kalerkantho


'আমি থাকলে ১০০ রানেই প্রোটিয়াদের শেষ করে দিতাম'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৬:৪৪



'আমি থাকলে ১০০ রানেই প্রোটিয়াদের শেষ করে দিতাম'

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ক্রিকেটে ফেরার জন্য কতই না চেষ্টা করে যাচ্ছেন ভারতের জাতীয় দলের সাবেক এই পেসার। কিন্তু বিসিসিআই যেন পণ করে বসেছে, শ্রীশান্তকে কোনোভাবেই ক্রিকেটে ফেরানো যাবে না। শুক্রবার কেপটাউনে ভুবনেশ্বর কুমারের ধ্বংসলীলা দেখেছেন টিভির সামনে বসে। এই তরুণ পেসারের দাপটে ২৮৬ রানেই অল-আউট দক্ষিণ আফ্রিকা। শ্রীশান্ত বললেন, তিনি থাকলে নাকি ১০০ রানের মাঝেই গুটিয়ে দিতেন প্রোটিয়াদের!

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে এখন পর্যন্ত ভারত যে দুটি টেস্টে জয় পেয়েছে তার একটির নায়ক শ্রীশান্ত। ২০০৬-০৭ সেশনে জোহানেসবার্গ টেস্টে এই শ্রীশান্তের দাপটেই ৮৪ রানে অল-আউট হয়ে গিয়েছিল প্রোটিয়ারা। প্রথম ইনিংসে শ্রীশান্তের ৪০ রানে ৫ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৯ রানে ৩। সেই শ্রীশান্তই এখন ভারতীয় ক্রিকেটে ব্রাত্য।

স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্গারির অভিযোগ থেকে আদালতে নির্দোষ প্রমাণিত হলেও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কাছে এখনও তিনি নির্বাসিত। ক্রিকেট থেকে অনেক দূরের মানুষ তিনি। সেই জন্যই বোধহয় একটু অভিমান আছে। শুক্রবার ভুবনেশ্বরকে নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটাঙ্গণ যখন মাতোয়ারা, তখন তার নামটাও ফিরে ফিরে আসছিল। স্বাভাবিকভাবেই সংবাদমাধ্যম শ্রীশান্তের প্রতিক্রিয়া জানার জন্য ছুটল।

শ্রীশান্ত অনেকটা ভাবলেশহীন হয়েই বললেন, 'আমাকে আর আমি যা করেছি, সেই ক্ষমতা মনে রাখার জন্য ধন্যবাদ।'

অবশ্য এখনই নিজের সঙ্গে ভুবনেশ্বরের তুলনা টানতে নারাজ শ্রীশান্ত। তিনি বলেছেন, 'এখনও আমার সঙ্গে তুলনা করছি না। ভুবনেশ্বরকে আরও শিখতে হবে। আশা করছি, ওই কন্ডিশনে কী কী করা উচিত, ভুবি সেটা খুব তাড়াতাড়ি রন্ত করে ফেলবে।'

২৭ টেস্টে ৮৭ উইকেটের মালিক শ্রীশান্ত আরও বলেছেন, 'নতুন বলে ভারতীয় বোলাররা খুব ভালো শুরু করেছে। তারপর সেটাকে টেনে গেছে। এটার জন্য কৃতিত্ব তো দিতেই হবে। ব্যক্তিগত ভাবে আমি মনে করি, ওদের ১০০ রানের কমে শেষ করে ফেলা উচিত ছিল। অন্তত আমি থাকলে এমনই করতাম।'

পেস অ্যাটাকে ইশান্ত শর্মাকে না দেখে একটু অবাকই হয়েছেন কেরালার পেসার। বললেন, 'আমার মনে হয়, ভারতীয় বোলিং জাহির ভাই বা ইশান্তের মতো অভিজ্ঞদের মিস করেছে। ইশান্ত যখন স্কোয়াডে ছিল, ওকে অবশ্যই একাদশে রাখা উচিত ছিল। ইশান্ত এ ধরনের ট্র্যাকে দুর্দান্ত উপযোগী হত।'


মন্তব্য