kalerkantho


পুঁজিবাজারে সূচক ও লেনদেন ঊর্ধ্বমুখীই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



শেয়ার কেনার চাপে দেশের পুঁজিবাজারে সূচক ও লেনদেনে ঊর্ধ্বমুখিতা অব্যাহত রয়েছে। প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন আগের দিনের চেয়ে ২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে এক হাজার ১০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। আর সূচকও বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্য বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বাড়লেও লেনদেন আগের দিনের চেয়ে কিছুটা হ্রাস পেয়েছে।

সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস গতকাল বুধবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে এক হাজার ১১৫ কোটি ২৯ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে প্রায় ৮ (৭.৯৮) পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৮৮ কোটি টাকা। আর সূচক বেড়েছিল ৩০ পয়েন্ট।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর থেকেই শেয়ার কেনার চাপে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হয়। দুপুর পৌনে ১২টা পর্যন্ত পুঁজিবাজারে বড় উত্থান হয়। তবে এই সময়ের পর থেকেই শেয়ার বিক্রির চাপে সূচক কমলে, ঊর্ধ্বমুখিতার মধ্য দিয়েই দিনের লেনদেন শেষ হয়েছে। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৩৭৯ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৯১৫ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে এক হাজার ২৬৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া ৩৪১টি কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৫৩টির, কমেছে ১৫৭টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩১টি কম্পানির শেয়ার দাম।

ব্যাংক খাতের ৩০ কম্পানির মধ্যে ২৩ কম্পানি বা ৭৬ শতাংশ কম্পানির শেয়ার দাম বৃদ্ধি পেয়েছে, আর দাম কমেছে পাঁচটি বা ১৬.৬৬ শতাংশ। আর অপরিবর্তিত রয়েছে দুই কম্পানি বা ৬.৬৬ শতাংশ কম্পানির। ডিএসইতে লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে বসুন্ধরা পেপার মিলস। কম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৩৯ কোটি ৯৮ লাখ টাক। দ্বিতীয় স্থানে থাকা পেনিনসুলা চিটাগাংয়ের লেনদেন হয়েছে ৩৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা। আর তৃতীয় স্থানে থাকা আরএসআরএম স্টিলের লেনদেন হয়েছে ৩২ কোটি ২৭ লাখ টাকা।



মন্তব্য