kalerkantho


মমতার কানের তুলো খুলে দেব! সব্যসাচীর চ্যালেঞ্জে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১২:৩০



মমতার কানের তুলো খুলে দেব! সব্যসাচীর চ্যালেঞ্জে

ভরা জনসভায় জনতার হাততালি কুড়োতে গিয়ে কার্যত তৃণমূল দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন বিধাননগরের মেয়র তথা বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত। যে মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি এমন সাহস দেখালেন, তখন সেখানে উপস্থিত রয়েছেন প্রাক্তন পরিবহনমন্ত্রী মদন মিত্রও। বৃহস্পতিবার সল্টলেক করুণাময়ীতে বিদ্যুৎ ভবনের সামনে তৃণমূলের বিদ্যুৎ কর্মীদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া নিয়ে অবস্থান বিক্ষোভ সমাবেশের মঞ্চ থেকে মেয়র সব্যসাচী দত্ত রীতিমতো হুমকির সুরে বলেন, রাজ্য বিদ্যুৎ পর্ষদের চেয়ারম্যান যদি মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কানে তুলো গুঁজে দেন, তাহলে সন্না দিয়ে সেই তুলো খোলার উপায় আমার জানা আছে যা এক কথায় চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া, তা-ও আবার স্বয়ং মমতা বন্দোপাধ্যায়কেই।

একদা মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ সব্যসাচী দত্তের এটা ইচ্ছাকৃত ভুল না অনিচ্ছাকৃত ভুলের নমুনা তা বুঝে উঠতে পারছে না অনেকেই। রাজ্যে বিদ্যুৎ পরিষদের চেয়ারম্যানকে আক্রমণ করতে গিয়ে সব্যসাচীর মতো অভিজ্ঞ রাজনীতিক কীভাবে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নামও টেনে আনলেন, তা নিয়েই ক্ষোভ ছড়িয়েছে দলের মধ্যে। ঘটনার কথা ইতিমধ্যেই পৌঁছে গিয়েছে স্বয়ং দলনেত্রীর কানে। যদিও এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত দলের তরফে প্রকাশ্যে কোনো বিবৃতি দেওয়া হয়নি।

মুকুল রায় দলের মধ্যে কোণঠাসা হবার পর ত্রিপুরার সংগঠনের দায়িত্ব পান সব্যসাচী দত্ত। গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাও পালন করেছেন দায়িত্ব পাওয়ার পর। দলে সব্যসাচী বিরোধী শিবিরের দাবি, মুকুল রায়ের সঙ্গে নাকি সব্যসাচী দত্তের গোপন আঁতাত রয়েছে। ফলে এ ধরনের মন্তব্য করে সব্যসাচী নিজের বিপদ নিজেই বাড়ালেন কি না, তাই নিয়েই তৃণমূলে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা।  

 


মন্তব্য