kalerkantho


শিকলবন্দি হয়ে শাওনের দিন কাটে

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



শিকলবন্দি হয়ে শাওনের দিন কাটে

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় শিকলবন্দি সুমন হাসানাত শাওন। ছবি : কালের কণ্ঠ

২২ বছরের তরুণ সুমন হাসানাত শাওন। এক মাস আগেও তিনি ওয়ার্কশপের মিস্ত্রি হিসেবে কঠোর পরিশ্রম করে উপার্জন করতেন প্রতিবন্ধী বাবা মো. শহীদ হোসেন, মা জেসমিন বেগম ও স্ত্রীর জন্য। এখন তাঁর দিন কাটে ঘরে শিকলবন্দি হয়ে।

গতকাল সোমবার বিকেলে কলাপাড়া উপজেলা পরিষদ চত্বরের পাশে একটি টিনশেড ঘর থেকে এক যুবকের কণ্ঠে ভেসে আসছিল বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের খণ্ডাংশ। ঘরে ঢুকে দেখা গেল, তাঁকে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছে। কারণ জানতে চাইলে শাওনের মা-বাবা বলেন, তাঁদের পরিবারের বড় ছেলে শাওন ২২-২৩ দিন আগে অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করেন। তাঁদের ধারণা, শাওন মাদকাসক্ত হয়ে অপ্রকৃতিস্থ আচরণ করতে থাকেন; পড়শি, বন্ধু-বান্ধবকে গালাগাল, কখনো মারধর করেন। এ জন্য অনেকে তাঁকে বেধড়ক পিটিয়েছে। তাঁর শরীরে অসংখ্য ক্ষতের দাগ। উপায় না দেখে অসহায় মা-বাবা তাঁকে বেঁধে রেখেছেন। তিনি ঠিকমতো খান না, ঘুমান না। গালাগাল করেন। তাঁরা জানান, শাওন বঙ্গবন্ধুর ভাষণও দেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে চান। নিজেকে ছাত্রলীগের নেতা দাবি করেন। কাগজ পেলেই বক্তব্য দেওয়ার কথা বলে লিখতে থাকেন।

পরিবার ও প্রতিবেশীদের ধারণা, বন্ধুমহলে মিশে মাদকাসক্ত হয়ে শাওনের এই অবস্থা হয়েছে। তাঁর দ্রুত চিকিৎসা প্রয়োজন। কিন্তু মা-বাবার পক্ষে চিকিৎসার ব্যয় চালানো সম্ভব নয়। প্রাথমিক পর্যায়ে অন্তত ৫০ হাজার টাকা প্রয়োজন বলে জানান স্থানীয় কাউন্সিলর উম্মে তামিমা বিথি।

স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মো. মাহবুবুর রহমান জানান, শাওনকে দ্রুত মাদক নিরাময় কেন্দ্রে পাঠানো উচিত। যথাযথ চিকিৎসাসহ পুনর্বাসন করা হলে তিনি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারেন।


মন্তব্য