kalerkantho


ক্ষুদে সাংবাদিককে ধোনির বলা অসাধারণ কথাগুলো...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ১৩:৪৬



ক্ষুদে সাংবাদিককে ধোনির বলা অসাধারণ কথাগুলো...

ধোনির সাক্ষাতকার নিচ্ছেন চতুর্থ শ্রেণির ক্ষুদে সাংবাদিক শিবাঙ্গিনী চৌধুরী। ছবি: দ্য প্রিন্ট

স্কুল জীবনে ধোনি নাকি খুব ভালো অংক পারতেন। এ ছাড়া জ্যামিতিতেও তার মেধার তুলনা ছিল না।

তখন থেকেই তিনি বিশ্বাস করতেন, সততাই তার সাফল্যের অন্যতম রহস্য। তার মেয়ে জিভা ইদানীং বেশ দুষ্টুমি করছে বাড়িতে। শিশু দিবসে এমনই মজাদার এক সাক্ষাৎকার দিলেন সাবেক ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। সাক্ষাৎকার নিলেন যিনি; সেই শিবাঙ্গিনী চৌধুরী দিল্লির শ্রীরাম বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী!

ধোনির কাছে এ দিন শিবাঙ্গিনী ক্রিকেটার জীবনের কথা জানতে চাইলে বিশ্বকাপ জয়ী ভারত অধিনায়ক বলেন, 'শুরুতে স্কুল টিমে গোলকিপার হিসেবে খেলতাম। কিন্তু ক্রিকেট টিমে উইকেটকিপার খোঁজা শুরু হলে খেলা বদল করে নিই। উচ্চতা তখন খাটো থাকায় আমার জায়গা হয়ে যায় উইকেটের পেছনে। তখন ক্লাস ফাইভে পড়ি। তখন আমার প্রিয় বিষয় ছিল অংক। পরে অবশ্য সেই বিষয়ে পিছিয়ে পড়েছিলাম।

'

চতুর্থ শ্রেণির এই স্কুলছাত্রীকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে ধোনি আরো বলেন, 'সততা ও পরিস্থিতি আগাম বুঝে নেওয়ার ক্ষমতাই আমাকে সাফল্য দিয়েছে। '

'২০১১ সালে বিশ্বকাপ জয় জীবনের সেরা মুহূর্ত। তবে সে দিন ছক্কা মেরে যে ম্যাচ জিতে ফিরব তা আগাম পরিকল্পনা ছিল না। '

শুধু ক্রিকেট নয় খুদে সাংবাদিকের কাছে নিজের ব্যক্তিগত কথাও বলেছেন ধোনি। তার কথায়, 'আমার মেয়ে জিভা এখন খুব দুষ্টু হয়েছে। তবে যখন আরো ছোট ছিল, তখন কিন্তু রাতে কোনো সমস্যা করত না। '

একই সঙ্গে শিশু দিবসে তার বার্তাও দিয়েছেন ধোনি। যেখানে তিনি বলেন, 'শৈশবে শেখা বিষয় আমাদের জীবন তৈরি করে। এই সময় পড়াশোনা এবং খেলাধুলা দুটোকেই সমান তালে চালিয়ে যাওয়া উচিত। একই সঙ্গে এই বয়সে মূল্যবোধের শিক্ষাও মেনে চলা বেশ জরুরি। '

সাক্ষাৎকারের শেষ পর্বে এসে শিবাঙ্গিনী ধোনির কাছে জানতে চেয়েছিল, স্কুলে যদি কোনো বন্ধু উত্ত্যক্ত করে তা হলে কী করা উচিত? জবাবে ধোনির পরামর্শ, 'এই ধরনের পরিস্থিতিতে পড়লে সবার আগে বাড়িতে বাবা-মাকে জানাও। তারা যদি ভয় পেয়ে যান। তা হলে ক্লাসে শিক্ষক-শিক্ষিকাকে জানাবে। তবে মনে রাখবে, জীবন মসৃণ নয়। তাই ছোট থেকেই সবরকম পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য নিজেকে তৈরি রাখতে হবে। '


মন্তব্য