kalerkantho


আকুর লেনদেনে ইউরো ফের চালু হলো

নতুন করে যোগ হলো জাপানি ইয়েন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আকুর লেনদেনে ইউরো ফের চালু হলো

বাংলাদেশসহ পার্শ্ববর্তী ৯টি দেশের অলিখিত বাণিজ্য জোট এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের (আকু) মধ্যকার লেনদেনসংক্রান্ত দেনা পরিশোধের ক্ষেত্রে বিদেশি মুদ্রা হিসেবে ইউরোর ব্যবহার ফের চালু করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

পাশাপাশি জাপানি ইয়েনেও আকুর দেনা পরিশোধে ব্যবহারের সুযোগ দিয়েছে সংস্থাটি। ফলে এখন থেকে আকুর দেনা পরিশোধে ইউএস ডলার, ইউরো এবং জাপানি ইয়েন এই তিনটি বিদেশি মুদ্রা ছাড় করতে পারবে এডি ব্যাংকগুলো।

গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগ থেকে এসংক্রান্ত এক সার্কুলার জারি করে বিদেশি মুদ্রায় লেনদেনে নিয়োজিত এডি ব্যাংকগুলোকে পাঠানো হয়। বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন নীতিমালা ২০০৯-এর ৩ অধ্যায়ের ২ অনুচ্ছেদের আলোকে ২০১৬ সালের ২৭ জুলাই এডি ব্যাংকগুলোকে আকুর দেনা পরিশোধের ক্ষেত্রে ইউরোর ব্যবহার-পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখতে বলে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর পর থেকে শুধু ইউএস ডলারে আকুর দেনা পরিশোধ করে আসছে এডি ব্যাংকগুলো।

গতকালের সার্কুলারে আকুর দেনা পরিশোধের ক্ষেত্রে ইউরোর ব্যবহার পুনঃপ্রবর্তনের পাশাপাশি জাপানি ইয়েনের ব্যবহার চালু হওয়ায় আকুর দেনা পরিশোধে তিনটি মুদ্রা চালু থাকল। ২০১৬ সালের জুলাইয়ে ব্রেক্সিটের প্রভাবে ইউরোর দরপতনের পর জার্মানির কেন্দ্রীয় ব্যাংক ডয়েসে বুন্দেস ব্যাংকের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে ভারত, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ আকুর দেনা পরিশোধের ক্ষেত্রে ইউরোর লেনদেন বন্ধ করে দেয়। এশিয়া অঞ্চলের ৯টি দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সমন্বয়ে গড়ে ওঠা বৈদেশিক লেনদেন নিষ্পন্ন জোট আকু। সদস্য দেশগুলোর মধ্যে সহজে লেনদেন নিষ্পন্ন করার তাগিদ থেকে ১৯৭৪ সালে এ সংস্থা গড়ে তোলা হয়। প্রতিষ্ঠাকালে এর সদস্যসংখ্যা ছিল ছয়টি। প্রতিষ্ঠাতা সদস্যগুলো হচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক, রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া (ভারত), সেন্ট্রাল ব্যাংক অব দ্য ইসলামিক ব্যাংক অব ইরান, নেপাল রাষ্ট্র ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অব পাকিস্তান, সেন্ট্রাল ব্যাংক অব শ্রীলঙ্কা। ১৯৭৭ সালে সেন্ট্রাল ব্যাংক অব মিয়ানমার, ১৯৯৯ সালে রয়্যাল মনিটারি অথরিটি অব ভুটান এবং ২০০৯ সালে মালদ্বীপ রয়্যাল মনিটারি অথরিটি আকুতে যোগ দেয়।


মন্তব্য