kalerkantho


পরিচালকদের সুপারিশের ঋণ ফেরত আনছে এনআরবিসি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



পরিচালকদের সুপারিশের ঋণ ফেরত আনছে এনআরবিসি

পরিচালকদের সুপারিশে দেওয়া ২৫০ কোটি টাকা ঋণের ১০০ কোটি টাকা ফেরত আনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের (এনআরবিসি) চেয়ারম্যান তমাল এস এম পারভেজ। বাকি ১৫০ কোটি টাকা আগামী জুনের মধ্যে ফেরত আনা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ ছাড়া ব্যাংকটি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে ৫০০ কোটি টাকার আমানত তুলে নিয়েছে গ্রাহকরা। এসব আমানতের সবই ছিল সরকারি ও আধা সরকারি প্রতিষ্ঠানের। গতকাল সোমবার রাজধানীর দিলকুশায় এনআরবিসি ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরেন ব্যাংকটির চেয়ারম্যান তমাল এস এম পারভেজ।

গত ১০ ডিসেম্বর এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ পুনর্গঠন হয়। ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রকৌশলী ফরাছত আলীকে সরিয়ে নতুন চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয় তমাল এস এম পারভেজকে। ভাইস চেয়ারম্যানসহ অন্য সব কমিটিও নতুন করে সাজানো হয়। গত ৬ ডিসেম্বর ব্যাংকের এমডি দেওয়ান মুজিবুর রহমানকে অপসারণ করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সংবাদ সম্মেলনে তমাল এস এম পারভেজ বলেন, ব্যাংক নিয়ে সাম্প্রতিক আলোচনার মধ্যে ৫০০ কোটি টাকার আমানত তুলে নিয়েছে সরকারি ও আধা সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। মূলত সরকারি কর্মকর্তারা নিরাপদ থাকতে চান। এ কারণেই হয়তো এমনটি হয়েছে। তবে কোনো সাধারণ আমানতকারী টাকা তুলে নেওয়ার ঘটনা ঘটেনি। এ ছাড়া এমন কোনো ঘটনাও নেই যে আমানতকারী অর্থ চেয়ে ফেরত পাননি। যদিও ফারমার্স ব্যাংক নিয়ে গণমাধ্যমে যেসব সংবাদ আসে সেখানে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের নাম জুড়ে দেওয়া হয়।

চেয়ারম্যান বলেন, ‘এই ব্যাংকের কোনো পরিচালকের নামে ঋণ নেই। তবে পরিচালকদের সুপারিশে কিছু ঋণ বিতরণ হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী পরিচালকদের সুপারিশে ঋণ দেওয়ার সুযোগ নেই। যে কারণে এসব ঋণ এরই মধ্যে ‘কল ব্যাক’ তথা মেয়াদ পূর্তির আগেই ফেরত চাওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে ১০০ কোটি টাকা ফেরত এসেছে। আরো ১৫০ কোটি টাকা আগামী ছয় মাসের মধ্যে ফেরত আসবে। যদিও এসব ঋণের একটিও অনিয়মিত বা শ্রেণীকৃত নয়।’


মন্তব্য