kalerkantho


ওবায়দুল কাদের বললেন

খালেদা জিয়ার মুক্ত হওয়ার বিষয়টি আদালতের ব্যাপার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



খালেদা জিয়ার মুক্ত হওয়ার বিষয়টি আদালতের ব্যাপার

ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্ত হওয়ার বিষয়টি এখন সম্পূর্ণরূপে আদালতের ব্যাপার। আদালতের আদেশে তিনি দণ্ডিত হয়ে জেলে গিয়েছেন। খালেদা জিয়া যখন আপিল করবেন, আপিলের বিচারে তাঁকে মুক্তি দেওয়া যায় কি না, সেটা আদালত বিবেচনা করতে পারেন। এখানে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করেনি, এমনকি ভবিষ্যতেও করবে না।’

গতকাল দুপুরে রাজধানীর র‌্যাডিসন হোটেলের সামনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আদালত যদি খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেন, সেখানে আমাদের কোনো অসুবিধা নেই। তারা একবার বলছে, যেকোনো পরিস্থিতিতে নির্বাচনে যাবে। আবার বলে খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচনে যাবে না। কোনটা ঠিক তাদের জিজ্ঞাসা করুন।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি চাই না বিএনপি ভাঙুক। বিএনপি একটা বড় দল। আমরা চাই না সেটা ভাঙুক। এই চেষ্টাও আমরা করব না।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপি নিজেরাই দায়ী এবং বিএনপির সংকট আমরা ঘনীভূত করব না, আমরা এখানে ফ্যাক্ট না। বিএনপির সাংগঠনিক অভ্যন্তরীণ সংকট ঘনীভূত করার জন্য তারেক জিয়াই যথেষ্ট।’

আগামী নির্বাচন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা নির্বাচনে বিএনপির মতো একটি বড় দলকে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য চাই। প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মজা না থাকলে ইলেকশনে মজা নেই। আমরা চাই, বিএনপি নির্বাচনে আসুক এবং ইলেকশনটা প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হোক।’

বিএনপির গণ-আন্দোলনের ডাক দেওয়া প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, জনগণ বিএনপির সঙ্গে নেই। আন্দোলন সফল হবে না। আন্দোলনের হাঁকডাক তাঁরা যেভাবে দেন, তাতে জনগণ সাড়া না দিলে তো গণ-আন্দোলন হবে না। ৯ বছর তারা বারবার ডাক দিয়েছে, জনগণ সাড়া দেয়নি। যে আন্দোলনে তারা নিজেরাই অংশ নেয় না, সেখানে জনগণ কেমন করে আসবে? বিএনপি ভেবেছিল, খালেদা জিয়া কারাগারে গেলে লাখ লাখ লোক রাস্তায় নেমে আসবে, সারা দেশের মানুষ নেমে আসবে। জনগণ কি রাস্তায় নেমেছে খালেদা জিয়ার জন্য?


মন্তব্য