kalerkantho


ভ্রমণে যদি মেলে জ্যাজ মিউজিকের স্বাদ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২০:৪৯



ভ্রমণে যদি মেলে জ্যাজ মিউজিকের স্বাদ

এমনি প্রাণবন্ত আয়োজনের অংশ হতে পারবেন

ভ্রমণ এমনিতেই আনন্দদায়ক। একাকী চুপচাপ ঘুরতে গেলেও সময়টা অসাধারণ বয়ে যায়।

আর তার সঙ্গে যদি যোগ হয় ওই স্থানের বিশেষ কোনো উৎসবের আমেজ, তাহলে তো কথাই নেই। যদি পাশের দেশ ভারতে বেড়াতে যাওয়ার পরিকল্পনা হাতে নেন, তবে তাদের জ্যাজ ফেস্টিভ্যালের কথা মাথায় রেখে দিনক্ষণ ঠিক করতে পারেন।  

শীতের মৌসুমেই আয়োজিত হতে চলেছে সপ্তম দিল্লি ইন্টারন্যাশনাল জ্যাজ ফেস্টিভ্যাল। রাজধানীতে শীতল পরিবেশ উষ্ণতা বিলানো সঙ্গীতের আয়োজন ভ্রমণে বিচিত্র অভিজ্ঞতা এনে দেবে বৈকি। এমনিতেই দিল্লিতে গেলে সুন্দর সুন্দর স্থানগুলো দেখতে তো যাবেনই। সবাই তাই করেন। কিন্তু আপনি যদি একটা জ্যাজ ফেস্টিভ্যাল নিজ চোখে দেখে আসতে পারেন, তো বাড়তি মজা মিলবে নিশ্চিত।  

আসলে জ্যাজের সংস্কৃতি ভারতের চিরাচরিত সংস্কৃতিতে খুব বেশি বছর গড়ায়নি প্রবেশ করেছে। কিন্তু যারা এই সঙ্গীত বোঝেন এবং ভালোবাসেন, তাদের সংখ্যা নেহাত কম নয়।

আর তাদের উপভোগ্য সময়টাকে উস্কে দিতেই এই আয়োজন। শুধু জ্যাজের ভক্তরাই নয়, সব স্তরের মানুষ ছুটে আসেন এখানে। এক বিশাল মিলনমেলায় পরিণত হয় এই মেলা।  

চানাকায়াপুরীর নেহেরু পার্কের সবুজ ঘাসের মাঠটাকে এবারের ভেন্যু হিসাবে বেছে নেওয়া হয়েছে। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচার রিলেশন্স, আয়োজন এবং সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন যে, এ মাসের ২৩ তারিখ থেকে শুরু হবে অনুষ্ঠান। শেষ হবে ২৫ তারিখে। এবারের লাইনআপ সম্পর্কে এখনও কিছু জানানো হয়নি। কিন্তু অতীতের বিচারে এক জাঁকজমকপূর্ণ শো আশা করছেন সবাই।  

তাই সময়টা আপনিই ঠিক করে নিতে পারেন। কবে যাবেন, কোথায় ঘুরবেন তা আপনার একান্ত পরিকল্পনার বিষয়। কিন্তু জ্যাজ মেলাকে মাথায় রেখে যদি ভ্রমণ করেন, তবে একদিন হলেও সেখানে ঢুঁ মারবেন। এবারের ভ্রমণ যে স্মৃতিতে শক্তপোক্তভাবে গেঁথে যাবে, সে বিষয়ে গ্যারান্টি দেওয়া যেতে পারে।  

এই এক মেলা কিন্তু ওখানে বিশ্বের বহু জাতি-ধর্ম-বর্ণের মানুষকে এক স্থানে আনে। আপনি যেমন ভ্রমণের মেজাজে ওখানে যেতে পারবেন, তেমনি অনেক মানুষের সঙ্গে মেশারও সুযোগ পাচ্ছেন। কাজেই বিষয়টি ফেলে দেওয়ার নয়।  
সূত্র : ইন্টারনেট 


মন্তব্য