kalerkantho

জানা-অজানা

জোহানেস কেপলার

২১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



জোহানেস কেপলার

[নবম-দশম শ্রেণির পদার্থবিজ্ঞান বইয়ে জোহানেস কেপলারের কথা উল্লেখ আছে]

 

সপ্তদশ শতকের বৈজ্ঞানিক বিপ্লবের অন্যতম ব্যক্তিত্ব জোহানেস কেপলার (১৫৭১-১৬৩০)। জন্ম রোমান সাম্রাজ্যে। তিনি ছিলেন একাধারে গণিতবিদ, জ্যোতির্বিজ্ঞানী ও জ্যোতিষী। গ্রহসংক্রান্ত গতি সূত্রের কারণে তিনি বিখ্যাত। অল্প বয়সেই জ্যোতির্বিদ্যার সঙ্গে পরিচিত হন কেপলার। মাত্র ছয় বছর বয়সে ১৫৭৭ সালের মহা ধূমকেতু দেখতে পান তিনি।

প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে ভর্তি হন ইউনিভার্সিটি অব টুবিঙেনে। পড়াশোনা করেন দর্শন ও ধর্মতত্ত্ব নিয়ে। একপর্যায়ে গ্রহীয় গতি সম্পর্কে নিকোলাস কোপার্নিকাসের ধারণাও আয়ত্ত করেন তিনি। কোপার্নিকাসের মতে, সূর্য নয়—পৃথিবীই সূর্যের চারদিকে ঘোরে, যে পথে পৃথিবী ঘোরে সেটা পৃথিবীর কক্ষপথ আর এই কক্ষপথ বৃত্তাকার।

কিন্তু কত গতিতে আর কী কী নিয়ম মেনে সূর্যের চারদিকে পৃথিবী ঘোরে এটি ব্যাখ্যা করেছেন কেপলার। গ্রহের গতি নিয়ে তাঁর তিনটি সূত্র আছে। ১৬০৯ সালে তিনি প্রথম দুটি সূত্র প্রকাশ করেন। তৃতীয় সূত্রটি প্রকাশ করতে তাঁর ৯ বছর লেগে যায়।

কেপলার বিখ্যাত জ্যোতির্বিদ টাইকো ব্রাহের সহকারী হিসেবেও কাজ করেন। টাইকো ব্রাহের মৃত্যুর পর তাঁর কাজের দায়িত্ব পান কেপলার। তিনি টাইকোর তথ্যের ওপর বিশ্লেষণ করে আবিষ্কার করেন মঙ্গলের উপবৃত্তাকার কক্ষপথ।

এ ছাড়া তাঁর অন্যান্য অবদানের মধ্যে আছে— প্রতিসরণের মাধ্যমে দেখার প্রক্রিয়া, কাছের ও দূরের বস্তু দেখার জন্য চশমার সূত্র, টেলিস্কোপের কার্যপ্রণালী।

আব্দুর রাজ্জাক


মন্তব্য