kalerkantho


বিনিয়োগ বাড়াতে নীতি সংস্কারের দাবি

রংপুর অফিস   

১৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



পিছিয়ে পড়া রংপুর বিভাগের বিনিয়োগ বাড়াতে নীতিগত, অবকাঠামোগত, জ্বালানি সমস্যাসহ প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কার একান্ত প্রয়োজন। রংপুর দেশের অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় শিল্প-কলকারখানা, ব্যবসা-বাণিজ্য ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির ক্ষেত্রে এখনো পিছিয়ে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন রংপুর চেম্বার সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু।

গতকাল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসুর সঙ্গে রংপুর চেম্বার নেতাদের মতবিনিময়সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সকালে চেম্বার ভবনের আরসিসিআই বোর্ডরুমে রংপুর চেম্বারের সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৗধুরী টিটুর সভাপতিত্বে মতবিনিময়সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব বদরুল হাসান বাবুল, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক খন্দকার মোহাম্মদ নুরুল আমিন।

বক্তারা রংপুর অঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য এগিয়ে নিতে বুড়িমারী ও বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের রাস্তা চার লেনে উন্নীতকরণের পাশাপাশি ট্রান্সশিপমেন্ট ইয়ার্ড সম্প্রসারণ, লোড-আনলোডিং সমস্যা, টেস্টিং ল্যাব স্থাপন, রপ্তানির ক্ষেত্রে জটিলতা নিরসন, পোর্ট হ্যান্ডলিং চার্জ কমানো, দ্রুত রংপুরে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) ও জয়েন্ট স্টক কম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মসের অফিস স্থাপন, চাল আমদানির ক্ষেত্রে পিপি ব্যাগের ব্যবহার বহাল রাখা, ইমিগ্রেশন পয়েন্টে যাত্রীছাউনি নির্মাণ, বিবিআইএন কানেক্টিভিটি দ্রুত কার্যকর, নেপালে তুলা রপ্তানিতে সমস্যা, পণ্য পরিবহনে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিকায়নের বিষয়গুলো তুলে ধরেন।

সভায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসু রংপুর অঞ্চলের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য উৎসাহিতকরণের লক্ষ্যে শিগগিরই রংপুরে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) ও জয়েন্ট স্টক কম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মসের অফিস স্থাপনের বিষয়টি সরকারি নীতিনির্ধারণী মহলে তুলে ধরার আশা প্রকাশ করেন। এ ছাড়া বেনাপোল স্থলবন্দরের মতো বুড়িমারী ও বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরকে পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দরে রূপান্তরের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে মর্মে মতামত ব্যক্ত করেন।


মন্তব্য