kalerkantho


চুয়াডাঙ্গায় জেএসসির ১৭ পরীক্ষার্থীকে পেটাল বখাটেরা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



চুয়াডাঙ্গার তিতুদহ গ্রামে ১৭ জেএসসি পরীক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছে বখাটেরা। এর মধ্যে জখম কয়েকজন চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফিরছিল। কী কারণে তারা হামলার শিকার হয়েছে তা জানা যায়নি। তবে পূর্বশত্রুতার জের ধরে হামলা হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে গতকাল বিকেলে ঘটনার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় ঘেরাও করেছে বিক্ষুব্ধ ছাত্র-ছাত্রীরা। এ ব্যাপারে এক অভিভাবক বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে হানা যায়, চুয়াডাঙ্গার সরোজগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে মঙ্গলবার জেএসসি পরীক্ষা দিয়ে ফিরছিল ছাত্র-ছাত্রীরা। দুপুর পৌনে ২টার দিকে তারা তিতুদহ গ্রামে পৌঁছলে আগে থেকে ওত পেতে থাকা ১০-১২ জন বখাটে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় লাঠিসোঁটা দিয়ে বেধড়ক পেটায় ছাত্র-ছাত্রীদের।

এতে জেএসসি পরীক্ষার্থী পুষ্পি, মাসুরা, বীথি, শাবনুর, তাসলিমা, কুসুম, লাবণী, রুনা, সাদ্দাম মিয়া, ইমন হোসেন, রশিদুল, রিপন, শাকিব, রাজা আহমেদ, আবদুল্লাহ মামুন ও তানভীর হোসেন গুরুতর আহত হয়। তারা গিরীশনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুর মোহাম্মদ বলেন, ‘শুধু ছাত্র-ছাত্রী নয়, বখাটেরা আমার বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহ আলমকেও মারধর করেছে। ’ তিনি আরো জানান, এ ঘটনার পর বিকেল ৪টার দিকে বিক্ষুব্ধ শতাধিক জেএসসি পরীক্ষার্থী চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় ঘেরাও করে। এ সময় হামলাকারীদের বিচারের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেয়। সাড়ে ৫টার দিকে আহত জেএসসি পরীক্ষার্থী রাজু আহমেদের বাবা জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি মামলা করেন।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ওয়াশীমুল বারী জানান, পূর্ববিরোধের কারণে শিক্ষার্থীদের ওপর এ হামলা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আইন প্রয়োগকারী কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি তোজাম্মেল হক বলেন, ‘হামলার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ’


মন্তব্য