kalerkantho


প্রেমিকাই খোঁজ দিয়েছিল জঙ্গি নেতা খালিদের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ অক্টোবর, ২০১৭ ২০:৫৬



প্রেমিকাই খোঁজ দিয়েছিল জঙ্গি নেতা খালিদের

বেশি দিন কোনও এক প্রেমিকায় মন টিকত না নিহত জইশ ই মোহম্মদ কম্যান্ডার উমর খালিদের। তাই মাঝে মধ্যেই সঙ্গিনী বদল করত সে।

‘চাহিদা’ মিটে গেল তাদের ছুঁড়ে ফেলতেও বিন্দুমাত্র সময় লাগত  না তার। বার বার এ ভাবে সঙ্গিনী বদলই ‘কাল’ হলো জঙ্গিনেতার। কারণ, সম্পর্ক ছিন্ন করা এক পুরনো প্রেমিকাই খালিদের সব খবর পুলিশ জানায়। সেই খবরের উপর ভিত্তি করেই গত কাল, সোমবার খালিদকে হত্যা করতে সক্ষম হয় ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী। মঙ্গলবার এ কথা টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের এক শীর্ষ অফিসার মুনীর মোহাম্মদ খান।

খালিদের অন্তত ১৭ জন প্রেমিকার কথা জানতে পেয়েছে পুলিশ। সূত্রের খবর, এর মধ্যে বেশ কয়েক জন প্রেমিকার সঙ্গে এখন সম্পর্ক ছিল না তার। আবার কয়েক জনের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করলেও, বর্তমানে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছিল নিহত ওই জঙ্গিনেতা। সোমবার সকালে এমনই এক পুরনো প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে বারামুলার লাদুরা গ্রামে এসেছিল খালিদ।

পুলিশ জানিয়েছে, খালিদের গ্রামে আসার কথা আগে থেকে তাদের জানিয়ে দিয়েছিলেন ওই নারী। আরও অনেক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক এবং আগে একবার বিচ্ছেদের জন্য এ কাজ করেন ওই নারী। পুলিশ জানিয়েছে, খালিদের এমন একাধিক নারী-সঙ্গের জন্য তাকে ‘জাহান্নাম’ বলে ডাকতেন তিনি।

পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্র টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছে, মূলত পাকিস্তান থেকে আসা বহু জঙ্গিই কাশ্মীরে তুলনামূলক ভাবে শিক্ষিত মেয়েদের প্রেমে পড়ে। প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার সময় সাধারণত একাই যায় তারা। আর তখনই তাদের নিশানা করে নিরাপত্তা বাহিনী। এ ভাবেই অগস্টে খতম করা হয় লস্কর ই তৈবা সদস্য আবু দুজানাকে। প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিল সে, তার কথাও পুলিশকে বলে দেয় তার এক প্রাক্তন প্রেমিকা।

 


মন্তব্য