kalerkantho


বিএনপির অনশন কর্মসূচি

শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে নেত্রীকে মুক্ত করা হবে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে নেত্রীকে মুক্ত করা হবে

গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির গণ-অনশন কর্মসূচি। ছবি : কালের কণ্ঠ

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গণ-অনশন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। গতকাল বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এসব কর্মসূচি পালন করা হয়। তবে বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া কোথাও কোনো সংঘাতের খবর পাওয়া যায়নি।

গতকাল সকাল থেকে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন কর্মসূচি শুরু করে বিএনপি। তবে পুলিশের অনুরোধে অনশন শুরুর তিন ঘণ্টা পর অর্থাৎ দুপুর ১টায় অনশন শেষ করে তারা। অনশন চলার সময় প্রেস ক্লাবের সামনের রাস্তা প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় পুলিশ সদস্যরা রাস্তা থেকে ভিড় সরানোর চেষ্টা করেন।

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে নেতারা বলেন, শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবেন তাঁরা। নেত্রীকে মুক্ত না করা পর্যন্ত তাঁরা কাউকে ঘুমাতে দেবেন না। আগামী দিনের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াই হবেন বলে মন্তব্য করেন নেতারা।

এদিকে ঢাকার বাইরে বিভিন্ন স্থানে কেন্দ্র ঘোষিত গণ-অনশন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। বিস্তারিত আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক, আঞ্চলিক অফিস ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে— 

রাজধানীতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন : দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে পুলিশের অনুরোধে তিন ঘণ্টায় অনশন শেষ করেছে বিএনপি। দুপুর ১টায় অনশনের সমাপ্তি টেনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমরা এই অনশন কর্মসূচি থেকে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি এবং সব ধরনের নির্যাতনমূলক কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের অনশন কর্মসূচি ৪টা পর্যন্ত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কর্তৃপক্ষের অনুরোধে আমরা এটা ১টা পর্যন্ত করে দিয়েছি।

পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন এবং নেতাদের পানি পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করান।’

অনশনে স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘সরকার চক্রান্ত করে খালেদা জিয়াকে বাইরে রেখে নির্বাচন করতে চায়। বেগম জিয়া ছাড়া এ দেশের কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না।’

স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমরা সরকারকে জানিয়ে দিতে চাই, আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেই আমাদের নেত্রীকে মুক্ত করে আনব।’

স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, ‘দেশনেত্রীকে বন্দি করা হয়েছে, আজ পর্যন্ত তাঁর রায়ের কাগজ দেওয়া হয়নি। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রায়ের কপি পাওয়ার কথা। দীর্ঘসূত্রতা করে তাঁকে আটকে রাখার ষড়যন্ত্র করছে।’ 

মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল বলেন, জাতীয়তাবাদী দেশপ্রেমিক সৈনিক একজন বেঁচে থাকতে ষড়যন্ত্রকারীরা কেউ পার পাবে না। আমাদের চেয়ারপারসন কারাগারে ঘুমাতে পারছেন কি না জানি না। আমরা ঘুমাতে পারছি না। আর আমরা যদি ঘুমাতে না পারি তাহলে কাউকে ঘুমাতে দেব না।’

২০ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ বলেন, ‘খালেদা জিয়া শুধু কারাগারে নন, ১৬ কোটি মানুষ আজ কারাগারে। তাঁকে ছাড়া কোনো রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করা যাবে না। আমার নেত্রী প্রধানমন্ত্রী হবেন বাংলাদেশের ইনশাআল্লাহ।’ 

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সকাল ১০টা থেকে কয়েক হাজার নেতাকর্মী ফুটপাতে মাদুরে বসে দলের চেয়ারপারনের মুক্তির দাবিতে প্রতীক অনশনে বসেন। অনশনের শেষ দিকে প্রচণ্ড ভিড় ডিঙিয়ে জামায়াতের অধ্যাপক আবদুল হালিমকে অনশনস্থলে দুই মিনিট থেকে নেতাদের সঙ্গে করমর্দন করেই চলে যেতে দেখা যায়।

ঢাকার বাইরে অনশন কর্মসূচি পালন : গতকাল সকালে বরিশাল নগরীর অশ্বিনীকুমার হলে অনশন কর্মসূচি পালন করে জেলা ও মহানগর বিএনপি। সিলেট রেজিস্ট্রারি মাঠে পুলিশের বাধার কারণে নির্ধারিত সময়ের চার ঘণ্টা আগে দিনব্যাপী অনশন কর্মসূচি শেষ করে সিলেট বিএনপি।

নওগাঁয় শহরের নওজোয়ান মাঠের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে প্রেস ক্লাবের সামনে কর্মসূচি পালন করে সরাইল উপজেলা বিএনপি। গাইবান্ধা জেলা বিএনপির উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ের সামনে কর্মসূচি পালন করা হয়। মাগুরা উপজেলা পরিষদ এলাকায় কর্মসূচি পালন করেছে জেলা বিএনপি। ঝালকাঠি শহরের ফায়ার সার্ভিস সড়কের দলীয় কার্যালয়ে কর্মসূচি পালন করে জেলা বিএনপি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের পাঠানপাড়ায় বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করা হয়। জামালপুর শহরের স্টার কমিউনিটি সেন্টারের সামনে বিএনপির উদ্যোগে কর্মসূচি পালন করে বিএনপি।

গাজীপুর শহরের রাজবাড়ি সড়কে দলীয় কার্যালয়ে কর্মসূচি পালন করে জেলা বিএনপি। মেহেরপুরে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। চুয়াডাঙ্গা শহরের সাংবাদিক সমিতি কার্যালয়ের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। রাজবাড়ীতে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে অনশন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এ সময় দলীয় কার্যালয়ের বাইরে থেকে বিএনপির চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

 


মন্তব্য