kalerkantho


মির্জাগঞ্জে গৃহবধূর কবজি কেটে নিল দুর্বৃত্তরা

বরিশাল অফিস ও পটুয়াখালী প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



মির্জাগঞ্জে গৃহবধূর কবজি কেটে নিল দুর্বৃত্তরা

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার গোলখালী গ্রামে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সোমবার রাতে এক গৃহবধূর ডান হাতের কবজি কেটে বিচ্ছিন্ন করেছে প্রতিপক্ষরা। আসমা বেগম (৩২) নামের ওই গৃহবধূকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়া হাতের কবজিটি উদ্ধার করেছে।

আসমা বেগমের শাশুড়ি হোসনে আরা বেগম (৫৫) বলেন, ‘তাঁর ছেলে মো. সোহাগ ফরাজীর স্ত্রী আসমা প্রায় এক সপ্তাহ আগে তাদের বাড়িসংলগ্ন একটি জমি থেকে মাটি কাটে। তখন প্রতিবেশী আব্দুল আজিজ সিকদারের সঙ্গে তার কথা-কাটাকাটি হয়। এতে আজিজ সিকদার অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়। সোমবার রাতে আজিজ ও তার দুই ছেলে কবির ও আল আমিন আসমার ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় আসমার স্বামী সোহাগ ঘরে ছিল না। তারা ঘরে প্রবেশ করে আসমার সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় করে এবং তাদের হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র (দা) দিয়ে আসমার ডান হাতের কবজি কেটে ফেলে। ওই সময় আসমার দুই শিশুসন্তান ছাড়া ঘরে আর কেউ ছিল না। ঘটনার পরপরই হামলাকারীরা দ্রুত পালিয়ে যায়।

আসমার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ’

খবর পেয়ে ওই রাতেই পুলিশ আসমার বিচ্ছিন্ন হাতের কবজিটি উদ্ধার করে। পাশাপাশি অভিযান চালিয়ে আজিজ সিকদার এবং তাঁর ছেলে আল আমিনকে গ্রেপ্তার করে।

মির্জাগঞ্জ থানার ওসি মো. মনির হোসেন বলেন, ‘ওই গৃহবধূর শাশুড়ি হোসনে আরা বেগম বাদী হয়ে তিন বাপবেটাসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরো তিন-চারজনকে  আসামি করে মামলা করেছেন। আমরা দুজনকে ওই রাতেই গ্রেপ্তার করেছি। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ’


মন্তব্য