kalerkantho


মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বললেন

রোহিঙ্গা শিশু ও নারীদের ওপর নির্যাতন অমানবিক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক বলেছেন, ‘মিয়ানমার সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় রাখাইন রাজ্যে যেভাবে শিশু-নারীদের ওপর নির্যাতন করা হচ্ছে, তা অমানবিক। পৃথিবীতে এত জঘন্য অপরাধ হয়েছে কি না, আমার জানা নেই।

গতকাল বুধবার দুপুরে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে ন্যাশনাল চিলড্রেনস টাস্কফোর্সের (এনসিটিএফ) যৌথসভা ও স্মারকলিপি প্রদান অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন কাজী রিয়াজুল হক।

কাজী রিয়াজুল হক বলেছেন, ‘বাংলাদেশে শিশু নির্যাতন বেড়ে গেছে। শুধু শিশু নির্যাতন নয়, করা হচ্ছে শিশুদের ধর্ষণ। আর এসব হচ্ছে মূল্যবোধের প্রচণ্ড অবক্ষয়ের কারণে। বেড়েছে সামাজিক অস্থিরতা। ফলে মানুষ পাশবিক দিক দিয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠছে। আর এর ভয়াবহতার শিকার ছোট ছোট শিশু। শুধু তা-ই নয়, এখানে চার বছর এমনকি আড়াই বছরের শিশুকেও ধর্ষণের শিকার হতে হচ্ছে। আমরা মনে করি, যারা এই পাশবিক মানসিকতা ধারণ করছে এবং শিশুদের প্রতি এই ধরনের লোমহর্ষক নির্যাতন চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, শিশু ও নারীদের ওপর নির্যাতনের ভয়াবহ রূপ এখন মিয়ানমারে দেখা যাচ্ছে। মিয়ানমারের শিশু ও নারীরা বাংলাদেশে এসে রাস্তার পাশে ও পাহাড়ের চূড়ায় যেভাবে আশ্রয় নিয়েছে, তা অত্যন্ত মানবিক। আর এই নির্যাতনে সবচেয়ে বেশি শিশুরাই শিকার হচ্ছে। তিনি বলেন, মামলার তদন্ত থেকে শুরু করে মেডিক্যাল রিপোর্ট, কোর্টের আইনজীবী, সাক্ষী উপস্থাপন করাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে রাষ্ট্রের যে কর্মকর্তা-কর্মচারী যার যেমন দায়িত্ব আছে, তাকে সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে হবে। যাতে বিচারপ্রক্রিয়ার দীর্ঘসূত্রতা এড়িয়ে যেতে পারে।

এ সময় ন্যাশনাল চিলড্রেনস টাস্কফোর্স (এনসিটিএফ) কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাফায়েত জামিল, চাইল্ড পার্লামেন্টের স্পিকার মেফতাহুন নাহার, সেভ দ্য চিলড্রেনের শেখ রহমতুল্লাহ, আবু জাফর মোহাম্মদ হোসাইন, প্লান ইন্টারন্যাশনালের ফারুক আলম খান, হোসনে কাদেরী মালা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য