kalerkantho


সাত স্থানে সড়কে নিহত ৮, আহত অর্ধশতাধিক

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



সাত স্থানে সড়কে নিহত ৮, আহত অর্ধশতাধিক

দেশের সাতটি স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় আটজন নিহত হয়েছে; দুটি বাস খাদে পড়ে আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক যাত্রী। এর মধ্যে রংপুরের মিঠাপুকুরে প্রাইভেট কার দুর্ঘটনায় চালকসহ দুজন নিহত হয়েছেন। আখাউড়া, নাটোরের বড়াইগ্রাম ও শ্রীমঙ্গলে পৃথক দুর্ঘটনায় তিনজন মোটরসাইকেলচালক নিহত হয়েছেন। দিনাজপুরে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়েছেন কলেজছাত্রীসহ দুজন। ঝালকাঠির নলছিটিতে সিমেন্টভর্তি ট্রলি উল্টে নিহত হয়েছেন চালক। অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে দুটি বাস খাদে পড়ে আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক যাত্রী। বিস্তারিত আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে—

গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রংপুরের মিঠাপুকুর-ফুলবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের ফকিরহাট নামক স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় দিনাজপুর সদর উপজেলা যুবলীগের সহসভাপতি মোস্তাফিজার রহমান ফিজারসহ দুজন নিহত হন। নিহত মোস্তাফিজার রহমান শ্বশুরবাড়ি মিঠাপুকুরের ছড়ান এলাকা থেকে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে রংপুরে যাচ্ছিলেন। তিনি নিজেই ছিলেন চালকের আসনে। পথে ফকিরহাট এলাকায় গাড়ির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন তিনি। প্রাইভেট কারটি পথচারী আলেফ উদ্দিনকে (৬৫) চাপা দিয়ে পাশের একটি বাড়ির ভেতরে ঢুকে পড়ে। গাড়িটিতে আগুন ধরে গেলে স্থানীয়রা তা নিভিয়ে আরোহীদের উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ফিজার ও আলেফ উদ্দিনের। প্রাইভেট কারের অন্য যাত্রীরা সুস্থ আছে। স্বজনদের আবেদনে লাশ দুটি ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মিঠাপুকুর থানার ওসি মোজাম্মেল হক। নিহত মোস্তাফিজারের বাড়ি দিনাজপুর জেলা সদরের বড়াইপুর গ্রামে। আর আলেফ উদ্দিনের বাড়ি মিঠাপুকুর উপজেলার চেংমারী ইউনিয়নে।

নাটোরের বড়াইগ্রামে নাটোর-পাবনা মহাসড়কে ট্রাকচাপায় মন্তাজ আলী (৩০) নামের এক মোটরসাইকেলচালক নিহত হয়েছেন। এ সময় রাজু আহম্মেদ নামে আরোহী গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে জোয়াড়ী ইউনিয়নের কাচুটিয়া চেয়ারম্যান রোডে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মন্তাজ আলী বনপাড়া পৌরসভার সরদারপাড়া মহল্লার শহীদ পাটোয়ারীর ছেলে। যে ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়েছিল তা শনাক্ত করা যায়নি বলে জানিয়েছেন ঝলমলিয়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই শরিফুল ইসলাম।

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ফাতেমা বেগম (২০) নামের এক কলেজছাত্রী নিহত হয়েছেন। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় ফুলবাড়ী ঢাকা মোড়ে দুলাল মার্কেটের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফুলবাড়ী আদর্শ কলেজের ডিগ্রির ছাত্রী মোটরসাইকেলের পেছনে বসে বাসায় ফিরছিলেন। একটি ট্রাক পেছন থেকে ধাক্কা দিলে ফাতেমা ছিটকে রাস্তায় পড়েন এবং ট্রাকটি তাঁকে চাপা দিয়ে চলে যায়। ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। আহত মোটরসাইকেলচালককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পৃথক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন বাইসাইকেল আরোহী আব্দুল মজিদ (৫৫)। গতকাল সকালে ৬ নম্বর আউলিয়াপুর ইউনিয়নের করিমুল্লাপুর ডাইলার মোড় নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। শশরা ইউনিয়নের ফুলতলা জড়িয়াপাড়া গ্রাম থেকে মজিদ সাইকেল চালিয়ে দিনাজপুর শহরে যাচ্ছিলেন। রাস্তার পাশে বালুতে পিছলে তিনি বাইসাইকেলসহ পড়ে যান। তখন দ্রুতগামী একটি ট্রাক তাঁকে পিষ্ট করে চলে যায়।

এদিকে শ্রীমঙ্গলে গতকাল সকালে ঢাকা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কের শাহজিবাজার এলাকায় একটি ট্রাকের ধাক্কায় সরুফ মিয়া (৪৫) নামের এক মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় গতকাল দুপুরে ট্রাকচাপায় আল জাবা (২৯) নামের এক মোটরসাইকেলচালক নিহত হয়েছেন। তিনি সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে। আল জাবা মোটরসাইকেল চালিয়ে কুমিল্লার দিকে যাচ্ছিলেন। তখন বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক তাঁকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ যুবকের লাশ ও মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করেছে বলে জানান ধরখার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুস সোবহান। ঝালকাঠির নলছিটিতে সিমেন্টভর্তি ট্রলি উল্টে নিহত হয়েছেন চালক আলিম হাওলাদার (২২)। রবিবার রাত ৯টার দিকে নলছিটি-মোল্লারহাট সড়কের শেরেবাংলা বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আলিম রাজাপুর উপজেলার কাঠিপাড়া গ্রামের মকবুল হাওলাদারের ছেলে। বাকেরগঞ্জ উপজেলা থেকে ১২০ বস্তা সিমেন্ট নিয়ে

আলিম মোল্লারহাট যাচ্ছিলেন। হঠাত্ সামনের চাকা খুলে ট্রলিটি উল্টে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়। ঘটনাস্থলেই চালক আলিম নিহত হন।

ওদিকে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে গতকাল ভোর সাড়ে ৬টার দিকে গার্মেন্ট শ্রমিকবাহী দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের পর বাস দুটি খাদে পড়ে যায়। এতে অর্ধশতাধিক শ্রমিক আহত হয়েছে। আড়াইহাজার-জাঙ্গালিয়া সড়কের নৈকাহন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। উল্টে খাদে পড়া বাস তুলতে গিয়ে পুলিশের রেকারটিও উল্টে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়। দুটি বাসই ফকির ফ্যাশনের শ্রমিক পরিবহনে যুক্ত বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। গুরুতর আহত শফিকুল নামের একজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য