kalerkantho


সেমিনারে বক্তাদের দাবি

সারা বিশ্বে একই দিনে ঈদ হওয়া উচিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



সারা বিশ্বের মুসলমান এক। তাদের আল্লাহ ও নবী এক। ধর্মও এক। বর্ষপঞ্জি হিসাবে তারা সবাই চান্দ্রমাসকে গণনায় ধরে থাকে। তাই একেক দেশে একেক দিন ঈদ কিংবা রোজা পালন করা ইসলামবিরোধী কর্মকাণ্ড। এর মাধ্যমে মুসলমানদের মধ্যে বিরোধ তৈরি হচ্ছে। সমগ্র পৃথিবীর মুসলমানদের ঐক্যের জন্য হলেও একই দিন থেকে রোজা রাখা এবং একই দিন ঈদ পালন করা প্রতিটি মুসলমানের ঈমানি দায়িত্ব।

গতকাল শনিবার কাকরাইলে আইডিইবি মিলনায়তনে চান্দ্রমাসের সঠিক তারিখ বাস্তবায়ন জাতীয় কমিটির এক সেমিনার ও সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন কমিটির মহাসচিব মাওলানা মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ইসলামী চিন্তাবিদ ও শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. শমসের আলী বলেন, “আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি, বিশ্বের সব মুসলমানের একই দিনে রোজা রাখা এবং ঈদ উদ্‌যাপন করা উচিত। কারণ, বর্তমান যুগে আমরা প্রযুক্তির কল্যাণে সেকেন্ডের মধ্যে পৃথিবীর সব কিছু জানতে পারছি।

সৌদি আরবে ঈদ অনুষ্ঠান টিভিতে দেখছি। অথচ আমরা সেদিন রোজা রাখছি। ইসলামে সুস্পষ্টভাবে বলা আছে, ‘রোজার দিন ঈদ উদ্‌যাপন এবং ঈদের দিন রোজা রাখা হারাম’। তাই এখনই সময় এসেছে, বিশ্বের মুসলমানরা ভিন্ন দিন রোজা এবং ঈদ করবে, নাকি একই দিন রোজা এবং ঈদ পালন করবে সেটা নির্ণয় করার। ’

ড. শমসের আলী বলেন, সূর্যের স্যাটেলাইট হলো চাঁদ। এই চাঁদ হলো সময় নির্ধারণের প্রতীক। তাই পৃথিবীতে চান্দ্রমাসের উদ্ভব হয়েছে। এখন প্রশ্ন হলো, কোন সময় রোজা রাখলে এবং ঈদ উদ্‌যাপন করলে সঠিক হবে তা নির্ণয় করা খুব কঠিন কাজ নয়। অন্যদিকে মানুষ চোখের জ্যোতির জন্য চশমা ব্যবহার করে। এখন সেই চশমার বড় লেন্স ব্যবহার করে কেউ যদি চাঁদ ওঠার বিষয়টি নিশ্চিত করে, সেটা দোষের কিছু নয়।

বিশেষ অতিথি সাবেক প্রধান বিচারপতি আবদুর রউফ বলেন, ‘১২ মাসে যে এক বছর সেটা সৃষ্টির আদিকাল থেকে চলে আসছে। আসলে চাঁদ ডোবে না। পৃথিবীর চারপাশে ঘূর্ণায়নের ফলেই আমরা মনে করি চাঁদ ডোবে এবং ওঠে। চান্দ্রমাসের হিসাবে আমরা রোজা রাখা শুরু করলেও রোজার সাহরি ও ইফতার করে থাকি সূর্যের আলোর হিসাবে। তাই এখনই সময় এসেছে বিশ্বের সব মুসলমানের চান্দ্রমাসের সঠিক সময় ও দিন ধরে রোজা রাখার এবং ঈদ উদ্‌যাপন করার। ’

আরেক অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. কাওসার মোস্তফা বলেন, ‘ইসলাম বিশ্বের একটি বড় উম্মাহ। তাই বিশ্বের সব মুসলমানের একই দিনে রোজা রাখা ও ঈদ পালন করা উচিত। কিন্তু আমাদের নিজস্ব অহম বা ইগোর কারণে অনেক কিছু নষ্ট হচ্ছে। ’ তিনি বলেন, ইবলিশ শয়তান জ্ঞানী ও ইবাদতকারী হওয়ার পর তার এসব গুণ নষ্ট হয়ে গেছে অহমের কারণে। তাই মুসলমানদের সে অহম ত্যাগ করে একই দিন রোজা রাখা এবং ঈদ উদ্‌যাপনের বিষয়টি ঠিক করতে হবে।


মন্তব্য