kalerkantho


এশিয়া ও ওশেনিয়ায় অস্ত্র আমদানি বেড়েছে ৪২%

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



এশিয়া ও ওশেনিয়ায় অস্ত্র আমদানি বেড়েছে ৪২%

যুদ্ধ ও ভূ-রাজনৈতিক উত্তেজনায় বিশ্বজুড়ে বেড়েছে অস্ত্র বাণিজ্য। এর মধ্যে বেশি অস্ত্র আমদানি করেছে এশিয়া ও ওশেনিয়া অঞ্চল। সবচেয়ে বড় আমদানিকারক ভারত এবং রপ্তানিকারক যুক্তরাষ্ট্র। গত সোমবার এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরেছে স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিচ রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এসআইপিআরআই)।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র আমদানি হয়েছে এশিয়া ও ওশেনিয়া অঞ্চলে। ২০১৩-১৭ সময়ে আগের পাঁচ বছরের চেয়ে ৪২ শতাংশ বেশি অস্ত্র আমদানি করেছে এ অঞ্চল। এর মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে বড় আমদানিকারক দেশ ভারত। দেশটির অস্ত্র আমদানির ৬২ শতাংশই এসেছে রাশিয়া থেকে। এর পাশাপাশি বিশ্বের সবচেয়ে বড় অস্ত্র রপ্তানিকারক দেশ যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভারতে গত পাঁচ বছরে অস্ত্র রপ্তানি বেড়েছে ছয় গুণ।

এসআইপিআরআইয়ের গবেষক সিমন ওয়েজম্যান বলেন, পাকিস্তান ও চীনের সঙ্গে ভারতের ক্রমবর্ধমান যুদ্ধ উত্তেজনায় দেশটির সমরাস্ত্র আমদানি বেড়েছে। অন্যদিকে চীন নিজেই বৃহৎ অস্ত্র উত্পাদন করতে সক্ষম। দেশটি অস্ত্র সরবরাহের মাধ্যমে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সঙ্গে তার রাজনৈতিক সম্পর্ক আরো জোরদার করছে। গত পাঁচ বছরে চীনের অস্ত্র রপ্তানি বেড়েছে ৩৮ শতাংশ। দেশটি মিয়ানমারের সবচেয়ে বড় অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ। মিয়ানমারের অস্ত্র চাহিদার ৬৮ শতাংশই আসে চীন থেকে। এ ছাড়া বাংলাদেশের অস্ত্র আমদানির ৭১ শতাংশ এবং পাকিস্তানের আমদানির ৭০ শতাংশ আসে চীন থেকে।

এসআইপিআরআই একটি স্বাধীন প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিশ্বজুড়ে অস্ত্র সরবরাহ পর্যবেক্ষণ করে। প্রতিবেদনে সংস্থা জানায়, ২০১৩-১৭ সময়ে যুদ্ধবিদ্ধস্ত মধ্যপ্রাচ্যে অস্ত্র আমদানি দ্বিগুণ হয়েছে। এ অঞ্চলে অস্ত্র আমদানি ১০৩ শতাংশ বেড়েছে আগের পাঁচ বছরের তুলনায়। বলা হয়, বিশ্বে অস্ত্র আমদানির ৩২ শতাংশই ক্রয় করেছে মধ্যপ্রাচ্য।

ভারতের পরে দ্বিতীয় বৃহৎ অস্ত্র আমদানিকারক দেশ সৌদি আরব। দেশটি সম্প্রতি ইয়েমেনে ইরান সমর্থিত হুতি বিদ্রোহী বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়ছে। দেশটির অস্ত্র আমদানির ৯৮ শতাংশই আসে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় দেশগুলো থেকে। এএফপি।


মন্তব্য