬৭ রান করেন। এটাই দলের সর্বোচ্চ। আগের ইনিংসেও অপরাজিত ৫৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছিলেন সাব্বির।

প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাট করেননি নিয়মিত দুই ওপেনার তামিম ইকবাল এবং সৌম্য সরকার। অনেকদিন পর ওপেন করার সুযোগ পেয়ে খেটেখুটে ৫১ রানের ইনিংস খেলেন ইমরুল কায়েস। এটা তাকে আবারও হারানো জায়গা ফিরিয়ে দেবে কিনা সেটা অবশ্য বলা মুশকিল। মাহমুদ উল্লাহ এবং মেহেদী মিরাজ যথাক্রমে ১৫ এবং ১৪ রান করেন। লোয়ার অর্ডারের ব্যাটিংটা হয়তো এদিন ঝালিয়ে নিতে চাইছিলেন কোচ হাথুরুসিংহে। তাই ব্যাট করলেন তাইজুল (১৪), শফিউল (০), তাসকিন (১৫*) এবং শুভাশিস রায় (৩*)। এদের মধ্যে তাসকিন অপরাজিত ১৫ রান করতে খেলেছেন ৫৩ বল।


মন্তব্য