kalerkantho


তাবিথ আউয়াল বললেন

যানজটমুক্ত আদর্শ ঢাকা গড়ব

শফিক সাফি   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



যানজটমুক্ত আদর্শ ঢাকা গড়ব

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদের উপনির্বাচনে ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে গত সোমবার রাতেই টিকিট পেয়ে গেছেন বিএনপি নেতা তাবিথ আউয়াল। ধানের শীষ প্রতীকের এই প্রার্থী এখন নির্বাচনে জয়ী হওয়ার ছক কষছেন। গতকাল মঙ্গলবার তেজগাঁওয়ে নির্বাচনী কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের নিয়ে তিনি ব্যস্ত ছিলেন ঘরোয়া প্রচার ও নির্বাচনী তত্পরতায়। এর ফাঁকেও কালের কণ্ঠকে একান্ত সাক্ষাৎকার দিয়েছেন, জানিয়েছেন নানা তথ্য।

নির্বাচনী ইশতেহার তৈরির কাজ প্রায় শেষ জানিয়ে তাবিথ বলেছেন, যানজটমুক্ত এবং ফুটপাত দখলমুক্ত আদর্শ ঢাকা গড়ার অঙ্গীকার থাকবে তাঁর। অনেক প্রতিশ্রুতির মধ্যে থাকছে ঢাকায় রাতের বাস সার্ভিস চালু করা। এসব নিয়ে শিগগিরই তিনি গণমাধ্যমের মুখোমুখি হবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সাক্ষাৎকারের বিস্তারিত—

কালের কণ্ঠ : ২০ দলীয় জোটের শরিক জামায়াতে ইসলামীর প্রার্থী তো এখনো নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। ২০ দলীয় জোট আপনাকে মনোনয়ন দিল। কিন্তু জোটের আরেক প্রার্থী যে নির্বাচনে থাকল?

তাবিথ : এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে আমার দল। তারা জোটের অন্য শরিকদের সঙ্গে আলোচনা শেষে সিদ্ধান্ত জানাবে। তবে আমি সব সময়ই দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি অনুগত। একই সঙ্গে অংশগ্রহণ ও প্রতিপক্ষমূলক নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী। সেটা বিরোধী পক্ষ হোক বা জোটের শরিক। দলের সিদ্ধান্ত মেনে আমি আমার নির্বাচনী কাজ চালিয়ে যাব।

কালের কণ্ঠ : ক্ষমতাসীনদের প্রার্থীকেও তো আপনাকে মোকাবেলা করতে হবে। সে ক্ষেত্রে পরিকল্পনা কী?

তাবিথ : সেটাই তো বড় চ্যালেঞ্জ। এ নিয়ে আমি বিচলিত নই। পিছপা হয়নি, হব না। কারণ জনগণ আপনার পক্ষে থাকলে, সব কিছুই আপনার পক্ষে থাকবে। গায়ের জোরে তো অনেক কিছুই করা যায়। সেটার ফল কখনো শুভ হয় না। এটি অতীতেও প্রমাণিত হয়েছে, ভবিষ্যতেও হবে।

কালের কণ্ঠ : এই উপনির্বাচন নিয়ে একটা রিট হয়েছে; যার সিদ্ধান্ত আদালত থেকে কাল (আজ) আসছে। আপনার বক্তব্য কী?

তাবিথ : এই মুহূর্তে আমি আমার কমেন্ট রিজার্ভ রাখতে চাচ্ছি। কারণ নির্বাচন হবে কি না তা নিয়ে একটি ম্যাটার সাবজুডিশন আছে। আমি নিজে এখনো বিধিমালা মোতাবেক অফিশিয়াল প্রার্থী হতে পারিনি। আর এ রকম প্রচার করে আমিও চাচ্ছি না নির্বাচন বিধিমালা ভঙ্গ করতে। তাই একটু অপেক্ষা করুন আমি শিগগিরই উত্তর নিয়ে আসব।

কালের কণ্ঠ : আপনার নির্বাচনী প্রচারের কৌশল কী এবং নগরবাসীর জন্য কী কী প্রতিশ্রুতি থাকছে? 

তাবিথ : নির্বাচন কমিশন থেকে মনোনয়ন ফরম এনে আবার যখন জমা দেব, ঠিক তারপর থেকে আমি প্রার্থী হিসেবে বেশ কিছু প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রচার শুরু করব।

কালের কণ্ঠ : সে ক্ষেত্রে কোনো ইশতেহার তৈরি করেছেন?

তাবিথ : ইশতেহার তৈরির কাজ প্রায় শেষ। সেটি নিয়ে শিগগিরই গণমাধ্যমের সামনে আসব। ঢাকাকে একটি আন্তর্জাতিক মানের শহর হিসেবে প্রতিষ্ঠাই আমার লক্ষ্য।

কালের কণ্ঠ : ইশতেহারে কী কী প্রতিশ্রুতি থাকছে?

তাবিথ : গত নির্বাচনে আমার যেসব প্রতিশ্রুতি ছিল, সেখানে নতুন করে কিছু প্রতিশ্রুতি যুক্ত হবে। রাজধানী ঢাকাকে যানজটমুক্ত ও ফুটপাত দখলমুক্ত করা, আধুনিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা চালু করা, শহরের জনসমাগমস্থলে শেয়ারবাজারের সর্বশেষ তথ্য জানার জন্য ইলেকট্রনিক ডিজিটাল ডিসপ্লে বোর্ড স্থাপন, দূরপাল্লার বাস, লঞ্চ ও ট্রেনে করে রাতে ঢাকায় আসা যাত্রীদের সুবিধার জন্য রাত্রীকালীন বাস সার্ভিস চালু করা, শিশুদের জন্য বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা ও খাদ্যে ভেজাল রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়গুলো থাকবে। এ ছাড়া রাজধানীবাসীকে হোল্ডিং ট্যাক্স প্রদানে জটিলতা ও দুর্নীতি থেকে মুক্ত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ থাকছে ইশতেহারে।

কালের কণ্ঠ : সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যাপারে কতটুকু আশাবাদী?

তাবিথ: গত নির্বাচনে যা ঘটেছে তাতে খুব বেশি আশাবাদী হওয়ার কারণ নেই। কারণ ওই সময় নির্বাচন বর্জন করার পরও ভোট ডাকাতি করতে দেখা গেছে।

কালের কণ্ঠ : বিএনপি প্রধান আপনার মতো তরুণ নেতাকে বেছে নিলেন কেন?

তাবিথ : দেশনেত্রী খালেদা জিয়া অনেক আগেই বলেছিলেন, আগামীর বাংলাদেশ হবে তরুণদের বাংলাদেশ, আধুনিক বাংলাদেশ। সেই ধারাবাহিকতায় আজকে আমরা দেখতে পাচ্ছি উনি (খালেদা জিয়া) ওনার সিদ্ধান্ত দিয়ে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করলেন। আগামী দিনেও আমরা দেখব ইনশা অল্লাহ—এই রাজনৈতিক দলের মাধ্যমে দেশ সেবায় তরুণরা এগিয়ে আসবে।


মন্তব্য