kalerkantho


কেন ইরানে বারবার ভূমিকম্প?

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



কেন ইরানে বারবার ভূমিকম্প?

ইরানে ভূমিকম্পে ঘরবাড়ি ধসে পড়ায় বাসিন্দারা শীত থেকে নিজেদের রক্ষা করতে খোলা আকাশের নিচে আগুন পোহায়। ইরানের শারপোল-ই জাহাব থেকে গতকাল তোলা ছবি। ছবি : এএফপি

ইরান গত ছয় দশকে কমপক্ষে ১২টি প্রলয়ঙ্করী ভূমিকম্পের কবলে পড়েছে। এর মধ্যে ১৯৯০ সালে দেশটির উত্তর-পশ্চিমে রুবার এলাকায় ৭ দশমিক ৪ মাত্রার ভূমিকম্পে প্রাণ হারায় ৫০ হাজার মানুষ।

ইরানে বারবার এত বড় ধরনের ভূমিকম্পের জন্য একটি বিশেষ ভূমিকম্প রেখার ওপর দেশটির অবস্থানকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা।

একেবারে মোদ্দা কথায় আরব ও ইউরেশীয় টেকটনিক প্লেটের সংঘর্ষের কারণে ইরান বারবার ভূমিকম্পের শিকার হচ্ছে। আরব প্লেটটি প্রতিবছর দুই সেন্টিমিটার করে উত্তর দিকে সরে যাচ্ছে। ব্যাপারটা ভালোভাবে ব্যাখ্যা করতে গেলে বলতে হয়, ইরানের দক্ষিণ-পূর্বাংশে আরব প্লেটটি সব সময় ইউরেশীয় প্লেটটিকে নিচ থেকে ধাক্কা দিয়ে যাচ্ছে। আর দেশটির উত্তর-পশ্চিমে এ দুটি প্লেটের সংঘর্ষ ঘটছে পাশাপাশি। দুই টেকটনিক প্লেটের পাশাপাশি সংঘর্ষের ফলে জারগোস পর্বতমালার জন্ম হয়। এসব সংঘর্ষের জেরে সৃষ্ট জোরালো ভূকম্পন ইরানকে প্রায়ই নাড়া দিচ্ছে, ঘটছে প্রাণহানি।

এবারের ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল ইরাক-ইরান সীমান্তে। এটি ইরাকের পূর্বাঞ্চলীয় হালাবজা শহর থকে ৩১ কিলোমিটার দূরে এবং উৎপত্তিস্থলটি ২৩ দশমিক ২ কিলোমিটার গভীরে।

৭ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্পটি ইরানে বড়সড় আঘাত হানলেও ইরাকে তেমন প্রভাব পড়েনি। এর কারণ ব্যাখ্যায় ইরাকের আবহাওয়া দপ্তরের ভূমিকম্প পর্যবেক্ষণ শাখার প্রধান আব্দুল করিম আব্দুল্লাহ তাকি জানান, যে ভূমিকম্প রেখা এবারের ভূমিকম্পের জন্য দায়ী, সেটির অবস্থানের কারণে এবং একই সঙ্গে ইরাকের ভূপ্রাকৃতিক গঠনের কারণে এ দেশে এবার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কম। তিনি জানান, ইরাকের ভূপ্রকৃতি অধিকতর ভালোভাবে ভূকম্পন শোষণ করতে পারে।

ভূমিকম্প রেখার প্রকৃতি ও আচরণ সম্পর্কে আগের চেয়ে অনেক ভালো ধারণা থাকায় ভূতাত্ত্বিক সংস্থাগুলো সংশ্লিষ্ট ভূখণ্ডের গঠন, সেখানে জনবসতির পরিমাণ ও নির্মাণ প্রক্রিয়া সংক্রান্ত তথ্যের ওপর ভিত্তি করে ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে আগাম ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করে। একইভাবে রবিবারের ভূমিকম্পে কয়েক শ মানুষ নিহত এবং কয়েক হাজার মানুষ আহত হতে পারে ধারণা দেওয়া হয়। বলা দরকার, এরই মধ্যে প্রায় ৪০০ মানুষ নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ইরানি রেড ক্রস জানিয়েছে, ৭০ হাজারের বেশি মানুষের জন্য জরুরি ভিত্তিতে আশ্রয়ের ব্যবস্থা করা দরকার। সূত্র : হারেত্জ, বিবিসি, এপি।


মন্তব্য