kalerkantho

ব্যক্তিত্ব

১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



ব্যক্তিত্ব

পাগলা কানাই

মরমি সাধক ও সংগীত রচয়িতা পাগলা কানাইয়ের জন্ম  ১৮০৯ সালের ৮ মার্চ বর্তমান ঝিনাইদহ জেলার লেবুতলা গ্রামে এক দরিদ্র কৃষক পরিবারে। তাঁর বাবার নাম কুড়ন শেখ এবং মা মোমেনা বিবি। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়। ভাইয়ের নাম উজ্জ্বল শেখ, বোন স্বরনারী। ছোটবেলা থেকেই তিনি দুরন্ত প্রকৃতির, পাগলাটে স্বভাবের এবং অধ্যাত্ম প্রেমে উদ্বুদ্ধ ছিলেন। এ খেয়ালিপনার জন্য শৈশবে স্নেহবশত লোকে তাঁর নামের সঙ্গে ‘পাগলা’ অভিধাটি যুক্ত করে দেয়। অল্প বয়সে মা-বাবাকে হারিয়ে বোনের আশ্রয়ে তাঁর বাল্য ও কৈশোর কাটে। তাঁর প্রকৃত নাম কানাই শেখ। তাঁর কোনো প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছিল না। তিনি কিছুকাল স্থানীয় নীলকুঠিতে খালাসির কাজ করেন। বিবাহিত জীবন যাপন করলেও তিনি ক্রমেই আধ্যাত্মিকতার প্রতি আকৃষ্ট হন। তিনি ছিলেন স্বভাব কবি। তিনি মুখে মুখে গান রচনা করতেন এবং নিজেই গেয়ে তা প্রচার করতেন। প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক গান রচনা ও পরিবেশনায় তিনি পারদর্শী ছিলেন। শিষ্যদের সহযোগে তিনি যশোর, কুষ্টিয়া, পাবনা, রাজশাহী, বগুড়া প্রভৃতি অঞ্চলে গান পরিবেশন করতেন। তাঁর শিষ্যদের মধ্যে কালাচাঁদ বয়াতি, হাকিম শাহ, করিম বিশ্বাস, ইন্দু বিশ্বাস ও করমদ্দী ছিলেন প্রধান। তিনি মূলত দেহতত্ত্ববিষয়ক মরমি ও ভাবগান রচনা করেন। তাঁর কিছু পালাগান ও  কবিগানও আছে। দেহতত্ত্ব, গুরুতত্ত্ব, যোগতত্ত্ব, সংসারের অনিত্যতা, জীবনরহস্য, নবীতত্ত্ব, কৃষ্ণবন্দনা ইত্যাদি তাঁর গানের বিষয়বস্তু। ড. মযহারুল ইসলাম রচিত ‘কবি পাগলা কানাই’ গ্রন্থে তাঁর ২৪০টি গান সংকলিত হয়েছে। ১৮৮৯ সালের ১২ জুলাই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

[বাংলাপিডিয়া অবলম্বনে]



মন্তব্য