kalerkantho


যুক্তরাষ্ট্রে বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভ, আন্দোলনে ফুঁসছে ফ্রান্স ও স্পেন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ১৮:১৫



যুক্তরাষ্ট্রে বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভ, আন্দোলনে ফুঁসছে ফ্রান্স ও স্পেন

নানা দাবিতে উত্তাল পশ্চিমা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত। যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ায় স্টারবাকসের কফি শপে দুই কৃষ্ণাঙ্গকে লাঞ্ছিত ও পরে আটকের প্রতিবাদে রবিবার বিক্ষোভ করেছে দেশটির বর্ণবাদ বিরোধী কর্মীসহ কয়েক শো মার্কিন।

এদিকে, স্বাধীনতাকামী কাতালান রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ হয়েছে স্পেনের বার্সেলোনায়।

একইদিন, সরকারি চাকরিতে অবসর ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন স্পেনের কয়েক হাজার চাকুরিজীবী। আর বিমান বন্দর নির্মাণ বন্ধের দাবিতে প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে ফ্রান্সেও।

যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় কফি চেইন শপ স্টারবাকসে দুই কৃষ্ণাঙ্গকে লাঞ্ছনা ও পরবর্তিতে পুলিশের আটকের ভিডিওটি সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। এরপর বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগে স্টারবাকসের বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় ওঠে। বর্ণবৈষম্যের অভিযোগ এনে রবিবার ফিলাডেলফিয়ায় স্টারবাকসের সামনে বিক্ষোভ করেন কমিউনিটি কর্মীসহ কয়েক শো মার্কিন। আটক কৃষ্ণাঙ্গদের মুক্তিসহ ঐ ঘটনার সঙ্গে জড়িত লাঞ্ছনাকারী কর্মকর্তা ও পুলিশের বহিষ্কার দাবি করেন তারা।

আন্দোলনকারীর একজন বলেন, আমি জানি এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। তবুও বর্ণবাদের মতো এমন ঘটনা কারোরই কাম্য নয়। স্ট্রারবাকসের ম্যানেজারের পাশাপাশি জড়িত পুলিশ কর্মকর্তাদেরও বহিষ্কার করতে হবে।

বিক্ষোভকারীদের তোপের মুখে দুই কৃষ্ণাঙ্গ লাঞ্ছনার ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছেন স্ট্রারবাকসের প্রধান নির্বাহী কেভিন জনসন। ঐ ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তের আশ্বাস দিয়ে স্টারবাকসের মুখপাত্রের বরাতে জানানো হয়, লাঞ্ছনার শিকার দুই জনের কাছে সরাসরি ক্ষমা চাইতেও প্রস্তুত আছেন তিনি।

স্পেনের স্বাধীনতাকামী কাতালান রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তির দাবিতে বার্সেলোনায় বিক্ষোভ করেছে কয়েক শো কাতালান সমর্থক। প্রতিবাদ সভায়, গণতন্ত্র ও একতার স্বার্থে রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তির দাবি জানান বিক্ষোভকারীরা। কাতালান নেতাদের সমর্থনে মায়ের সঙ্গে বিক্ষোভে অংশ নেন ৪০ বছর বয়সী এক বিক্ষোভকারী। এ সময়, স্বাধীনতার জন্য লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তারা।

তাদের একজন বলেন, কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবিতে আজ আমরা আবার একত্রিত হয়েছি। এমনকি বিক্ষোভ কর্মসূচিতে আমি আমার মাকে বাসা থেকে নিয়ে এসেছি। কারণ আমরা সবাই এক না হলে আমাদের দাবি তারা বুঝতে পারবেনা। আমাদের অনেক নেতা এখনো কারাগারে রয়েছেন, তাদের মুক্তি না দেয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব।

অবসরভাতা বৃদ্ধির দাবিতে রবিবার স্পেনের মাদ্রিদে বিক্ষোভ করেছেন কয়েক হাজার অবসরে যাওয়া চাকরিজীবী। এ সময় বিক্ষোভকারীরা সরকার বিরোধী বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে দুর্নীতি বন্ধ করে অবসর ভাতা বৃদ্ধির দাবি জানান। একইসঙ্গে, দেশটির প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাজোই এর পদত্যাগ দাবি করেন বিক্ষোভকারীরা।

তারা বলেন, আমার অবস্থা এখন এতটাই খারাপ যে কোন কিছুকে আমি আর ভয় করিনা। বাসায় আমার স্ত্রীর কাটা পা নিয়ে অসুস্থ্য অবস্থায় আছে, বাসার কাজের মেয়েকে প্রতি মাস টাকা দিতে হয়। ফ্রাঙ্কোর স্বৈরশাসন আমলে আমাকে ত্রিশ মাস জেল খাটতে হয়েছে, এর কোন বিচার পাইনি। মনে হচ্ছে এখনো আমরা স্বৈরশাসকের অধীনেই রয়েছি।

ফ্রান্সে বিমানবন্দর নির্মাণ বন্ধের দাবিতে পরিবেশবাদীদের সহিংস আন্দোলনের এক সপ্তাহ পর পুলিশের সামনেই নেচে গেয়ে ভিন্নধর্মী প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছে পশ্চিমাঞ্চলীয় নন্তেবাসী।

পরিবেশকর্মীরা জানান, গত সপ্তাহে পুলিশের ছোঁড়া গ্রেনেডে তাদের অনেক সহকর্মী আহত হয়েছেন। তারই প্রতিবাদে তারা দাঙ্গা পুলিশের সামনে ভিন্ন এ প্রতিবাদে অংশ নিয়েছেন। তবে পুলিশের দাবি সোমবার থেকে এ পর্যন্ত আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে পুলিশের ৫৮ জন সদস্য আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ১৮ জনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানায় পুলিশ।


মন্তব্য