kalerkantho


প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত আজ

জিকির-আজকার মূল্যবান বয়ানে পার দ্বিতীয় দিন

মো. মাহবুবুল আলম, টঙ্গী (গাজীপুর)   

১৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



জিকির-আজকার মূল্যবান বয়ানে পার দ্বিতীয় দিন

দূরদূরান্ত থেকে আসা ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের বিশ্ব ইজতেমায় আখেরি মোনাজাতের প্রস্তুতি। ছবি : কালের কণ্ঠ

তুরাগ নদের তীরে বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে তিল ধারণের ঠাঁই নেই। মূল প্যান্ডেলের বাইরে আশপাশের এলাকায়ও মানুষ আর মানুষ। সবার মুখে আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ। তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বিদের বয়ান, মুসল্লিদের নফল নামাজ, তাসবিহ তাহলিল, জিকির-আজকারে গতকাল শনিবার বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দিন অতিবাহিত হয়েছে। আজ রবিবার জোহরের নামাজের আগে যেকোনো সময় আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে প্রথম পর্ব। এবার আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করা হবে বাংলায়। দিল্লির শীর্ষ মুরব্বি মাওলানা সা’দ কান্ধলভির অবর্তমানে এবার আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন কাকরাইল জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা জুবায়ের আহমদ। গতকাল বাদ ফজর কুয়েতের মাওলানা শায়েখ ইব্রাহিম রেপাইর বয়ানের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দিনের বয়ান শুরু হয়। বাদ জোহর বয়ান করেন সুদানের মাওলানা ড. মো. জাহাদ। বাদ আসর বয়ান করেন বাংলাদেশের মাওলানা মো. নূর-উর-রহমান। বাদ মাগরিব বয়ান করেন মাওলানা মোহাম্মদ ফারুক।

দ্বিতীয় দিনেও ইজতেমাস্থলে মুসল্লিদের যোগদান অব্যাহত রয়েছে। বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে শিল্পনগরী টঙ্গী এখন ধর্মীয় নগরীতে পরিণত হয়েছে। মুরব্বিদের বয়ান চলাকালে পুরো ইজতেমা ময়দানে নেমে আসে পিনপতন নীরবতা। তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশা উপেক্ষা করে আল্লাহর সান্নিধ্য লাভের আশায় মুসল্লিরা গভীর মনোযোগ দিয়ে শুনছে মুরব্বিদের মূল্যবান বয়ান। ইজতেমা সূত্রে জানা গেছে, দ্বিতীয় দিনে মুরব্বিরা হেদায়েত ও তাশকিলের বয়ান করেছেন।

আগামী ১৯ জানুয়ারি শুরু হবে তিন দিনের দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা। দ্বিতীয় পর্বে যোগ দেবেন দেশের আরো ১৬টি জেলার মুসল্লিরা। এ বছর দুই পর্বে ৩২ জেলার ইজতেমা শেষ হওয়ার পর আগামী বছর বাকি ৩২ জেলার মুসল্লিরা অংশ নেবে।

বাংলায় আখেরি মোনাজাত পরিচালনার সিদ্ধান্ত : বিশ্ব ইজতেমায় এবারই প্রথম আখেরি মোনাজাত বাংলায় পরিচালনা করা হবে। মোনাজাতের আগে হেদায়াতি বয়ানও হবে বাংলায়। বিশ্ব ইজতেমার মুরব্বি প্রকৌশলী মো. গিয়াস উদ্দিন জানান, শুক্রবার রাতে তাবলিগ জামাতের মুরব্বিদের এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে এবার আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন কাকরাইল মসজিদের পেশ ইমাম ও শুরা সদস্য হাফেজ মাওলানা জুবায়ের আহমদ। আখেরি মোনাজাতের আগে হেদায়াতি বয়ান করবেন বাংলাদেশের মাওলানা আব্দুল মতিন। আজ সকাল ১১টা থেকে সাড়ে ১২টার মধ্যে আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হতে পারে। দীর্ঘদিন ইজতেমায় আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেছেন দিল্লির মাওলানা যোবায়েরুল হাসান। ২০১৪ সালে তাঁর ইন্তেকালের পর আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করতেন মাওলানা সা’দ কান্ধলভি। আলেমদের প্রবল বিরোধিতার মুখে তাঁকে দিল্লি ফিরে যেতে হয়েছে। ফলে এবার আখেরি মোনাজাত পরিচালনার দায়িত্ব বর্তেছে হাফেজ মাওলানা জুবায়ের আহমদের ওপর।

আরো এক বিদেশিসহ দুই মুসল্লির মৃত্যু : বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের দ্বিতীয় দিন গতকাল শনিবার পর্যন্ত চার মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে নুরহান বিন আব্দুর রহমান (৫৫) নামের এক বিদেশি মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। তাঁর বাড়ি মালয়েশিয়ায়। এ ছাড়া লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চরবাইতা গ্রামের শামছুল হকের ছেলে মো. রফিকুল ইসলাম (৫৪) নামের অন্য একজনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

২০১৯ সালের ইজতেমা ১১ জানুয়ারি : আগামী বছর বিশ্ব ইজতেমা শুরু হবে ১১ জানুয়ারি। শুক্রবার রাতে কাকরাইল মসজিদে তাবলিগের মুরব্বিদের এক পরামর্শ সভায় ওই তারিখ নির্ধারণ করা হয় বলে প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন জানিয়েছেন। তিনি বলেন, তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বিদের সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব ১১, ১২ ও ১৩ জানুয়ারি এবং দ্বিতীয় পর্ব ১৮, ১৯ ও ২০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে।

হারানো ও প্রাপ্তি : ইজতেমা মাঠের পশ্চিম দিকে হারানো ও প্রাপ্তি সেন্টার খোলা হয়েছে। ময়দানে কেউ কিছু হারালে ও কিছু পাওয়া গেলে সেখানে জানাতে বলা হয়েছে।

হচ্ছে না যৌতুকবিহীন বিয়ে : টঙ্গী ইজতেমা ময়দানের জিম্মাদার প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন জানান, প্রতিবছর যেভাবে আনুষ্ঠানিকতা পালন করে যৌতুকবিহীন বিয়ে হতো, গত বছর থেকে এ ব্যবস্থা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যৌতুকবিহীন বিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার মসজিদে মসজিদে হবে বলে জানান তিনি।

ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের গাড়ি পার্কিং : আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে আসা মুসল্লিদের সুবিধার্থে ঢাকা পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স নির্ধারিত স্থানে গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা নিয়েছে।

ঢাকা মহানগর এলাকা : চট্টগ্রাম বিভাগের মুসল্লিরা উত্তরা গাউছুল আজম এভিনিউ (১৩ নম্বর সেক্টর রোডের পূর্ব প্রান্ত থেকে পশ্চিম প্রান্ত হয়ে গরীবে নেওয়াজ রোড), ঢাকা বিভাগের মুসল্লিরা সোনারগাঁও জনপথ চৌরাস্তা থেকে দিয়াবাড়ী খালপাড় পর্যন্ত, সিলেট বিভাগের মুসল্লিরা উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টর শাহমখদুম এভিনিউ, খুলনা বিভাগের মুসল্লিরা উত্তরা ১৬ ও ১৭ নম্বর সেক্টরের খালি জায়গা, রংপুর বিভাগের মুসল্লিরা কামারপাড়া ট্রাকস্ট্যান্ড ও ১০ নম্বর সেক্টরের খালি জায়গা, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের মুসল্লিরা প্রত্যাশা হাউজিং, বরিশাল বিভাগ থেকে আসা মুসল্লিরা ধউড় ব্রিজ ক্রসিংসংলগ্ন পার্কিং (আশা বিশ্ববিদ্যালয়ের খালি জায়গা) এবং বিআইডাব্লিউটিএ ল্যান্ডিং স্টেশন এবং ঢাকা মহানগরীর মুসল্লিদের বহনকারী যানবাহন উত্তরা শাহজালাল এভিনিউ, নিকুঞ্জ-১ এবং নিকুঞ্জ-২-এর আশপাশের খালি জায়গায় পার্কিং করতে বলা হয়েছে।

এদিকে গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা হয়ে আসা মুসল্লিদের বহনকারী যানবাহন পার্কিংয়ের জন্য ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক পরিহার করে টঙ্গীর কাদেরিয়া টেক্সটাইল মিলস কম্পাউন্ড, মেঘনা টেক্সটাইল মিলের পাশের রাস্তার উভয় পাশ, টঙ্গী সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি অ্যান্ড কলেজ মাঠ, গাজীপুরের ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজ মাঠ, জয়দেবপুর চৌরাস্তা তেলিপাড়ার ট্রাকস্ট্যান্ড, চান্দনা চৌরাস্তা হাই স্কুল মাঠ এবং নরসিংদী-কালীগঞ্জ হয়ে আসা মুসল্লিদের বহনকারী যানবাহন টঙ্গী রেলওয়েসংলগ্ন পাশের খোলা স্থান এবং নিমতলীসংলগ্ন খালি জায়গা ব্যবহার করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


মন্তব্য