kalerkantho


রোহিঙ্গা পরিস্থিতিতে সংসদীয় কমিটির ক্ষোভ

মিয়ানমারের ওপর জোরালো চাপ সৃষ্টির পরামর্শ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



মিয়ানমারে গণহত্যার শিকার রোহিঙ্গাদের প্রকৃত চিত্র জাতিসংঘে তুলে ধরার পরামর্শ দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটির বৈঠকে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের নিজ ভূমি রাখাইনে ফিরিয়ে নিতে জাতিসংঘের মাধ্যমে মিয়ানমারের প্রতি জোরালো চাপ সৃষ্টির জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি ডা. দীপু মনি। এ সময় কমিটির সদস্য ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, মুহাম্মদ ফারুক খান, গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, মো. সোহরাব উদ্দিন, কাজী নাবিল আহমেদ, মোহাম্মদ ফখরুল, সেলিম উদ্দিন ও মাহজাবিন খালেদসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সদস্য মুহাম্মদ ফারুক খান সাংবাদিকদের বলেন, রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বর হামলা ও গণহত্যার বিষয়টি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা এবং ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে এ ব্যাপারে আরো কঠোর হয়ে জাতিসংঘ যাতে যথাযথ ভূমিকা পালন করে সে জন্য ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। এ ছাড়া অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে জাতিসংঘ যাতে উদ্যোগ নেয় সে জন্য সংস্থাটির সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়।

কমিটির বিরোধীদলীয় সদস্য সেলিম উদ্দিন বলেন, জাতিসংঘের আসন্ন সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গা ইস্যুটি উপস্থাপন করবেন। পাশাপাশি অধিবেশন চলাকালে অন্যান্য কমিটিকেও এ বিষয়ে কাজ করতে হবে।

কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২১ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণ দেবেন। জাতিসংঘের ৭২তম সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল ১৭ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে পৌঁছবে।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে গণহত্যা বিষয়ে তথ্যসূত্র উল্লেখ করে সংক্ষিপ্ত পুস্তিকা ও ডকুমেন্টারি তৈরি করে সব বাংলাদেশ মিশনে পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি, আন্তর্জাতিক ও দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক, ব্যবসা-বাণিজ্য, প্রবাসীদের কল্যাণ ইত্যাদি বিষয়ে বর্তমান সরকারের নীতি, চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা বিষয়ে আলোচনার জন্য বাংলাদেশের হাইকমিশনার ও রাষ্ট্রদূতদের নিয়ে ‘বাংলাদেশে দূত সম্মেলন’ আয়োজনের সুপারিশ করা হয়।


মন্তব্য