kalerkantho


আরব লীগের বৈঠক

কাতারের আমিরকে সরানোর চেষ্টার অভিযোগ রিয়াদের বিরুদ্ধে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



উপসাগরীয় সংকট নিয়ে মিসরের রাজধানী কায়রোতে গতকাল বুধবার উত্তপ্ত বিতর্কে লিপ্ত হন সংশ্লিষ্ট পাঁচটি দেশের কূটনীতিকরা। এ সময় কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অভিযোগ করেন, কাতারের বর্তমান আমিরকে সরিয়ে আরেকজনকে ক্ষমতাসীন করার পাঁয়তারা চালাচ্ছে সৌদি আরব।

কায়রোতে অনুষ্ঠিত আরব লীগের বৈঠকে গতকাল কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুলতান বিন সাদ আল মুরাইখির সঙ্গে উত্তপ্ত বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), বাহরাইন ও মিসরের কূটনীতিকরা। কাতারের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসে মদদদানের অভিযোগ এনে তাদের সঙ্গে গত ৫ জুন কূটনৈতিক সম্পর্ক এবং সড়ক-নৌ-আকাশ যোগাযোগ ছিন্ন করে ওই চারটি দেশ।

আরব লীগের গতকালের বৈঠকটি সরাসরি সম্প্রচারিত হয়। বৈঠকের উদ্বোধনী বক্তব্যে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মুরাইখি ইরানকে ‘সম্মানজনক দেশ’ অভিহিত করে দুই দেশের সুসম্পর্কের কথা বলেন। প্রসঙ্গত, কার্যত অবরুদ্ধ কাতারকে বিভিন্নভাবে সমর্থন জুগিয়ে যাচ্ছে ইরান। মুরাইখির বক্তব্যের জবাবে আরব লীগে নিযুক্ত সৌদি দূত আহমেদ আল কাত্তান বলেন, ‘কাতারের বসে থাকা গুরুভাইরা যদি মনে করেন, ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক পুনঃস্থাপনে তাঁরা লাভবান হবেন, তবে আমি বলতে চাই যে তাঁরা একদম ভুল ভেবেছেন। তাঁরা যে ভুল ভাবছেন, সেটা সামনের দিনগুলোতে প্রমাণ হয়ে যাবে। কারণ আমরা জানি, কাতারের লোকজন কখনো তাদের দেশে ইরানিদের কোনো ভূমিকা রাখতে দেবে না। ’

আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ অভিযোগ করেন, ‘শান্তির প্রতি কাতারের অনীহার কারণে’ সংকটের সমাধান হচ্ছে না।

তিনি বলেন, ‘কাতারের রাস্তা বদলানো দরকার। নিষেধাজ্ঞা আরোপকারী চারটি দেশের প্রতি কাতার আগ্রাসী নীতি না পাল্টালে আমরা নিজেদের নীতিতে অবিচল থাকব। ’

সূত্র : আলজাজিরা।


মন্তব্য