kalerkantho


আলাবামা নির্বাচন

রিপাবলিকান প্রার্থীর পরাজয় হোঁচট খেলেন ট্রাম্প

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



রিপাবলিকান প্রার্থীর পরাজয় হোঁচট খেলেন ট্রাম্প

বিজয়ী ডাগ জনস

আবারও বড় ধরনের রাজনৈতিক বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমন এক সংকট, যা ‘ভুয়া খবর’ বলে বাতিল করে দেওয়া যায় না। অন্যদিকে ডেমোক্র্যাটদের জন্য বড়দিন এবার হয়তো কিছুটা আগেই চলে এলো! আলাবামায় গত ২৫ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো জয়ের দেখা পেয়েছে দলটি। ট্রাম্পের প্রার্থী রয় মুরকে পরাজিত করে সিনেট নির্বাচনে জয় পেয়েছেন ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী ডাগ জনস।

তিক্ত ও দীর্ঘ প্রচারের পর জনসের ৪৯.৯-৪৮.৪ শতাংশ ভোট পেয়ে জিতে যাওয়াকে দেখা হচ্ছে ‘চমক’ হিসেবে। এই রাজ্যে গত বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের চেয়ে ট্রাম্প ৩০ শতাংশ ভোট বেশি পেয়েছিলেন। দীর্ঘদিন থেকে রাজ্যটিকে বিবেচনা করা হয় রিপাবলিকান পার্টির নিজস্ব তালুক হিসেবে।

প্রচারের শুরু থেকেই নানা ইস্যু নিয়ে তিক্ত বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন রিপাবলিকান প্রার্থী মুর। বেশ কয়েকজন নারী অভিযোগ করেন অতীতে তাঁদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করেছেন মুর। তখন তাঁরা বয়সে ছিলেন নেহায়েতই কিশোরী। দেশজুড়ে ব্যাপক প্রচারিত এ তথ্যকে মুর অবশ্য ‘চক্রান্ত’ বলে নাকচ করে দেন। তবে তাঁর বিরুদ্ধে জনরোষের কারণ শুধু এটুকুই নয়, তিনি কট্টর ডানপন্থী। তাঁর মত, সমকামী সম্পর্ককে অবৈধ ঘোষণা করা উচিত। তাঁর মুখে এমন কথাও শোনা যায় যে মুসলমানরা সিনেটর হওয়ার যোগ্য নন। এমন উগ্রপন্থী মতবাদের কারণে ৭০ বছর বয়সী সাবেক এই বিচারককে আলাবামা সুপ্রিম কোর্ট থেকে অন্তত দুবার বহিষ্কার করা হয়।

এমন বিতর্কিত প্রার্থীর পক্ষেই গলা তুলে নিজের জোর সমর্থনের কথা জানান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। খোদ রিপাবলিকান পার্টির মধ্যেও অনেকের মধ্যেই মুরকে নিয়ে সংশয় ছিল। তবে জ্যেষ্ঠ রিপাবলিকান নেতাদের কথা কানে না তুলে নিজের জেদ বজায় রেখে মুরের জন্য প্রচার চালিয়ে যান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

মুর অবশ্য গতকাল পর্যন্ত পরাজয় স্বীকার করেননি। নির্বাচন শেষ হওয়ার পরও ডাকে বিদেশ থেকে প্রবাসী মার্কিনদের ভোট আসতে দিন সাতেক সময় লেগে যায়। এই সময় পর্যন্ত দেখতে চান তিনি। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, ডাকে ১.৭ শতাংশ ভোট আসতে পারে, যা ফলে প্রভাব ফেলবে না। মুর না মানলেও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ফল প্রকাশের পরপরই জোনসকে টুইট করে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

আলাবামার এই নির্বাচন সিনেটের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এর ফলে রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটিক পার্টির আসনসংখ্যা দাঁড়াবে ৫১-৪৯। ঝুঁকির মুখে পড়বে রিপাবলিকানদের যেকোনো বিল পাস। তাদের প্রস্তাবে একজন রিপাবলিকান সদস্যও বিরোধিতা করলে দুই পক্ষের ভোটসংখ্যা সমান হয়ে যাবে। এ ধরনের ফলের বিষয়টি এক বছর আগেও কল্পনাতীত ছিল। ডেমোক্রেটিক পার্টি এত দ্রুত ঘুরে দাঁড়াতে পারবে, এমন প্রত্যাশা ছিল না। আগামী বছর দেশটিতে মধ্যবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আশা করা হচ্ছে, কংগ্রেসে ওই নির্বাচনেই ক্ষমতার ভারসাম্যে পরিবর্তন আসবে। সূত্র : বিবিসি, সিএনএন।


মন্তব্য