kalerkantho

বিশ্ববিদ্যালয়-মেডিক্যালে ভর্তীচ্ছুদের বন্ধু

সমান্তর ধারা

আসাদুজ্জামান দারা, ফেনী   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সমান্তর ধারা

শুধু ভর্তি সংক্রান্ত তথ্য দিয়ে সহায়তা নয়। শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও পাঠচক্রের আয়োজন করে সমান্তর ধারা। সম্প্রতি আয়োজিত প্রতিযোগিতায় বিজীয়দের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিক্যাল কলেজ ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়সহ নানা উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তীচ্ছু ফেনীর শিক্ষার্থীদের সহায়তা দিচ্ছে ‘সমান্তর ধারা’। নতুন সংগঠনটি ইতোমধ্যে তরুণ শিক্ষার্থীদের মাঝে সাড়া ফেলেছে। এরা একদিকে অনলাইনে নানারকম প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সহায়তা করছে। আবার দক্ষতা ও সাহস বাড়াতে পাঠচক্রসহ নানা কর্মসূচিও পালন করছে। দেশের বিভিন্ন খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিক্যালের শিক্ষার্থীদের মধ্যে যাঁরা ফেনীর সন্তান-এই ‘সমান্তর ধারা’ তাঁদেরই সংগঠন।

ইতোমধ্যে অনেকে এর সুফল পেয়েছেন।

মূলত গত এক বছর ধরে ফেনীর শিক্ষার্থীদের জন্য নিবিড়ভাবে কাজ করছে সংগঠনটি। এঁদের ফেসবুকে পৃথক গ্রুপ রয়েছে। প্রতিনিয়িত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ভর্তির নানা তথ্য সেখানে প্রচার করা হচ্ছে। আবার কেউ কোনো বিষয়ে জানতে চাইলে সে বিষয়ে পারদর্শী সদস্যটি সেটা জানিয়ে দিচ্ছেন বা সমাধান দিচ্ছেন। এভাবে একে অন্যকে না দেখে বা অন্যের সাথে পরিচিত না হয়েও প্রয়োজনীয় তথ্যটি পেয়ে যাচ্ছেন এবং ভর্তির ক্ষেত্রে কাজে লাগাচ্ছেন। একে এক ধরনের পাঠশালাও বলা যায়।

‘সমান্তর ধারা’র সমন্বয়ক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগে অধ্যয়নরত তরুণ সংগঠক তাসিন সোবহান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এটি মূলত বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিক্যাল, বুয়েট-চুয়েটে পড়া শিক্ষার্থীদের সংগঠন। আমরা ফেনীর

শিক্ষার্থীদের নানাভাবে সহায়তা দিয়ে থাকি। ভর্তি পরীক্ষার আগে শিক্ষার্থীদের নানারকম তথ্য প্রয়োজন হয়। আমরা অনলাইনে ও পাঠচক্রের মধ্য দিয়ে এসব তথ্য দিয়ে সহায়তা করছি। এ কাজে বিভিন্ন কলেজের শিক্ষকরাও সহযোগিতা করছেন।’

তাসিন জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের তৌহিদ উদ্দিন মাহমুদ, গণিত বিভাগের কফিল ইবনে কামাল, ফিন্যান্স বিভাগের আজিজুল হক রিজভী, অর্থনীতি বিভাগের নোশিন আঞ্জুম প্রবাহ, বুয়েটের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের পার্থপ্রতীম ভৌমিক, ঈশাণ দে, ঢামেক এর ফারহান ফুয়াদ, চুয়েট এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের

ফারহান সাদেক, ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শরীফুল আলমসহ এক ঝাঁক তরুণ শিক্ষার্থী এই সংগঠনে কাজ করছেন।

ফেনী জেলার বিভিন্ন কলেজের শিক্ষকরাও এ কাজে সহায়তার হাত বাড়িয়েছেন। এঁদের মধ্যে ফেনী সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক আহমেদ আলী বিভোর, বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রেজাউল হক, গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ জহির, টিচার্স ট্রেনিং কলেজের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ সেলিম সরকার, ছাগলনাইয়ার দক্ষিণ বল্লভপুর ডিগ্রি কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক প্রত্যুষ শর্মা অন্যতম।

ইতোমধ্যে ‘সমান্তর ধারা’র সহায়তায় অনেকে দেশের প্রখ্যাত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শাহরিয়ার হাসান, মো. শোয়াইব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত নাজিফা তাসনিম খানম ও সেজান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সমান্তর ধারা’র তথ্য সহায়তা নিয়ে আমরা উপকৃত হয়েছি। এভাবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত জ্যেষ্ঠ শিক্ষার্থীরা যদি ফেনী জেলার তরুণ শিক্ষার্থীদের ভর্তি সংক্রান্ত সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসেন তাহলে আরো অনেকেই উচ্চশিক্ষা লাভের সুযোগ পাবে।

এদিকে সম্প্রতি ‘সমান্তর ধারা’র আয়োজনে শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা শহরের একটি রেস্তোরাঁয় অনুষ্ঠিত হয়।

এতে কয়েকজন কলেজশিক্ষক ছাড়াও অতিথি হিসেবে ছিলেন কালের কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান দারা, সংগঠক ও ব্যবসায়ী ইমন উল হক, তরুণ সংগঠক ও ক্রিকেট প্রশিক্ষক শরীফুল ইসলাম অপু।

অনুষ্ঠানে কুইজ প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন অতিথিরা।


মন্তব্য