kalerkantho


যে কারণে ভ্রমণ শেষে ভর করে বিষণ্নতা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৬:৩৫



যে কারণে ভ্রমণ শেষে ভর করে বিষণ্নতা

আপনি হয়তো সম্প্রতি দারুণ ভ্রমণ শেষে বাড়ি ফিরেছেন। ঝকঝকে রৌদ্রজ্জ্বল দিন আর ঝিরঝিরে হাওয়ার পরশ এখনও চোখে-মুখে লেগে রয়েছে।

অনাবিল শান্তি নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন নিশ্চয়ই। যাবতীয় কাজ-কর্ম থেকে দূরে ছিলেন কিছু দিন। প্রাণশক্তি সঞ্চয় করে আবারো যখন কাজে যোগ দেবেন, তখনই এক ধরনের বিষণ্নতা ভর করবে আপনার ওপর। যদি মনে হয়, আসলেই তাই ঘটছে তবে আপনি এ দলে একা নন।  

ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট ড. জোশ ক্লাপো জানান, ভ্রমণ ও ছুটি শেষে আবারো আগের জীবনে ফিরে আসার পর এক ধরনের বিষণ্নতা ভর করা অস্বাভাবিক কিছু নয়। আগের গতিশীল জীবনে ফিরে আসা, বিপুল পরিমাণ কাজ জমা পড়ে থাকা এবং বেড়ে যাওয়া দায়িত্ব সামলাতে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। সেই ঝামেলাবিহীন স্বাধীন সময় কাটিয়ে এসে হঠাৎ আগের যান্ত্রিক অবস্থার মধ্যে পড়ায় অবসাদ ভর করে। তাই ভ্রমণকারীদের মধ্যে এমন দেখা যায়।  

এর আরেকটা কারণ আছে বলে মনে করেন মনোবিজ্ঞানীরা।

তা হলো, নিয়মিত ছুটি বা ভ্রমণে না গেলে বিষয়টি ঘটে থাকে। নিয়মিত না গেলে ভ্রমণ এবং সেখান থেকে ফিরে গতানুগতিক জীবনে ফিরে আসায় অভ্যাস গড়ে ওঠে না। ভ্রমণ বা ছুটি কাটিয়ে ব্যস্ত জীবনে প্রবেশের মধ্যেও কিছু কৌশল রয়েছে। অধিকাংশ মানুষই তার ব্যস্ত জীবন ফেলে নিয়মতি ঘুরতে যান না। বড় ধরনের ছুটিও তারা ঘরে বসেই কাটিয়ে দেন। ফলে দূরে কোথাও হারিয়ে যাওয়ার যে অবর্ণনীয় আনন্দ, তা উপভোগ করতে পারেন না। ঘরে বসে ছুটি কাটালে দৈনন্দিন ব্যস্ত জীবনের সঙ্গে তেমন কোনো পার্থক্য বোঝা যায় না।  

ভ্রমণ থেকে ফিরে নতুন করে যে স্ট্রেস দেখা দেয়, তা সামলাতে ফিরে এসে আবারও কিছু ছুটি নিতে চান অনেকে। আর এ কারণেই ভবিষ্যতে আবারও ভ্রমণে যেতে নিরুৎসাহিত হয় মানুষ। আসলে ভ্রমণে গিয়ে সময়টা উপভোগ করারও কিছু নিয়ম আছে। ভ্রমণ ঠিকঠাকমতো করলে স্ট্রেস কমে আসে। দেহে আবারও সতেজতা ফিরে আসে। মনটা উৎফুল্ল হয়ে ওঠে। প্রাণশক্তিতে ভরপুর হয়ে আবারো কাজে ফেরা সম্ভব।  

ফিরে এসে যেন ব্যাপক কাজের চাপে পড়তে না হয় সে জন্যে আগে থেকেই প্রস্তুতি নিন। ভ্রমণে যাওয়র কয়েক দিন আগে থেকেই জরুরি কাজগুলো শেষ করে ফেলুন। ছুটি শেষের দুই-একটি কাজও শেষ করে ফেলতে পারেন। তাই বেরিয়ে যাওয়ার আগে অবশ্যই চাপপূর্ণ কাজগুলো শেষ করে ফেলুন। নইলে ভ্রমণটা নিরস লাগবে।  
সূত্র : ইন্ডিয়া টাইমস 


মন্তব্য