kalerkantho


ইসলামপুরে মাদরাসা অধ্যক্ষের কাণ্ড

জামালপুর প্রতিনিধি   

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার গুঠাইল সিনিয়র মাদরাসার অধ্যক্ষ ইউসুফ আলীর বিরুদ্ধে মাসের পর মাস মাদরাসায় অনুপস্থিত থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি কোনো শিক্ষা কার্যক্রমে অংশ না নিয়ে গরহাজিরা দিয়ে নিয়মিত বেতন তুলছেন। এ নিয়ে মাদরাসার শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের মধ্যে চরম অসন্তোষ চলছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, ১৯৪১ সালে প্রতিষ্ঠিত গুঠাইল সিনিয়র মাদরাসায় বর্তমানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪০০ জন। শিক্ষক আছেন ২২ জন। শুরুর দিকে এটি জেলায় সেরা মাদরাসার খ্যাতি অর্জন করলেও তা বেশি দিন ধরে রাখতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। এ ক্ষেত্রে মাদরাসার অধ্যক্ষ ইউসুফ আলীকে দায়ী করা হচ্ছে।

তিন বছর ধরে তাঁর অনিয়মিত উপস্থিতির জন্য মাদরাসাটির শিক্ষাব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। ১৯৮৭ সালে ওই মাদরাসায় শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন ইউসুফ আলী। ১৯৯২ সালে অধ্যক্ষ হিসেবে পদোন্নতি পান। ২০১৪ সাল থেকে মাদরাসায় অনিয়মিত হন তিনি। শুধু তা-ই নয়, মাসের পর মাস কোনো ধরনের শিক্ষা কার্যক্রমে অংশ না নিয়েও গরহাজিরা দিয়ে বেতন-ভাতা তুলছেন। স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী হওয়ায় মাদরাসার অনেক শিক্ষক এ বিষয়ে প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছেন না। এ বিষয়ে অধ্যক্ষ ইউসুফ আলী বলেন, ‘সড়ক দুর্ঘটনায় পায়ে আঘাত পাওয়ায় কিছুদিন মাদরাসায় যেতে পারিনি। তবে এখন নিয়মিত যাচ্ছি।’ এ সময় তিনি টাকা আত্মসাতের কথা অস্বীকার করেন।


মন্তব্য