kalerkantho


রোগী নিয়ে তেলেসমাতি

বাংলাদেশের সাথে কণ্ঠ মেলাল বম্বে হাইকোর্ট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৬:০১



বাংলাদেশের সাথে কণ্ঠ মেলাল বম্বে হাইকোর্ট

প্রায়ই বিভিন্ন হাসপাতালে দেখা যায় রোগী সুস্থ হয়ে যাওয়ার পরও সম্পূর্ণ টাকা আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁকে ছাড়তে রাজি হয় না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার এই ব্যবহারের তীব্র নিন্দা করে বম্বে হাইকোর্ট রায় দেন, বিল আদায়ের জন্যে রোগীকে আটকে রাখা সম্পূর্ণ বেআইনি। আদালতের বক্তব্য, প্রত্যেক নাগরিককে এই আইন সম্পর্কে সচেতন করা উচিত।

বিচারপতি এস সি ধর্মাধিকারি এবং ভারতী দাংরে-এর ডিভিশন বেঞ্চ মহারাষ্ট্র সরকারের স্বাস্থ্য দপ্তরকে নির্দেশ দিয়েছেন, তাদের ওয়েবসাইটে রোগীদের আইনি অধিকার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানাতে। সেই অধিকার যদি কোনো হাসপাতাল মানতে আপত্তি জানায় তাহলে কী কী শাস্তি হতে পারে তা-ও জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে হাসপাতালগুলোর জন্যে নির্দিষ্ট কোনো নিয়ন্ত্রক আদেশ জারি করেননি আদালত। জানিয়েছেন এই কাজ সরকারের।

আরো পড়ুন : রোগী জিম্মি করে টাকা আদায়

আদালতের মত, সরকারের এমন কোনো পন্থা নেওয়া উচিত যাতে রোগী এবং তাঁদের পরিবারের স্বার্থ সুরক্ষিত রাখা যায়। বেঞ্চ জানায়, টাকা আদায়ের জন্যে হাসপাতাল পরে আইনের সাহায্য নিতেই পারে।

সর্বসম্প্রতি বাংলাদেশের উচ্চ আদালতও এমনই একটা যুগান্তকারী রায় প্রদান করেন। ওই রায়ে বলা হয়, হাসপাতাল বা ক্লিনিকে চিকিৎসার বিল আদায়ের উদ্দেশ্যে রোগীর লাশ আটকে রাখার মতো অমানবিকতা করা যাবে না। ওই রায়ে বিষয়টি অবহিত করে সব ক্লিনিক ও হাসপাতালের প্রতি সার্কুলার জারি করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়। চিকিৎসাপেশায় সুমতি কামনা করে গত ১৯ নভেম্বর একটি রুলের নিষ্পত্তি করে বাংলাদেশ হাইকোর্টের বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই রায় প্রদান করেন।

সেই সঙ্গে ওই রায়ে দুঃস্থ ও অসহায় রোগীদের অপরিশোধিত বিল পরিশোধের জন্য বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসচিব ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে তহবিল গঠনের নির্দেশনাও প্রদান করা হয়। 



মন্তব্য