kalerkantho


বিশ্বকাপ কর্নার

১৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বকাপ কর্নার

এমবাপ্পের চোট

অনুশীলনে চোট পেয়েছেন ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে। বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগমুহূর্তে, দলীয় অনুশীলনের সময় গোড়ালিতে আঘাত পান পিএসজিতে খেলা এই ফরোয়ার্ড। সতীর্থ আদিল রামির ট্যাকলে গোড়ালিতে চোট পাওয়ার পর অনুশীলন থেকে খোঁড়াতে খোঁড়াতে মাঠ ছাড়েন এমবাপ্পে। এখনো তাঁর চোটের ব্যাপারে পূর্ণাঙ্গ ডাক্তারি প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি। তবে বিশ্বকাপ শুরুর আগমুহূর্তে এমবাপ্পের চোট নিশ্চয়ই চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে কোচ দিদিয়ের দেশমের কপালে। মেইল অনলাইন

 

সাইকেলে চেপে রাশিয়া

রাশিয়া বিশ্বকাপে নেই ইংল্যান্ডের কোনো রেফারি। এফএ চেষ্টা করেও পারেনি কারো নাম অন্তর্ভুক্ত করতে। তার পরও দুজন ইংলিশ রেফারিকে নিয়ে ব্যাপক আগ্রহ রাশিয়াজুড়ে। ৩৪৯টি প্রিমিয়ার লিগ ম্যাচে দায়িত্ব পালন করা মার্টিন অ্যাটকিনসন ইংল্যান্ডের আরেক রেফারি জন মোসকে নিয়ে সাইকেলে চেপে আসছেন বিশ্বকাপের দেশে। শখে নয়, মহৎ কাজে। একটি চ্যারিটির জন্য ৬০ হাজার পাউন্ড তুলতে এক হাজার ৭০০ মাইল পাড়ি দেবেন তাঁরা। সেইন্ট জর্জ পার্ক থেকে সাইকেল চালিয়ে যাত্রাও শুরু করেছেন দুজন। ফ্রান্স, বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস, জার্মানি, পোল্যান্ড হয়ে রাশিয়ায় পৌঁছতে লেগে যেতে পারে ১৮ দিন। ক্যালিনগ্রাদ স্টেডিয়ামে তাঁদের যাত্রা শেষের সম্ভাব্য দিনে ইংল্যান্ড এই ভেন্যুতে খেলবে বেলজিয়ামের বিপক্ষে। এরই মধ্যে ৫২ হাজার পাউন্ড তুলে ফেলা অ্যাটকিনসন রোমাঞ্চিত পুরো ব্যাপারটা নিয়ে, ‘এর আগে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ২০টি ক্লাবের স্টেডিয়াম পর্যন্ত এক হাজার মাইল সাইকেলে পাড়ি দিয়েছি। এবারের চ্যালেঞ্জটা আরো বড়। সাইকেলে থাকতে হবে ১৮ দিন। তবে উদ্দেশ্যটা মহৎ বলে সহ্য করব কষ্টটা!’ বিবিসি

 

অবসরে সিনেমা

শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে মন ভরাতে পারেনি ফ্রান্স। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ১-১ সমতায় মাঠ ছেড়েছে কোনো রকমে। বিশ্বকাপের আগে অশনিসংকেত নিশ্চয়ই। খেলোয়াড়দের সেই দুশ্চিন্তা থেকে বের করতে অভিনব আয়োজন করেছেন দিদিয়ের দেশম। বকাঝকা না করে আন্তোয়ান গ্রিয়েজমান, উসমান দেম্বেলে, পল পগবাদের জন্য সিনেমা দেখানোর আয়োজন করেছিলেন তিনি। টিম হোটেলেই দেখানো হয়েছে এই সিনেমা। শৃঙ্খলা ছিল সেখানেও। খেলোয়াড়দের সবার হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয় একটি বালিশ। আর বালিশের গায়ে ছিল সবার জার্সি নম্বর। যেমন গ্রিয়েজমানের হাতে তাঁর জার্সি নম্বর ৭ আর কিলিয়ান এমবাপ্পের ১০। দেখা যাক, দেশমের এ কৌশল চাঙ্গা করে কি না ফরাসিদের। সবশেষ ১৯৯৮ সালে বিশ্বকাপ জিতেছিল তারা। সেই দলেরই দিদিয়ের দেশম এখন জাতীয় দলের কোচ। তাঁর হাত ধরে গত ইউরোর ফাইনালে পৌঁছেছিল ফ্রান্স। কিন্তু শিরোপা জেতা হয়নি পর্তুগালের কাছে হেরে। বিশ্বকাপ জিতেই হতাশাটা মিটবে কি ফ্রান্সের? ডেইলি মেইল


মন্তব্য