kalerkantho


ভ্রমণ : এক টুকরো মিশরীয় ভূস্বর্গ 'সাল হাশিশ'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ অক্টোবর, ২০১৭ ১৪:০৪



ভ্রমণ : এক টুকরো মিশরীয় ভূস্বর্গ 'সাল হাশিশ'

চোখের সামনে স্বপ্নের দর্শন

অপূর্ব কোনো স্থান দেখলেই আমরা তাকে ভূস্বর্গ বলি। এদের দেখলে মনে হয়, স্বর্গ যতটা দূরে ভাবা হয়, ততটা দূরে নয়।

বিশেষ করে মিশরের মতো পুরাতত্ত্ব নিদর্শনে ভরপুর একটি দেশে ভূস্বর্গের দেখা মেলাটাই স্বাভাবিক বিষয়। বিশেষ করে এর উপকূপের কাছে এলাকাগুলো দেখলে যেকোনো পর্যটক থমকে যাবেন। অঞ্চলটা যেন এক রিসোর্ট শহর।  

অধিকাংশ ক্ষেত্রে রিসোর্টগুলো সৈকতের আশপাশে গড়ে তোলা হয়। পর্যটকদের অতি স্বল্প খরচে থাকার ব্যবস্থা আছে এখানে। ধরা যেতে পারে হারাগাদার কথা। কিংবা শার্ম এল শেখের কথাই বলতে পারেন। এসব স্থানে কম খরচে থাকা যাবে। অন্যদিকে, এল গোনা, আইন এল সোখনা এবং নর্থ কোস্টে বিলাসী পর্যটনের ব্যবস্থাও আছে।

এসব স্থানে ঠিক যেমন মিশরীয়রা ছুটে যান, তেমনি ব্যাপক পছন্দের পর্যটকদের কাছে।   

এবার জেনে নিন সাল হাশিশ। এখানে পুরো এলাকা গল্ফ কার্ট। এই এলাকাটি যেন সত্যিকার অর্থেই একি ভূস্বর্গ। মাত্র ১৫ মিনিট গল্ফ কার্ট নিয়ে ঘুরলে আপনার ঘোরার শখ পূরণ হয়ে যাবে।  

আরো আছে গুস্তোর সৈকত অসাধারণ এক স্থান। সৈকতে দাঁড়িয়ে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরতে থাকলে আপনার চোখের সামনে অপরূপ সব দৃশ্য ঘোরাফেরা করতে থাকবে। এমনকি সৈকতের সাদা ছাতাগুলোও অসম্ভব সুন্দর দৃশ্য ফুটিয়ে তোলে। দুপুরটা এত ভালো কাটবে যা আগে কখনও কাটেনি। ব্যাপক আয়োজন চলে এসব সৈকতে। একবার গেলে বুঝতে পারবেন মিশরীয়রা কতটা আনন্দ করতে পারে।  

কেবল চোখে দেখার জন্যে সাল হাশিশ যথেষ্ট। দুই চোখ জুড়িয়ে যাবে। সাগরে বিশাল একটা অংশ চোখের সামনে ভেসে রয়েছে যেন। সৈকতে সর্বোচ্চ ব্যবহারের কথা মাথায় রেখেই গোটা প্রজেক্ট বাস্তবায়িত করা হয়েছে।  

বিনোদনের জন্যে অনেক আয়োজন করা হয়েছে। রাস্টিক হর্স ক্লাবের মাধ্যমে দেখতে পারবেন ঘোড়া, বানর এবং উঁটের আস্তাবল। আছে ফুটবল খেলার ব্যবস্থা। সকার অ্যাকাডেমির মাধ্যমে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মানের ম্যাচের ব্যবস্থা করা হয়।  

সাল হাশিশে কয়েকটা দিন থাকার স্মৃতি বাকি জীবন বয়ে বেড়াতে পারবেন। এক অনাবিল প্রশান্তি নিয়ে বাড়ি ফেরেন এখানে যারা আসেন। সূত্র : ঈজিপশিয়ান স্ট্রিট 


মন্তব্য