kalerkantho


কুপ্রস্তাবে না, ধর্ষণের চেষ্টায় কিশোরীর আত্মহত্যা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২১:০৭



কুপ্রস্তাবে না, ধর্ষণের চেষ্টায় কিশোরীর আত্মহত্যা

প্রতীকী ছবি

ধর্ষণের চেষ্টা করায় আত্মহত্যা করল জলপাইগুড়ির এক কিশোরী ছাত্রী। পরিবারের অভিযোগ, স্থানীয় এক যুবক নিয়মিত তাকে উত্যক্ত করত।

সে জন্য লজ্জায়, অপমানে আত্মহত্যা হয়েছে সে। এ ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

কোতোয়ালি থানার পুলিশ সূত্রে খবর, মণ্ডলঘাট গ্রাম পঞ্চায়েতের গোমস্তপাড়ার বাসিন্দা ১৬ বছরের ওই কিশোরীর পরিবার অভিযোগ করেছে, মাসখানেক ধরেই নবম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে উত্যক্ত করত রাহুল সরকার নামে স্থানীয় এক যুবক। স্কুলে যাতায়াতের পথে কুপ্রস্তাবও দিত। বুধবার সকালে ‘সবুজ সাথী’ প্রকল্পের অন্তর্গত সাইকেল নিতে স্কুলে যায় সে। সে সময়ই তাঁকে ফের কুপ্রস্তাব দেয় সে। তাতে রাজি না হওয়ায় কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে রাহুল। ঘটনার পর বাড়ি ফিরে কাঁদতে কাঁদতে ঘটনাটা জানায়।

ওই ছাত্রীর জ্যাঠা শ্যামল সরকার জানিয়েছেন, গত কাল দুপুর ২টা থেকে আড়াইটার দিকে বাড়িতে কেউ ছিল না। সে সময় নিজের ঘরে দরজা বন্ধ করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

শ্যামল বাবুর দাবি, রাহুল যে তাঁদের ঘরের মেয়েকে উত্যক্ত করছে গৃহশিক্ষক চন্দন আনসারি তা আগেই জানিয়েছিলেন। সেই মতো রাহুলকে সতর্কও করা হয়। তবে তাতেও কোনো কাজ হয়নি।

ঘটনার পর গত রাতেই কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ করেছে ওই ছাত্রীর পরিবার। পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল থেকেই গা-ঢাকা দেয় রাহুল। তার খোঁজে এলাকায় তল্লাশি শুরু হয়। বৃহস্পতিবার ভোরে মাটিগাড়ায় এক আত্মীয়ের  বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে রাহুলকে। বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে মিলে এলাকায় মেয়েদের রাহুল প্রায়শই উত্যক্ত করত বলে দাবি পুলিশের। যদিও পুলিশের কাছে রাহুলের দাবি তিন মাস ধরে ওই ছাত্রীর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সূত্র: ইন্টারনেট


মন্তব্য