kalerkantho


ভারতের সিকে নাইডু ট্রফি

ম্যাচ না খেলেও টি-২০ দলে সাংসদ পুত্র, রিজার্ভ বেঞ্চে টপ স্কোরার!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৪:৪১



ম্যাচ না খেলেও টি-২০ দলে সাংসদ পুত্র, রিজার্ভ বেঞ্চে টপ স্কোরার!

পাপ্পু যাদব (বামে) এবং তার ক্রিকেটার ছেলে সার্থক রঞ্জন

চলতি সিজনে একটি ম্যাচ না খেলেও সিকে নাইডু ট্রফির জন্যে দিল্লির টি-২০ দলে জায়গা করে নিলেন বিহারের বিতর্কিত সাংসদ পাপ্পু যাদবের ছেলে সার্থক রঞ্জন। অথচ রিজার্ভ বেঞ্চে বসানো হয়েছে অনূর্ধ্ব-২৩ এর টপ স্কোরার হিতেন দাললকে।

আরো পড়ুন: অস্ট্রেলিয়া টি২০ দলের সহকারী কোচ পন্টিং

আরজেডি'র প্রাক্তন বিতর্কিত নেতা পাপ্পু যাদবের অফিসিয়াল নাম রাজেশ রঞ্জন। বর্তমানে নিজের আলাদা দল জন অধিকার পার্টি চালাচ্ছেন। তিনি বিহারের মাধেপুরার সাংসদ। যদিও তার স্ত্রী সুপাউলের কংগ্রেস সাংসদ। তাদেরই ছেলের টি-২০ দলে নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক বেঁধেছে। বেশ কয়েকজন ভালো পারফর্মারকে দলের বাইরে রেখে প্রভাবশালী ব্যক্তির ছেলেকে কোনো কারণ ছাড়াই দলে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য অভিযোগের আঙুল উঠেছে নির্বাচক কমিটির তিন সদস্য অতুল ওয়াসান, হরি গিদওয়ানি ও রবিন সিং জুনিয়রের বিরুদ্ধে।

গত মুস্তার আলি ক্যাম্পেনের সময়ও দিল্লির দলে অযাচিতভাবে জায়গা পান সার্থক। সেখানে তিনটি ম্যাচে তার স্কোর ছিল যথাক্রমে ৫, ৩ ও ২। মৌসুমের শুরুতে রঞ্জি ট্রফির সম্ভাব্য তালিকায় জায়গা পাওয়ার পরও নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন পাপ্পু যাদবের ছেলে। বিভিন্ন জায়গায় খবর রটে যে, খেলাধুলা থেকে তিনি উত্‍‌সাহ হারিয়েছেন। এবার তিনি মিস্টার ইন্ডিয়া প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য শরীরচর্চায় মন দিয়েছেন। মৌসুমের শেষের দিকে হঠাত্‍‌ একদিন সার্থকের মা রঞ্জিত রঞ্জন ডিডিসিএ  প্রশাসক অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি বিক্রমজিত্‍‌ সেনকে ইমেল করে জানান, তার ছেলে হতাশায় ভুগছিলেন। বর্তমানে তিনি খেলার জন্য সম্পূর্ণ ফিট। প্রটোকল অনুযায়ী এই বিষয়টি তার হাতে না-থাকায় ইমেলটি নির্বাচকমণ্ডলীর কাছে পাঠিয়ে দেন প্রশাসক।

আরো পড়ুন: বাজার মূল্যে সবাইকে ছাড়িয়ে নেইমার

এরপরই আচমকা সিকে নাইডু ট্রফির জন্য দিল্লির অনূর্ধ্ব-২৩ দলের স্ট্যান্ড-বাই তালিকাভুক্ত হন সার্থক। নির্বাচক ওয়াসানের যুক্তি, সার্থকের কিছু মানসিক সমস্যা হয়েছিল। যখন ও জানাল ফিট আছে, তখন আমি ব্যক্তিগতভাবে ওকে নজরে রেখেছি।

সিকে নাইডু ট্রফিতে একটি সেঞ্চুরিসহ ৪৬৮ রান রয়েছে দালালের। তার গড় ৫২। স্ট্রাইক রেট ৯১.৫৮। তা সত্ত্বেও তাকে স্ট্যান্ড বাই তালিকায় রাখা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে। 
সূত্র : এই সময় 


মন্তব্য