kalerkantho


অলিম্পিকে কী গান গাইবে উ. কোরিয়া তা নিয়ে বৈঠক

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



দক্ষিণ কোরিয়ায় আগামী মাসে অনুষ্ঠেয় শীতকালীন অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সাংস্কৃতিক দলের সংগীত পরিবেশন নিয়ে দুই দেশের মধ্যে গতকাল সোমবার আলোচনা শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে এ অলিম্পিকে উত্তর কোরিয়া অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

বৈঠকের আগে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান করার প্রস্তাব দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। একই সঙ্গে মহিলাদের আইস হকি টিম যৌথভাবে গঠনের প্রস্তাবও দিয়েছে সিউল।

বৈঠকের মূল আলোচ্য বিষয় হয়ে দাঁড়াচ্ছে, অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের স্টেজে পিয়ংইয়ংয়ের শিল্পীরা কী ধরনের সংগীত পরিবেশন করবেন। কারণ উত্তর কোরিয়ার বিখ্যাত ‘মোরানব্যাং ব্যান্ড’-এর অলিম্পিকে সংগীত পরিবেশনের কথা রয়েছে, যে ব্যান্ডটি সাধারণত উত্তরের শাসকদলের প্রশংসায় গান করে থাকে। এ ছাড়া এই দলের শিল্পীদেরও বাছাই করে থাকেন উত্তর কোরিয়া নেতা কিম জং উন। অথচ দক্ষিণ কোরিয়ায় আইনগতভাবে উত্তর কোরিয়ার প্রশংসা নিষিদ্ধ।

সিউলের একত্রীকরণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দুই পক্ষের চারজন করে কর্মকর্তা বৈঠকে অংশ নিচ্ছেন। গতকাল স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় উত্তরের সীমান্তবর্তী গ্রাম পানমুনজমে বৈঠক শুরু হয়। উত্তরের প্রতিনিধিদলে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা কোন হিয়োক বোং ও নারীদের নিয়ে গঠিত মিউজিক ব্যান্ড মোরানবোং নেতা হিউন সো-ওল রয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার সাংস্কৃতিক দলের পক্ষে মোরানব্যাং কী ধরনের সংগীত পরিবেশন করতে পারে, এ নিয়ে অস্বস্তিতে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। কারণ এ ব্যান্ডটির গানের কথায় উত্তর কোরিয়া নেতাকে উল্লেখ করে ‘আমরা তাকে পিতা বলে ডাকি’ এমন কথাও রয়েছে। তাদের অনেক গানের কথা দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা আইনের লঙ্ঘন। কারণ দক্ষিণ কোরিয়ায় উত্তরের প্রশংসা করা নিষিদ্ধ। আবার এ ব্যান্ড পরমাণু অস্ত্র ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পক্ষে প্রপাগান্ডা চালাতেও গান গেয়ে থাকে। এ ধরনের একটি চেষ্টা করতে গিয়ে ২০১৫ সালে চীনের রাজধানী পেইচিংয়ে এই ব্যান্ডটির একটি অনুষ্ঠান বাতিল করেছিল চীনা কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ কোরিয়ার গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিজং ইনস্টিটিউটের বিশ্লেষক চিয়ং সিয়ং-চ্যান বলেন, সিউলকে খুব সতর্ককতায় উত্তর কোরিয়ার প্রপাগান্ডা চালানোর পরিস্থিতি এড়াতে হবে। তারা অলিম্পিক অনুষ্ঠানে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পক্ষেও প্রপাগান্ডা চালাতে পারে। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, উত্তরের সামরিক বাহিনীর শিল্পীদের নিয়ে গঠিত এ ব্যান্ড দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিকদের অস্বস্তির কারণ হতে পারে।

পিয়ংইয়ংয়ের ওপর ইইউর চাপ বাড়াতে চান শিনজো আবে : অন্যদিকে বুলগেরিয়া সফররত জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) প্রতি উত্তর কোরিয়াকে চাপ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। গত রবিবার সোফিয়ায় বুলগেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী বয়কো বরিসভের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠককালে তিনি এই আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘আমরা এমন সময়ে আলোচনা করছি, যখন পূর্ব এশিয়ায় নিরাপত্তা পরিস্থিতি ক্রমাগত অবনতি হচ্ছে।’

সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য