kalerkantho


ভ্রমণ : দারুণ সব স্থানে কম খরচে থাকা-খাওয়া-ঘোরাঘুরি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ অক্টোবর, ২০১৭ ১৬:১১



ভ্রমণ : দারুণ সব স্থানে কম খরচে থাকা-খাওয়া-ঘোরাঘুরি

বুলগেরিয়ার সোফিয়া শহরের ক্যাথেড্রাল অব সেইন্ট আলেক্সান্দার

নিজেকে শিক্ষিত করতে বা অভিজ্ঞতা অর্জনই নয়, ভ্রমণ আপনার যাবতীয় ক্লান্তি এক নিমিষেই উধাও করে দেয়। পৃথিবীটাকে নতুন করে জানতে শেখায়।

কিন্তু অনেক সময়ই ভ্রমণ খরচবহুল হয়ে ওঠে। তাই সময় ও ইচ্ছা থাকলেও ঘুরতে যাওয়া হয়ে ওঠে না। এখানে বাজেটের মধ্যে ঘোরার কিছু দারুণ স্থানের সন্ধান দিয়েছেন পর্যটকরা।  

সোফিয়া, বুলগেরিয়া 
ভিতোশা পর্বতের একেবারে পাদদেশে সোফিয়া। এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কথা বলে শেষ করা যাবে না। সোফিয়া বলতেই দ্য ক্যাথেড্রাল অব সেইন্ট আলেক্সান্দার নেভস্কাইয়ের কথা চলে আসে। সেখানে হোটেল খরচ সাড়ে ৬০০ টাকার মতো। ঘোরাঘুরি বা খাবারের খচরও বেশি নয়। সবমিলিয়ে প্রতিদিন ২ হাজার টাকার মতো খরচ হবে।

 

বুদাপেস্ট, হাঙ্গেরি 
ইউরোপে ভ্রমণের সেরা স্থান বলে মনে করেন অনেকে। প্রাচীন ভবনের কলাম, ব্রিজের অসাধারণ নির্মাণশৈলি আর শহরের সৌন্দর্যে তার প্রেমে পড়ে যাবেন নিঃসন্দেহে। অথচ এই শহরে একবার গেলে থাকা-খাওয়া আর ঘোরাফেরার ব্যয় খুবই কম। প্রতিদিন মাত্র আড়াই হাজার টাকা খরচ হবে এ শহরে। ঘোরার জন্য রয়েছে দানুবি, হাঙ্গেরিয়ান অপেরা হাউজ, পার্লামেন্ট ভবন আর পুরনো চার্চ, চেইনস ব্রিজ, ফিশারমেনস ব্যাস্টন, সেইন্ট স্টিফেন্স ব্যাসিলিয়া।  

ইস্তানবুল, তুরস্ক 
ইতিহাস, শিল্পকলা আর ক্রিশ্চিয়ান-ইসলামিক সংস্কৃতির মিশ্রণ আপনাকে মুগ্ধ করবে। তুরস্ক এই পৃথিবীর বৈচিত্র্যময় দেশগুলোর একটি। এমনটাই মনে করেন পর্যটকরা। ঘোরার জন্য হাজিয়া সোফিয়া, ব্যাসিলিয়া সিস্টার্ন, গালাটা টাওয়ার, আর্কিওলজিক্যাল মিউজিয়াম, দ্য গ্র্যান্ড বাজারের মতো দেখার অনেক স্থান আছে। কিন্তু এসব কাজের খরচ কিন্তু বেশি না। প্রতিদিন ৩ হাজার থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকার মতো খরচ পড়বে। এর মধ্যেই থাকা, খাওয়া আর  ঘোরাঘুরি দিব্যি হয়ে যাবে।  

বুখারেস্ট, রোমানিয়া 
দৃষ্টিনন্দন কনসার্ট হল আর ভবন নিয়ে প্রাচীন এক শহর বুখারেস্ট। সেখানে গিয়ে আপনি কনসার্ট বা অর্কেস্ট্রা দারুণ উপভোগ করতে পারবেন। সেখানে অনেকগুলো প্রাচীন স্থান রয়েছে যেখানে হেঁটে সময়টা উপভোগ করা যায়। আরো অনেকগুলো প্রাচীন শহর রয়েছে সেখানে। খরচ অনেক কম। সবমিলিয়ে প্রতিদিন আড়াই হাজার টাকার মতো।  
সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস 


মন্তব্য