kalerkantho


উ. কোরিয়া ইস্যুতে মার্কিন দূত

পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধের আগে আলোচনা নয়

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধের আগে আলোচনা নয়

পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ না করলে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র কোনো আলোচনায় বসবে না। জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের দূত নিকি হ্যালে বলেছেন, আলোচনা চাইলে পিয়ংইয়ংকে (উত্তর কোরিয়ার রাজধানী) আগে পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা থেকে বিরত থাকতে হবে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে সরাসরি আলোচনার আগ্রহ প্রকাশের পরদিনই হ্যালে এ মন্তব্য করলেন।

এদিকে দুই বছরেরও বেশি সময় পর আজ মঙ্গলবার দুই কোরিয়ার মধ্যে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়া জানিয়েছে, বৈঠকে তারা দুই কোরিয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকা পরিবারের সদস্যদের পুনর্মিলনীর বিষয়টি নিয়েও কথা বলতে চায়।

উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে ওয়াশিংটন ও সিউলের (দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী) বিরোধ চলছে। কয়েক মাস ধরে এই বিরোধকে কেন্দ্র করে রীতিমতো বাগ্যুদ্ধ চলছে ট্রাম্প ও উনের মধ্যে। এ অবস্থায় গত শনিবার সুর খানিকটা নরম করেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘আমি সব সময় আলোচনায় বিশ্বাসী। আমি অবশ্যই তাঁর (উন) সঙ্গে কথা বলতে চাই। কথা বলতে আমার কোনো সমস্যা নেই।’

কিন্তু ট্রাম্পের এ মন্তব্যের পরদিনই ‘ভিন্ন’ সুরে কথা বলেন জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের দূত নিকি হ্যালে। উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনায় বসার ব্যাপারে এবিসি নিউজকে তিনি বলেন, ‘তাদের অবশ্যই পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা বন্ধ করতে হবে। তাদের আগ্রহ থাকতে হবে এসব অস্ত্র নিষিদ্ধ করার ব্যাপারেও।’

ট্রাম্পের আগের দিনের মন্তব্যের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান মোটেও পাল্টায়নি। তিনি (ট্রাম্প) যা বলেছেন তা হলো, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনা হতেই পারে। তবে তার আগে অনেক কিছুই ঘটতে হবে।’ উত্তর কোরিয়া ইস্যুতে ট্রাম্পের ‘কঠোর’ ও ‘নরম’ মনোভাব ব্যাখ্যা করতে গিয়ে হ্যালে আরো বলেন, ‘আমরা তাদের ওপর চাপ অব্যাহত রাখতে চাই।’ 

এদিকে আজ দুই কোরিয়ার মধ্যে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। বৈঠকটি হবে দুই কোরিয়ার সীমান্তবর্তী গ্রাম পানমুনজোমে। ওই গ্রামেই দুই কোরিয়ার মধ্যে যুদ্ধবিরতির চুক্তি সই হয়েছিল। আগামী মাসে সিউলে শীতকালীন অলিম্পিকের যে আসর বসবে, তাতে উত্তর কোরিয়ার অংশগ্রহণের সম্ভাবনার বিষয়টি নিয়ে মূলত আজকের বৈঠকে কথা হবে। তবে সিউল জানিয়েছে, বৈঠকে তারা দুই কোরিয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকা পরিবারের সদস্যদের পুনর্মিলনীর বিষয়েও কথা বলতে চায়।

সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য