kalerkantho


মানিকগঞ্জ আফতাব উদ্দিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়

বাঁধভাঙা আনন্দে পুনর্মিলনী

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি   

৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বাঁধভাঙা আনন্দে পুনর্মিলনী

মানিকগঞ্জের আফতাব উদ্দিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি দিলারা মোস্তফার হাতে সম্মাননা তুলে দিচ্ছেন বিশিষ্ট আইনজীবী শামসুর রহমান। ছবি : কালের কণ্ঠ

বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, স্মৃতিচারণা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উদ্যাপিত হলো মানিকগঞ্জ আফতাব উদ্দিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের পুনর্মিলনী। প্রতিষ্ঠার পর এটিই ছিল স্কুলটির প্রথম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান। এ কারণে সাবেক ও বর্তমান শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের মধ্যে আবেগ আর আনন্দের প্রকাশ ছিল বাঁধভাঙা।

৩৪ বছর এই স্কুলে শিক্ষকতা করে গত ২০১২ সালে অবসরে যান হিরালাল রায়। দাওয়াত পেয়ে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে এসেছিলেন এই প্রবীণ শিক্ষক। অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে তিনি বলেন, এর আগে এই স্কুলে এ ধরনের অনুষ্ঠান আর হয়নি। অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে অনেক পুরনো ছাত্র-ছাত্রী ও সহকর্মীদের সঙ্গে দেখা হওয়ায় তাঁর খুব ভালো লেগেছে বলে জানান। বললেন, এমন একটি অনুষ্ঠান না হলে হয়তো এদের অনেকের সঙ্গে আর দেখাই হতো না। তিনি ধন্যবাদ দিলেন আয়োজকদের।

বর্তমান প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন তাঁর বক্তব্যে ধন্যবাদ দেন এই স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান সহযোগী আফতাব উদ্দিন পরিবারকে। এই পরিবারের প্রতিটি মানুষকে সত্যিকারের শিক্ষানুরাগী উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাঁদের সহযোগিতায় দিনে দিনে স্কুলটি পূর্ণাঙ্গ রূপ পেয়েছে।

সকাল সাড়ে ৮টায় টি-শার্ট বিতরণের মাধ্যমে সূচনা হয় পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের। এরপর পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত, গীতা পাঠ, জাতীয় সংগীত পরিবেশন, পতাকা উত্তোলন ও পায়রা অবমুক্ত করে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। সকাল ১০টায় বর্ণাঢ্য একটি শোভাযাত্রা প্রদক্ষিণ করে পুরো শহর। দুপুরে খাবারের বিরতি দিয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি দিলারা মোস্তফার সভাপতিত্বে স্মৃতিচারণা শুরু হয় বিকেল ৩টা থেকে।

স্মৃতিচারণা শেষে সাবেক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান করেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি দিলারা মোস্তফা। পরে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন মানিকগঞ্জের বিশিষ্ট আইনজীবী ও সমাজসেবক আফতাব উদ্দিন। বর্তমানে স্কুলটি সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে পরিচালনা করছেন তাঁর বড় মেয়ে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের সহধর্মিণী আফরোজা বেগম, ছেলে বসুন্ধরা গ্রুপের প্রধান উপদেষ্টা মাহবুব মোর্শেদ হাসান রুনু ও ছোট মেয়ে মাগুরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান দিলারা মোস্তফা। দিলারা মোস্তফা স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিরও দয়িত্ব পালন করছেন।

দিলারা মোস্তফা অনুভূতি জানিয়ে বলেন, ‘আমার বাবা এই স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এলাকার শিক্ষার উন্নয়নে। তাঁর অনুপস্থিতিতে আমরা সেই ধারা অব্যাহত রাখার চেষ্টা করছি। এতে সহযোগিতা করছে বসুন্ধরা গ্রুপ।’ তিনি বলেন, অদূর ভবিষ্যতে স্কুলটিকে কলেজে রূপান্তর করার পরিকল্পনা রয়েছে।


মন্তব্য