kalerkantho


ভারত-ইসরায়েল ৯টি চুক্তি স্বাক্ষর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৭:০৯



ভারত-ইসরায়েল ৯টি চুক্তি স্বাক্ষর

ভারত স্বাধীন হওয়ার পর গত সাত দশকে কোনো রাষ্ট্রপ্রধান সেদেশ থেকে ইসরায়েল সফরে যাননি। সেই প্রথার অবসান ঘটিয়ে ইতিহাস তৈরি করে গত জুলাইয়ে ইসরায়েল সফরে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তখন থেকেই নিবিড় বন্ধুত্ব মোদি ও ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর। সেই সম্পর্ক কতটা গভীর তার প্রমাণ ফের একবার দিলেন দুই রাষ্ট্রনেতা।

রবিবার ভারতে আসেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। তার পরদিনই আজ সোমবার নয়টি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ভারত-ইসরায়েল। প্রতিরক্ষা, বিজ্ঞান, চিকিৎসা সহ একাধিক ক্ষেত্রে সহযোগিতার চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। আর এই প্রেক্ষিতে সাংবাদিক সম্মেলন করতে গিয়ে মোদি-নেতানিয়াহু দুজনের পারস্পরিক সম্পর্ক যেন কূটনীতিকে ছাপিয়ে গিয়েছে বারেবারে।

এদিন প্রথমে নরেন্দ্র মোদি বক্তব্য রাখতে গিয়ে নেতানিয়াহু-কে ‘আমার বন্ধু বিবি’ (বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু) বলে সম্বোধন করেন। নেতানিয়াহু আসায়, তিনি সম্মানিত বোধ করছেন বলেও জানান। ঘটনা হল নেতানিয়াহুকে যে বিবি নামে ডাকা হয় তা ভারতে এতদিন খুব বেশি মানুষ জানতেন না। এদিন মোদি বুঝিয়ে দিলেন, তিনি বিবি-র কতটা কাছের মানুষ।

আরও পড়ুন: ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী আসায় কেন এত উচ্ছ্বসিত ভারতের প্রধানমন্ত্রী!

পাল্টা নেতানিয়াহু-ও মোদিকে ভারতের সংগ্রামী নেতা বলে উল্লেখ করেছেন। ভারত-ইসরায়েল সম্পর্ককে অন্য মাত্রায় নিয়ে গিয়েছেন। মোদির ইসরায়েল সফরের আগে ভারত থেকে অন্য কেউ সেদেশে যাননি বলেও উল্লেখ করেছেন নেতানিয়াহু।

নেতানিয়াহু বলেন, ভারতে বসবাসকারী ইহুদীদের কখনো বিদ্বেষের শিকার হতে হয়নি। ভারতের সহনশীলতা ধর্মের এ এক অনন্য উদাহরণ। গণতন্ত্র রয়েছে তার সবচেয়ে বড় উদাহরণ ভারত।

সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতেও মুখ খোলেন নেতানিয়াহু। বলেছেন, ভারত ও ইসরায়েল সন্ত্রাসবাদী হামলা সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। আমরা হাল ছাড়িনি। সবশেষে মোদিকে উদ্দেশ্য করে নেতানিয়াহু বলেন, ‘আমার বন্ধু নরেন্দ্র, যখনই তুমি যোগা ক্লাস করতে চাইবে, আমি সবসময় থাকব।’ সবমিলিয়ে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বাইরে নতুন মৈত্রীর উদাহরণ তৈরি করলেন মোদি-নেতানিয়াহু।

আরও পড়ুন: নেতানিয়াহুর ভারত সফরের এজেন্ডা : প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য ও বলিউড


মন্তব্য