kalerkantho

এসএসসি প্রস্তুতি

জীববিজ্ঞান

গুরুত্বপূর্ণ সৃজনশীল ও বহু নির্বাচনী প্রশ্ন

সুনির্মল চন্দ্র বসু, সহকারী অধ্যাপক, সরকারি মুজিব কলেজ, সখীপুর, টাঙ্গাইল   

২১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



জীববিজ্ঞান

ছবি : শেখ হাসান

সৃজনশীল প্রশ্ন

১। চিত্রটি লক্ষ করো এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

ক) তরুণাস্থি কী?                       ১

খ) ডায়ালিসিস কেন করা হয়?              ২

গ) চিত্র P-এ পাথর হওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করো। ৩

ঘ) চিত্র P মানুষের সুস্থ জীবনধারা বজায় রাখে—উক্তিটি বিশ্লেষণ করো।                        ৪

 

উত্তর : ক) অস্থি অপেক্ষা নরম ও স্থিতিস্থাপক যোজক কলাকে তরুণাস্থি বলে।

খ) বৃক্ক সম্পূর্ণ অকেজো বা বিকল হওয়ার পর বৈজ্ঞানিক উপায়ে রক্ত পরিশোধিত করার নাম ডায়ালিসিস। বৃক্ক বিকল হলে মূত্র ত্যাগের সমস্যা দেখা যাবে। রক্তে ক্রিয়েটিনিন বৃদ্ধি পাবে। বৃক্ক মানুষের দেহ থেকে নাইট্রোজেন ঘটিত বর্জ্য পদার্থ অপসারণ করে। বৃক্ক বিকল হলে তা সম্ভব হয় না। এ জন্য রক্তের বর্জ্যদ্রব্যাদি অপসারণে নির্দিষ্ট সময় পর পর রোগীকে ডায়ালিসিস করা হয়।

গ) উদ্দীপকের P চিত্র হলো মানুষের বৃক্ক। অতিরিক্ত শারীরিক ওজন, বৃক্কে সংক্রমণ রোগ, কম পানি পান করলে,  অতিরিক্ত প্রাণিজ আমিষ যেমন—মাংস ও ডিম খেলে বৃক্কে পাথর হওয়ার কারণ হতে পারে।

ঘ) উদ্দীপকের চিত্র P হলো মানুষের বৃক্ক। বৃক্ক মানুষের সুস্থ জীবনধারা বজায় রাখে।

মূত্রে ইউরিয়া, ইউরিক এসিড, অ্যামোনিয়া, ক্রিয়েটিনিন ইত্যাদি নাইট্রোজেন ঘটিত পদার্থ থাকে। এগুলো মানবদেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। এসব অপ্রয়োজনীয় ও ক্ষতিকর বর্জ্য পদার্থ মূত্রের মাধ্যমে অপসারণে বৃক্ক অত্যন্ত  গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বৃক্কস্থিত নেফ্রন একটি জটিল প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ক্রমাগতভাবে মূত্র উৎপন্ন করে। মূত্রের মাধ্যমে বৃক্ক মানবদেহ থেকে ক্ষতিকর নাইট্রোজেনজাতীয় বর্জ্য পদার্থ অপসারণ করে। বৃক্ক মানবদেহে সোডিয়াম, পটাসিয়াম, ক্লোরাইড ইত্যাদির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে। মানবদেহের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ, পানি, অম্ল ও ক্ষারের ভারসাম্য রক্ষা করে। অসমোরেগুলেশনে বৃক্ক ভূমিকা পালন করে। মূলত বৃক্ক নেফ্রনের মাধ্যমে পুনঃশোষণ প্রক্রিয়ায় দেহে পানির সমতা বজায় রাখে। গ্লোমেরুলাসে রেচন বর্জ্য, পানি ও অন্যান্য তরল পদার্থ পরিস্রুত হয়। দেহে পানির পরিমাণ বেড়ে গেলে রক্ত বেশি তরল হয়ে যায়। এতে দেহে নানা রকম জটিলতা সৃষ্টি হয়। বৃক্ক অসমোরেগুলেশনের মাধ্যমে এসব থেকে রক্ষা করে। সুতরাং বলা যায়, বৃক্ক মানুষের সুস্থ জীবনধারা বজায় রাখে।

 

২। চিত্রটি লক্ষ করো এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

ক) অস্টিওব্লাস্ট কী?                   ১

খ) অস্টিওপরোসিস বলতে কী বোঝায়?             ২

গ) চিত্রটির A ও C অংশের মধ্যে পার্থক্য উল্লেখ করো।    ৩

ঘ) চিত্র ‘M’-এর অনুপস্থিতিতে অস্থি সঞ্চালনে মানবদেহে কী ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হবে—বিশ্লেষণ করো।             ৪

 

উত্তর : ক) অস্থিকোষকে অস্টিওব্লাস্ট বলে।

খ) অস্টিওপরোসিস একটি ক্যালসিয়ামের অভাবজনিত রোগ। বয়স্ক পুরুষ ও মহিলাদের সাধারণত এ রোগ হয়। বয়স্ক পুরুষ অনেক দিন ধরে স্টেরয়েডযুক্ত ওষুধ সেবন করলে এবং মহিলাদের মেনোপজ হওয়ার পর এ রোগ হওয়ার আশঙ্কা বেশি। এতে অস্থি ভঙ্গুর হয়ে যায়, পেশির শক্তি কমতে থাকে, পিঠের পেছন দিকে ব্যথা হয়, অস্থিতে ব্যথা হয়। পঞ্চাশোর্ধ পুরুষ ও মহিলাদের দৈনিক ১২০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম গ্রহণ, ননি তোলা দুধ ও দুগ্ধজাত দ্রব্য গ্রহণ এবং নিয়মিত ব্যায়াম করলে এ রোগ ভালো হয়।

গ) উদ্দীপকের চিত্র A অংশ হলো অস্থি এবং চিত্র C অংশ হলো তরুণাস্থি। অস্থি ও তরুণাস্থির মধ্যে পার্থক্য নিম্নরূপ

ঘ) উদ্দীপকের M চিত্রটি হলো সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি।

যে অস্থিসন্ধি ক্যাপসুল বা অস্থিসন্ধি আবরণী এবং সাইনোভিয়াল রস নামক এক ধরনের তৈলাক্ত পদার্থ নিয়ে গঠিত হয়, তাকে সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি বলে।

এ অস্থিসন্ধির অংশগুলো হলো তরুণাস্থিতে আবৃত অস্থিপ্রান্ত, সাইনোভিয়াল রস এবং অস্থিসন্ধিকে দৃঢ়ভাবে আটকে রাখার জন্য অস্থিবন্ধনী বা লিগামেন্ট বেষ্টিত একটি মজবুত আবরণী বা ক্যাপসুল। অস্থিসন্ধিতে সাইনোভিয়াল রস ও তরুণাস্থি থাকায় অস্থিতে অস্থিতে ঘর্ষণ ও ক্ষয় হ্রাস পায় এবং অস্থিসন্ধির নড়াচড়া করাতে কম শক্তি ব্যয় হয়।

এ অস্থিসন্ধি না থাকলে অস্থি সঞ্চালনের ফলে অস্থিতে অস্থিতে ঘর্ষণজনিত ক্ষয় ও বেশি শক্তি প্রয়োজন হতো। ফলে অস্থি সঞ্চালনে মানবদেহে নানা ধরনের জটিলতা সৃষ্টি হতো। সুতরাং অস্থি সঞ্চালনের ক্ষেত্রে সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধির গুরুত্ব অপরিসীম।

 

৩। চিত্রটি লক্ষ করো এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

ক) ডোপামিন কী?                    ১

খ) DNA ফিঙ্গারপ্রিন্ট কিভাবে সম্পন্ন করা হয়? ব্যাখ্যা করো।                ২

গ) X-চিত্রে সংযোগস্থলের চিহ্নিত চিত্র অঙ্কন করো।         ৩

ঘ) মানুষের চলনে P ও Q-এর ভূমিকা বিশ্লেষণ করো।     ৪

 

উত্তর : ক) স্নায়ুকোষ এক ধরনের নির্যাস তৈরি করে, যাকে ডোপামিন বলে।

খ) DNA টেস্টের বিজ্ঞানভিত্তিক এক ব্যবহারিক পদ্ধতিকে DNA ফিঙ্গারপ্রিন্ট। এ ছাড়া DNA টাইপিং, DNA টেস্টিং ইত্যাদি নামও প্রচলিত রয়েছে। DNA টেস্ট সুসম্পন্ন করার জন্য প্রথম প্রয়োজন জৈবিক নমুনা। ব্যক্তির হাড়, দাঁত, চুল, রক্ত, লালা, বীর্য ইত্যাদি বা টিস্যু মূল্যবান জৈবিক নমুনা হতে পারে। অপরাধস্থল কিংবা অপরাধের শিকার এমন ব্যক্তির কাছ থেকে প্রাপ্ত জৈবিক নমুনার উঘঅ নকশাকে তুলনা করা হয় সন্দেহভাজনের কাছ থেকে নেওয়া রক্ত বা জৈবিক নমুনার DNA নকশার সঙ্গে।

গ) উদ্দীপকে উল্লিখিত ‘X’ চিত্রটি হলো সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি।

নিচে এর চিহ্নিত চিত্র অঙ্কন করা হলো—

ঘ) উদ্দীপকে চিত্রে উল্লিখিত P ও Q বলতে অস্থি ও পেশিকে বোঝানো হয়েছে। মানুষের চলনে অস্থি ও পেশির ভূমিকা নিম্নে দেওয়া হলো।

মানুষের চলনে অস্থি ও পেশির ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অস্থি দেহের কাঠামো কঙ্কাল গঠন করে। আর পেশিতন্ত্র এই কাঠামোর ওপর আচ্ছাদন তৈরি করে। ঐচ্ছিক পেশি টেন্ডন নামক দৃঢ় ও স্থিতিস্থাপক অংশ দ্বারা অস্থিকে আটকে রাখে। স্নায়বিক উত্তেজনা পেশির মধ্যে উদ্দীপনা জোগানোর ফলে পেশি সংকুচিত হয়। উদ্দীপনা অপসারণে পেশি আবার শিথিল বা প্রসারিত হয়। এই সংকোচন ও প্রসারণের সহায়তায় সংলগ্ন অস্থির নড়াচড়া সম্ভব হয়।

একটি উদাহরণ দ্বারা পেশির কার্যক্রম ব্যাখ্যা করা যায়। কনুই বাঁকা বা সোজা করতে হলে ঐচ্ছিক পেশি কিভাবে ক্রিয়া করে তা লক্ষ করা যায়। কনুই বাঁকা করতে হলে ইচ্ছাধীন স্নায়ুর তাড়নায় বাইসেপস পেশি সংকুচিত হয় এবং ট্রাইসেপস পেশি শিথিল হয়ে প্রসারিত হয়। ফলে রেডিয়াস ও আলনাকে টেনে বাঁকা করে। কনুই সোজা করতে হলে ঠিক তার বিপরীত কার্যক্রমটি ঘটে। অর্থাৎ ইচ্ছাধীন স্নায়ুর তাড়নায় ট্রাইসেপস পেশি সংকুচিত হয় এবং রেডিয়াস ও আলনাকে টেনে সোজা করে। এ সময় বাইসেপস পেশি শিথিল হয়ে প্রসারিত হয়। এভাবে বাইসেপস ও ট্রাইসেপস পেশির সংকোচন ও শ্লথ হওয়ার মাধ্যমে আমরা কনুই বাঁকানো বা সোজা করতে পারি। এভাবে দেহের বিভিন্ন পেশির কার্যক্রমের মাধ্যমে অঙ্গ সঞ্চালন ঘটে।

 

 

বহু নির্বাচনী প্রশ্ন

 

১।        সুগঠিত নিউক্লিয়াস থাকে—

            i. DNA ii. RNA

            iii. প্রোটিনে

            নিচের কোনটি সঠিক?

            ক) i, ii  খ) i, iii

            গ) ii, iii            ঘ) i, ii ও iii

            চিত্রটি লক্ষ করো এবং ২ ও ৩ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দাও :

২।         উদ্দীপকের চিত্রটি কিসের?

            ক) হৃৎপশি        খ) অনৈচ্ছিক পেশি

            গ) ঐচ্ছিক পেশি            ঘ) মসৃণ পেশি

৩।        উদ্দীপকের চিত্রের ক্ষেত্রে—

            i. অস্থিতন্ত্রে সংলগ্ন থাকে

            ii. একাধিক নিউক্লিয়াস থাকে

            iii. রক্তনালি, পৌস্টিকনালির প্রাচীরে থাকে

            নিচের কোনটি সঠিক?

            ক) i, ii  খ) i, iii

            গ) ii, iii            ঘ) i, ii ও iii

৪।        স্ক্লেরেনকাইমা স্টোন সেলগুলো—

            i. সমব্যসীয় হয়

            ii. অত্যন্ত লম্বা হয়

            iii. তারকাকার হয়

            নিচের কোনটি সঠিক?

            ক) i, ii  খ) i, iii

            গ) ii, iii            ঘ) i, ii ও iii

৫।        হ্যাপ্লয়েড জীবের কোথায় মিয়োসিস হয়?

            ক) দেহকোষে    খ) জননকোষে

            গ) জাইগোটে     ঘ) ভ্রূণে

৬।        ঈস্টে কোন ধরনের বিভাজন দেখা যায়?

            ক) মাইটোসিস  খ) অ্যামাইটোসিস

            গ) মিয়োসিস    ঘ) সাইটোকাইনেসিস

৭।        উদ্ভিদের শ্বসন ক্রিয়ার হার অনেক বেশি কোনটিতে?

            ক) মূলে            খ) অঙ্কুরিত বীজে         গ) ফুল ও পাতায়           ঘ) কাণ্ড ও শাখায়

৮।       অবাত শ্বসনে এক অণু গ্লুকোজ জারিত হয়ে কী পরিমাণ শক্তি উৎপন্ন হয়?

            ক) 56K. Cal     খ) 686 K. Cal

            গ) 38 ATP       ঘ) 688 K. Cal

৯।        সবাত শ্বসনে উৎপন্ন অঞচ-এর সংখ্যা কত?

            ক) ৩৮ খ) ৬

            গ) ১২   ঘ) ১৮

১০।      কত তরঙ্গ দৈর্ঘ্যবিশিষ্ট আলোতে সালোকসংশ্লেষণ সবচেয়ে ভালো হয়?

            ক) ৪০০ nm-৬০০ nm এবং ৬৮০ nm

            খ) ৩০০ nm-৩৮০ nm এবং ৭৮০ nm

            গ) ৪০০ nm-৪৮০ nm এবং ৬৮০ nm

            ঘ) ৩০০ nm-৫০০ nm এবং ৭৮০ nm

            উদ্দীপকটি পড়ে ১১ ও ১২ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দাও :

            জারিফের দৈহিক ওজন ৪০ কেজি এবং উচ্চতা ১৫০ সে.মি.।

১১।      জারিফের ইগও মান কত?

            ক) ১৫.৫০         খ) ১৬.৫০

            গ) ১৭.০১         ঘ) ১৭.৭৮

১২।      জারিফের প্রয়োজন—

            i. বেশি আমিষ গ্রহণ      ii. ব্যায়াম করা

            iii. দৈহিক ওজন বাড়ানো

            নিচের কোনটি সঠিক?

            ক) i, ii  খ) i, iii

            গ) ii, iii            ঘ) i, ii ও iii

১৩।      আমাদের রক্তে LDL-এর পরিমাণ কত?

            ক) ৬৫%          খ) ৭০%

            গ) ৭৫%            ঘ) ৮০%

১৪।      সাধারণত তিন সপ্তাহের বেশি কাশি থাকে—এটি কোন রোগের লক্ষণ?

            ক) যক্ষ্মা           খ) হাঁপানি

            গ) ব্রংকাইটিস   ঘ) ফুসফুসের ক্যান্সার

১৫।      শিমজাতীয় উদ্ভিদের মূলে নডিউল হওয়ার কারণ—

            i. কমেনসেলিজম          ii. অ্যান্টিবায়োসিস

            iii. মিউচুয়ালিজম

            নিচের কোনটি সঠিক?

            ক) i, ii  খ) iii

            গ) i, iii ঘ) i, ii ও iii

১৬।     ফাহিমের বয়স ৭ বছর। ইদানীং তার অস্থিসন্ধিতে বেশ যন্ত্রণা হচ্ছে। ফাহিমের কোন রোগটি হতে পারে?

            ক) Arthrities    খ) Osteoporosis

            গ) Rheumatic fever     ঘ) Pneumonia

            চিত্রটি দেখে ১৭ ও ১৮ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দাও :

১৭।      চিত্রটির নাম কী?

            ক) ক্লিভেজ        খ) ব্লাস্টুলা

            গ) অমরা          ঘ) ফিটাস

১৮।     চিত্রটির বৈশিষ্ট্য হলো—

            i. প্রায় ৩৬ ঘণ্টা পর এটি গঠিত হয়

            ii. এটি ১৬ কোষবিশিষ্ট একটি গঠন

            iii. এর আকার বলের মতো

            নিচের কোনটি সঠিক?

            ক) i, ii  খ) i, iii

            গ) ii, iii            ঘ) i, ii ও iii

১৯।      পাইরিমিডিন বেস নিচের কোন উপাদান দ্বারা গঠিত?

            ক) এডিনিন ও গুয়ানিন

            খ) এডিনিন ও ইউরাসিল

            গ) সাইটোসিন ও থায়াসিন

            ঘ) সাইটোসিন ও ইউরাসিন

 

উত্তর

ঘ ২. গ ৩. ক ৪. ঘ ৫. গ ৬. খ ৭. খ ৮. ক ৯. ক ১০. গ ১১. ঘ ১২. খ ১৩. খ ১৪. ক ১৫. খ ১৬. গ ১৭. খ ১৮. খ ১৯. গ।


মন্তব্য