kalerkantho


বগুড়ায় বাড়ছে দুর্ঘটনা

গতির প্রতিযোগিতা বন্ধে ব্যবস্থা নিন

১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



শুধু ক্ষতবিক্ষত সড়ক-মহাসড়ক নয়, চালকদের গতির প্রতিযোগিতার কারণেও দুর্ঘটনা ঘটছে। উত্তরাঞ্চলে বগুড়া অংশে মহাসড়কের ৭৪ কিলোমিটার এলাকায় ২০টি স্পটে গত ১০ বছরে দুর্ঘটনায় ৭০০ মানুষের প্রাণ গেছে। আহত হয়েছে আরো ১৫ হাজার। তাদের মধ্যে পঙ্গুত্ববরণ করেছে তিন হাজারেরও বেশি মানুষ। এমনিতেই দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় গড়ে প্রতিদিন ১৫ থেকে ২০ জন প্রাণ হারায়। এর মধ্যে এমন অনেক দুর্ঘটনা ঘটে, যেগুলোকে দুর্ঘটনা না বলে হত্যাকাণ্ডও বলা যায়। লাইসেন্সহীন অদক্ষ চালকের হাতে, এমনকি অপ্রাপ্তবয়স্ক চালকের হাতে গাড়ির চাবি তুলে দেওয়া হয়। বহু ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল করে রাস্তায়, যেগুলোর নিয়ন্ত্রণে সমস্যা রয়েছে। বেপরোয়া গতি, প্রতিযোগিতা করে গাড়ি চালানো, গাড়ি চালাতে চালাতে মোবাইল ফোনে কথা বলাসহ বহু অনিয়ম ঘটে রাস্তায়। যেসব কারণে রাস্তায় মৃত্যুর মিছিল লেগেই আছে।

দেশে সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম প্রধান কারণ প্রশিক্ষণবিহীন চালক। এর সঙ্গে আছে ভুয়া ড্রাইভিং লাইসেন্সধারী চালকের আধিক্য। সম্প্রতি সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে জানিয়েছেন, চলতি বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত যানবাহনের সংখ্যা ৩৪ লাখ ৯৮ হাজার ৬২০টি। এর মধ্যে ২২ লাখ ছয় হাজার ১৫৫টিই মোটরসাইকেল। এসব যানবাহনের বিপরীতে ড্রাইভিং লাইসেন্সপ্রাপ্ত চালকের সংখ্যা ১৮ লাখ ৬৯ হাজার ৮১৬ জন। অর্থাৎ দেশের যানবাহন চালকদের একটি বড় অংশের হাতে বৈধ লাইসেন্স নেই। মন্ত্রী সংসদে এটাও জানিয়েছেন যে দেশে পর্যাপ্ত ড্রাইভিং স্কুল ও ইনস্ট্রাক্টর না থাকায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক দক্ষ গাড়িচালক তৈরি হচ্ছে না। জাল লাইসেন্স বা ভুয়া ড্রাইভিং লাইসেন্সধারী গাড়িচালক, যান্ত্রিক ত্রুটিপূর্ণ, রংচটা, ফিটনেসবিহীন গাড়ি এবং ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে জরুরি সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হচ্ছে। কিন্তু তা আদৌ কোনো কাজে আসছে না।

আমরা অনিরাপদ সড়ক চাই না। প্রতিদিনের মৃত্যুও কাম্য নয়। এ জন্য সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। চালকদের লাইসেন্স প্রদানের প্রক্রিয়া দুর্নীতিমুক্ত করতে হবে। দক্ষ ও যোগ্য চালক ছাড়া কারো হাতে লাইসেন্স তুলে দেওয়া যাবে না। গাড়ির ফিটনেসের ব্যাপারে কোনো আপস করা যাবে না। সড়কে নজরদারি জোরদার করতে হবে। অনিয়মকে কোনোভাবেই প্রশ্রয় দেওয়া যাবে না। লাইসেন্সধারী চালকদের হাতেই যানবাহন তুলে দিতে হবে। এর পাশাপাশি ক্ষতবিক্ষত সড়ক-মহাসড়ক মেরামত করতে জরুরি ব্যবস্থা নিতে হবে। মহাসড়কের বিপজ্জনক বাঁক বা মোড়গুলো সংস্কারে উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন।



মন্তব্য