kalerkantho


নবম বর্ষে কালের কণ্ঠ

পাঠকের ভালোবাসা আমাদের পাথেয়

১০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



নবম বর্ষে কালের কণ্ঠ

আট বছর পেরিয়ে আজ নবম বর্ষে পা রাখল কালের কণ্ঠ। ‘আংশিক নয় পুরো সত্য’ প্রকাশের অঙ্গীকার নিয়ে ২০১০ সালের ১০ জানুয়ারি যে পথচলা শুরু হয়েছিল, পাঠকের ভালোবাসায় আজও তা অব্যাহত। প্রকাশের শুরু থেকেই কালের কণ্ঠ মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের পতাকা বহন করে চলেছে। মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানিয়েছে। অষ্টম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনও মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দেওয়া হবে। কালের কণ্ঠ গণমানুষের কথা বলে, তাদের কল্যাণচিন্তা করে। আর তাই আট বছরের পথচলায় কালের কণ্ঠ মানুষের ভালোবাসা ও অকুণ্ঠ সমর্থন পেয়েছে। পাঠকের আস্থা ও ভালোবাসাই আমাদের অগ্রযাত্রার পাথেয়। গত আট বছরে কালের কণ্ঠ সচেতনভাবেই কিছু সামাজিক দায়িত্বও পালন করেছে। মাদক, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, নারী নির্যাতনসহ নানা অপরাধ তৎপরতার বিরুদ্ধে কালের কণ্ঠ সব সময় সোচ্চার। শুরু থেকেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, অসাম্প্রদায়িকতা ও মুক্তবুদ্ধি চর্চার ক্ষেত্রে কালের কণ্ঠ তার স্বকীয় বৈশিষ্ট্যে সমুজ্জ্বল। কালের কণ্ঠ কোনো রক্তচক্ষুর সামনে মাথা নত করেনি। আপস করেনি কোনো অপশক্তির সঙ্গে। দেশ ও দেশের মানুষের স্বার্থবিরোধী কিংবা অনৈতিক কিছুকে কখনো প্রশ্রয় দেয়নি। একই সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ সমুন্নত রাখার কাজটিও সাহস ও দৃঢ়তার সঙ্গে পালন করেছে কালের কণ্ঠ। ২০১০ সালে আমরা নারী মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান জানিয়েছি। ২০১১ সালে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে শহীদ জননীদের, যাঁরা একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে উৎসর্গ করেন তাঁদের সন্তান। সম্মাননা দেওয়া হয়েছে সেই বীর নারীদের, যাঁরা মুক্তিযুদ্ধে অকথ্য নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। আজ সম্মান জানানো হবে অসম সাহসী ১৫ বীর মুক্তিযোদ্ধাকে, যাঁরা জীবন বাজি রেখেছিলেন যুদ্ধের ময়দানে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে কালের কণ্ঠ বরাবরই সবার শীর্ষে রেখেছে। মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের জাতির সামনে তুলে ধরার ক্ষেত্রে কালের কণ্ঠ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

আমাদের এ পথপরিক্রমা সম্ভব হয়েছে পাঠকদের ভালোবাসা ও ব্যাপক অংশগ্রহণের কারণে। আমরা আগামী দিনগুলোতেও পাঠকদের একই রকম ভালোবাসা ও অংশগ্রহণ পাব, সেই বিশ্বাস আমাদের আছে। অষ্টম বর্ষপূর্তি ও নবম বছরের যাত্রা শুরুর এই শুভদিনে কালের কণ্ঠের অসংখ্য পাঠক, লেখক, শুভানুধ্যায়ী, বিজ্ঞাপনদাতা, বিপণনকর্মী—সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন। সবার মিলিত প্রয়াসেই কালের কণ্ঠ’র এগিয়ে চলা। আমরা আশা করি, ভবিষ্যতেও এ ধারা অক্ষুণ্ন থাকবে। সবার ভালোবাসা, পরামর্শ ও সহযোগিতাই আমাদের পাথেয়। সবাইকে অভিনন্দন।


মন্তব্য