kalerkantho


ভারতের বিচার বিভাগে বিদ্রোহ

সংকটের ‘বরফ গলছে’!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ভারতের বিচার বিভাগের চলমান সংকট দ্রুত মেটাতে ‘বিদ্রোহী’ চার প্রবীণ বিচারপতির সঙ্গে গতকাল মঙ্গলবার বৈঠক করেছেন দেশটির প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র। গত শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে তাঁর কাজকর্মের বিরুদ্ধে ‘বিদ্রোহ’ ঘোষণার পর এই প্রথম ওই চার প্রবীণ বিচারপতির সঙ্গে মুখোমুখি কথা হলো প্রধান বিচারপতির। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানিয়েছে, এ উদ্যোগের মধ্য দিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে জমে থাকা বরফ গলতে শুরু করেছে।

১৫ মিনিটের সেই বৈঠকে ছিলেন শীর্ষ আদালতের প্রবীণ বিচারপতি এ কে সিক্রিসহ আরো দুই প্রবীণ বিচারপতি। বৈঠকে সমস্যা মেটানোর চেষ্টা শুরু হয়েছে বলে শীর্ষ আদালত সূত্রে দাবি করা হলেও, প্রবীণ বিচারপতিদের সুরে বিপরীত আভাসও মিলেছে।

সব কটি গুরুত্বপূর্ণ ও স্পর্শকাতর মামলা শোনার জন্য সুপ্রিম কোর্টের সবচেয়ে প্রবীণ পাঁচ বিচারপতিকে নিয়ে এ দিনই একটি সাংবিধানিক বেঞ্চ গড়ে দিয়েছেন দেশের প্রধান বিচারপতি। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র থাকলেও, সিনিয়রিটির দিক থেকে এগিয়ে থাকা বিদ্রোহী চার বিচারপতির ঠাঁই হয়নি সেই সদ্য গঠিত সাংবিধানিক বেঞ্চে। ফলে দ্রুত সমস্যা মেটানোর ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি কতটা আন্তরিক, তা নিয়ে সংশয় উঁকিঝুঁকি মারতে শুরু করেছে শীর্ষ আদালতের ভেতরেই। অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল বলেছেন, ‘আমার মনে হয় সমস্যা এখনো মেটেনি। তবে আশা, তা দুই-তিন দিনের মধ্যে মিটে যাবে।’

গত শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে সুপ্রিম কোর্টের চার বিচারপতির বিদ্রোহ ঘোষণার পরই সমস্যার সূত্রপাত। চার প্রবীণ বিচারপতি জাস্তি চেলামেশ্বর, কুরিয়ান জোসেফ, রঞ্জন গগৈ ও মদন লোকুরের অভিযোগ ছিল, গুরুত্বপূর্ণ ও স্পর্শকাতর মামলাগুলো বেছে বেছে তাঁর পছন্দের জুনিয়র বিচারপতিদেরই দিচ্ছেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র। এ ব্যাপারে প্রবীণ বিচারপতিদের গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না। তাঁরা প্রধান বিচারপতি মিশ্রের কাজকর্মের ‘স্বচ্ছতা’ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। সূত্র : এনডিটিভি।


মন্তব্য